সমকামী যৌন সম্পর্ককে অপরাধ ঘোষণা করার রায় পুনর্বিবেচনার সিদ্ধান্ত নিল শীর্ষ আদালত

0
4430

ওয়েবডেস্ক: এক আইনের আওতায় পড়ে যাওয়ায় পুরোনো আইন পুনর্বিবেচনা করে দেখার সিদ্ধান্ত নিল দেশের সুপ্রিম কোর্ট। ‘গোপনীয়তার অধিকার আইন, ২০১৭’ অনুসারে পুনর্বিবেচনা করা হবে সমকাম রায়, সোমবার জানিয়ে দিল শীর্ষ আদালত। ২০১৩ সালে সমকামী যৌন সম্পর্ককে ‘প্রকৃতিবিরুদ্ধ’ এবং ‘অসাংবিধানিক’ ঘোষণা করেছিল সুপ্রিম কোর্ট।

এলজিবিটিকিউ সম্প্রদায়ের পাঁচ সদস্যের দাখিল করা আবেদন প্রসঙ্গে কেন্দ্রের মতামত জানতে চেয়ে এই দিন একটি লিখিত বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে সুপ্রিম কোর্ট। আবেদনের বক্তব্য, যৌন পছন্দের স্বাতন্ত্র্যতার জন্য  পুলিশ এবং প্রশাসনের ভয়ে দিন কাটাতে হয় তাঁদের সম্প্রদায়ভুক্ত মানুষদের।

প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্র, বিচারপতি খানউইলকর এবং ডি ওয়াই চন্দ্রচুড়কে নিয়ে গঠিত বেঞ্চ এর পরিপ্রেক্ষিতে জানিয়েছে, শীর্ষ আদালতের সমলিঙ্গ যৌনতাকে অপরাধ ঘোষণার রায় ব্যক্তির যৌনসঙ্গী পছন্দের অধিকারকে আঘাত করছে।

২০১৭-র আগস্টে গোপনীয়তার অধিকারকে ভারতীয় সংবিধানভুক্ত মৌলিক অধিকারের স্বীকৃতি দেয় শীর্ষ আদালত।”গোপনীয়তার প্রশ্নকে সামনে রেখে আমরা আদালতে যেতেই পারতাম। কিন্তু সে ক্ষেত্রে যেটা পাওয়া যেত, সেটা সহিষ্ণুতা, গ্রহণযোগ্যতা নয় কখনোই। সহিষ্ণুতার ওপর ভর করে হাতে গোনা কিছু উচ্চবিত্ত মানুষ সমাজ থেকে আলাদা হয়ে বাঁচতে পারে। কিন্তু আমাদের দরকার ছিল সম্মানের সঙ্গে বেঁচে থাকার সমানাধিকার”, গোপনীয়তার অধিকার আইন প্রসঙ্গে জানিয়েছেন এলজিবিটিকিউ সম্প্রদায়ের কর্মী গৌতম ভান।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ১৮৬০ সালে, ১৫৩ বছর আগে ইংরেজদের তৈরি ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৭ ধারা অনুযায়ী সমলিঙ্গের দুই ব্যাক্তির মধ্যে যৌন সংসর্গ ঘটা এক ‘অস্বাভাবিক অপরাধ’ এবং তা ধর্ষণের সমতুল্য।

 

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here