মানব কোশ নিয়ে পারমাণবিক স্তরের গবেষণা করে নোবেল পেলেন তিন রসায়নবিদ

0
1379

ওয়েবডেস্ক: মানব শরীরে আনবীক্ষণিক কোশকে পরীক্ষা নিরীক্ষা করেই চিকিৎসা বিজ্ঞানে যুগান্তকারী আবিষ্কারগুলো করেন বিজ্ঞানীরা। কোশের গঠন খালি চোখে তো আর দেখা যায় না। তার জন্য প্রয়োজন রেজলিউশন বাড়িয়ে শরীরের কোশগুলোকে পরিষ্কার ভাবে বুঝতে পারা। এই লক্ষ্যেই বিজ্ঞানীদের সাম্প্রতিক আবিষ্কার ‘ক্রায়ো ইলেক্ট্রন মাইক্রোস্কোপি’ পদ্ধতি। ২০১৭ সালের রসায়ন বিভাগে নোবেল পাচ্ছে এই আবিষ্কার। গবেষণার পেছনে মূল মাথা তিন রসায়নবিদের – রিচার্ড হেন্ডারসন (ব্রিটেন), জোয়াকিম ফ্যাংক (নিউইয়র্ক) এবং জ্যাক দুবাশে (সুইৎজারল্যান্ড)।

দ্য রয়াল সুইডিশ অ্যাকাডেমি অব সায়েন্স এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, এই আবিষ্কারের ফলে অণু বিভাজন প্রক্রিয়ার সাহায্যে খুব সহজেই মানব কোশের নিখুঁত এবং বিস্তারিত ছবি পাওয়া যাবে। তিন বিজ্ঞানীর এই গবেষণা জৈব রসায়নের জগতে এক নতুন আলোর দিশা দেখাবে, সে ব্যাপারে আশাবাদী নোবেল কর্তৃপক্ষ। পুরস্কারের মূল্য হিসেবে তিন বিজ্ঞানী পাবেন আশি লক্ষ সুইডিশ ক্রোনার অথবা ৯লক্ষ ৩১ হাজার মার্কিন ডলার।

নোবেলজয়ী ত্রয়ীর মধ্যে দুবাশে যুক্ত আছেন লাউশেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে। রিচার্ড এবং ফ্যাঙ্ক যথাক্রমে কেমব্রিজ এবং কলোম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক।

চলতি মরশুমে চিকিৎসা বিজ্ঞান, পদার্থবিদ্যা এবং রসায়নবিদ্যা মিলিয়ে ৯জন নোবেলজয়ীর সাতজনই মার্কিন নাগরিক। বুধবার সুইডিশ অ্যাকাডেমির ঘোষণা চলাকালীন এক চিনা বেতার সাংবাদিক নোবেল কর্তৃপক্ষকে লক্ষ করে প্রশ্ন ছোড়েন নোবেল জয়ীর তালিকায় মার্কিনদের আধিপত্য নিয়ে। এই প্রসঙ্গে অ্যাকাডেমির সাধারণ সচিব হ্যানসন বলেন, “মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র দ্বিতীয় বিশ্ব যুদ্ধের সময় থেকেই বিজ্ঞানীদের মৌলিক গবেষণার ওপর জোর দেয়। রাজনীতির চাপ থেকে মুক্ত থেকে স্বাধীন ভাবে গবেষণা করতে পারেন বিজ্ঞানীরা”।

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here