এ বার পর্যটনকেন্দ্র চাঁদ, আগামী বছর পাড়ি দেবেন দুই পর্যটক

0
132

ওয়াশিংটন : একটা সময় ছিল যখন দেশের বাইরে গেলেই পাড়ায় পাড়ায় ঢিঢি পড়ে যেত, অমুক পাড়ার অমুক লোক ওই দেশে গেছে। এখন আর তা হয় না। মানুষ গোটা বিশ্ব চষে ফেলেছে। এখন নজর আরও দূরে। সে দূর অবশ্য যে-সে দূর নয়। এক্কেবারে মহাকাশ। এ বার পর্যটকরা পাড়ি দেবেন চাঁদে।

mon-capsule

মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা স্পেস এক্সের সিইও এলন মস্ক জানাচ্ছেন, গত ৪৫ বছরে মানুষের চাঁদে যাওয়ার ঘটনা এই প্রথম ঘটবে। তা ছাড়া ব্যক্তিগত ভাবে মানুষের চন্দ্র অভিযানে যাওয়ার ঘটনা এর আগে আর হয়নি। আগামী বছরের শেষের দিকে তাঁরা দু’জন পর্যটককে চাঁদে পাঠাবেন। সেই পর্যটকরা চাঁদে থাকবেন প্রায় সপ্তাহ খানেক ধরে। সংস্থা জানাচ্ছে, এই উৎসুক পর্যটকরা চাঁদে যাওয়ার জন্য ইতিমধ্যেই টাকাপয়সা জমা করেছেন। এই উড়ান শুরু হবে ফ্লোরিডার কেনেডি স্পেস সেন্টার থেকে। এই অভিযাত্রীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা, প্রশিক্ষণ যাবতীয় সব কিছুই শুরু হবে চলতি বছরেই।

সংস্থা জানাচ্ছে, অন্য উড়ান সংস্থাগুলিও এই ব্যাপারে দারুণ উৎসাহ দেখিয়েছে। এই ব্যাপারে প্রথম পথ দেখাল স্পেস এক্স। এই ঘোষণার পর সিইও টুইট করে বলেন—

সংস্থার তরফে জানানো হয়েছে, এই যাত্রা হবে ক্যালিফোর্নিয়ার একটি সংস্থার তৈরি ক্রিউ ড্রাগন ক্যাপসুলে করে। এই মহাকাশযানটির পরীক্ষামূলক উড়ান হবে এ বছরেই। পরীক্ষার সময় এই মহাকাশযানে থাকবেন না কোনো মানুষ। আপাতত এই মহাকাশযানটি ইন্টারন্যাশনাল স্পেস স্টেশনে পাঠানো হয়েছে। সেখানে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে মানুষ পরিবহনের উপযোগী করে তোলা হবে এই যানটিকে।

গত সেপ্টেম্বর মাসে সংস্থার তরফে জানানো হয়, ২০২৪ সালে লালগ্রহে এক সঙ্গে ১০০ জন মানুষ পাঠানোর পরিকল্পনা করা হয়েছে। উদ্দেশ্য, সেখানে বসতি গড়ে তোলা। এ ছাড়াও মানুষহীন ড্রাগন ক্যাপসুল মহাকাশে পাঠানোর কথা ঘোষণা করেছে সংস্থা।

অন্য দিকে ব্রিটিশ বিলিয়নেয়ার রিচার্ড ব্রানসনের মহাকাশ পর্যটন সংস্থা ভার্জিন গ্যালাকটিক পৃথিবীপৃষ্ঠ থেকে ১০০ কিলোমিটার উঁচুতে মানুষকে ঘুরতে পাঠানোর পরিকল্পনা করেছে।

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here