ইন্দোনেশিয়ার আগ্নেয় পর্বতে আটকে ৪০০ পর্যটক

0
93

৪০০ জন পর্যটককে বার করে আনতে বুধবার উদ্ধারকারী দল পৌঁছল মাউন্ট রিঞ্জানিতে।  মঙ্গলবার দুপুর থেকেই দুই হাজার মিটার উঁচু অবধি ধোঁয়া বেরোতে দেখা যায় ইন্দোনেশিয়ার লম্বকে রিঞ্জানির মাউন্ট বারুজারি আগ্নেয়গিরিতে। সেই সময়ে ওখানে ছিলেন বিদেশি ও স্থানীয় পর্যটকরা। পর্যটন তত্ত্বাবধায়করা ৩ কিলোমিটারের মধ্যে গোটা এলাকা দ্রুত ফাঁকা করে দিতে বলেছেন।vol-2

বিপর্যয় মোকাবিলা সংস্থার মুখপাত্র সুতোপ পুরব জানান, রবিবার থেকে ৪০০ পর্যটক তিন দিনের জন্য পাহাড়ে চড়ার অনুমতি নিয়ে ভেতরে ঢুকেছেন। এখনও পর্যন্ত ৩৮৯ জনের খোঁজ পাওয়া যায়নি।  তাঁরা কী অবস্থায় আছেন তা জানা যায়নি। এখান থেকে তাঁদের দ্রুত বের করে নিয়ে যেতে হবে।  তবে এখনও পর্যন্ত কারও আহত হওয়ার কোনো খবর পাওয়া যায়নি।vol-1

২০১৫ সালের অক্টোবরে পর্যটক ও স্থানীয় অধিবাসী-সহ এক হাজার মানুষ এই আগ্নেয়গিরিতে অগ্ন্যুৎপাতের ফলে বিপদে পড়েন।  তাঁদের এলাকা থেকে বের করে নিয়ে যাওয়া হয়।  তার পর থেকেই ইন্দোনেশিয়ার সরকার এখানে অগ্ন্যুৎপাতের বিপদসংকেত চালু করছে। ওই বছর বেশ কয়েক বার আগ্নেয়গিরি জেগে ওঠে। ধোঁয়ার ফলে লম্বক বিমানবন্দরের বিমান চলাচল বন্ধ রাখতে হয়।vol-3

মঙ্গলবারের ঘটনার পরে বিমান চলাচল কয়েক ঘণ্টার জন্য বন্ধ রাখা হলেও এখন তা স্বাভাবিক করা হয়েছে।

প্রশান্ত মহাসাগরীয় বলয়ের মধ্যে পড়ছে ইন্দোনেশিয়া। তাই জায়গাটি খুবই ভূমিকম্পপ্রবণ ও বিপজ্জনক। এখানকার ৪০০টি অগ্নেয়গিরির মধ্যে ১২৯টি সক্রিয় আগ্নেয়গিরি আর ৬৫টি বিপজ্জনক বলে চিহ্নিত।

 

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here