হাতি দিনে ২ ঘণ্টা ঘুমোয়, বলছে গবেষণা

0
106

ওয়াশিংটন : স্থলজ স্তন্যপায়ী প্রাণীদের মধ্যে সব থেকে কম ঘুমোয় হাতি। দিনে মাত্র দু’ ঘণ্টা। কোনো কোনো দিন তাও ঘুমোয় না। আর বেশির ভাগ সময়ে ঘুমোয় দাঁড়িয়ে। 

প্রায় সবাই জানে হাতি কখনও ভোলে না। এখন নতুন গবেষণায় উঠে এল, বলতে গেলে হাতি ঘুমোয়ও না। গবেষকরা এই প্রথম বার হাতির ঘুমের পরিমাণ নিয়ে গবেষণা করলেন। গবেষণাটি পরিচালনা করেন দক্ষিণ আফ্রিকার ইউনিভার্সিটি অব উইটওয়াটারস্রান্ড-এর স্কুল অব অ্যানাটমিক্যাল সায়েন্সের প্রধান পল ম্যাঞ্জার। গবেষণাপত্রটি প্রকাশিত হয়, পিএলএসও ওয়ান পত্রিকায়।   

এই গবেষণাটি করা হয় বোতসোয়ানা চোবে জাতীয় উদ্যানে। সেখানে দু’টি আফ্রিকান মেয়ে-হাতির শুঁড়ের চামড়ার নীচে ঘড়ির মতো যন্ত্র লাগিয়ে দেওয়া হয়। এই যন্ত্রটি উপগ্রহের সঙ্গে সংযুক্ত। হাতির গতিবিধি লক্ষ রাখার জন্যই এই যন্ত্রের ব্যবস্থা করা হয়েছিল। গবেষকরা জানান, হাতি ঘুমোলে তাদের শুঁড়ের নড়াচড়া বন্ধ থাকে। তাই ঘুমের পরিমাণ মাপতে এই পথই অবলম্বন করা হয়েছে। এ ছাড়াও ঘুমের সময়ে কোথায়, কী ভাবে তারা ঘুমোয় সে সব জানতে এই ব্যবস্থার কথা ভাবা হয়। এই ভাবে তাদের ওপর ৩৫ দিন নজর রাখা হয়। পল জানান, এই যন্ত্র তাদের শরীরের কোনো ক্ষতি করবে না, এটা পরীক্ষিত সত্য।  

বিজ্ঞাপন

গবেষণায় দেখা গেছে, কখনও কখনও ৪৬ ঘণ্টা পর্যন্ত তারা ঘুমোয়নি। সিংহ বা চোরাশিকারিদের হাত থেকে বাঁচতে কেবল হেঁটেছে। টানা হেঁটে প্রায় ৩০ কিলোমিটার পথ পার হয়ে গেছে। মোটামুটি ভাবে হাতিদের ঘুমের সময় হল, রাত্রি দু’টো থেকে ভোর ছ’টার মধ্যে। বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই দু’ ঘণ্টা ঘুমোয় হাতিরা। তবে পাঁচ ঘণ্টাও ঘুমোয় তারা। তবে সেটা ধর্তব্যের বাইরে। আর ঘুমের মাত্র ১৭% সময় তারা শুয়ে ঘুমোয়, বাকি সময় দাঁড়িয়েই ঘুমোয়। 

গবেষোকরা এই দু’টি হাতিকে বিশাল হাতিগোষ্ঠীর প্রতিনিধি হিসেবে ধরে নিয়েছেন। পরবর্তী ধাপে পুরুষ-হাতিদেরও এই গবেষণার একক হিসেবে নেওয়া হবে। 

গবেষণায় উঠে এল, বন্দি হাতিদের ঘুমের পরিমাণ দিনে চার থেকে ছয় ঘণ্টা। বন্দি হাতিদের বেশি ঘুমের কারণ হিসেবে গবেষকরা বলছেন, তাদের খাবার খোঁজা, শত্রুর আক্রমণ থেকে আত্মরক্ষা করা, ঘুরে বেড়ানোর সুযোগ কম থাকে। তাই ছোটো পরিসরে বা বন্দি অবস্থায় তাদের খাটাখাটুনি কম থাকে কিন্তু ঘুম বেশি। 

যে কোনো প্রাণীর আরইএম স্লিপ অর্থাৎ র‍্যাপিড আই মুভমেন্ট স্লিপ দরকার স্মৃতি ধরে রাখার জন্য। কিন্তু হাতির স্মৃতি ধরে রাখতে এর দরকার পড়ে না। 

পল জানান, হাতির পর সব থেকে কম ঘুমের তালিকায় নাম আসে পোষা ঘোড়া। তারা সারা দিনে তিন ঘণ্টারও কম ঘুমোয়। তিনি বলেন, কয়েকটি প্রাণী আছে যারা বন্দি অবস্থায় প্রায় সারা দিনই ঘুমোয়। তার মধ্যে রয়েছে বাদামি বাদুড় ১৯ ঘণ্টা ঘুমোয়, অপসাম নামের একটি প্রাণী ১৮ ঘণ্টা ঘুমোয়, আরমাডিলো ১৭ ঘণ্টা ঘুমোয়। মানুষ ঘুমোয় গড়ে ৬ থেকে ৯ ঘণ্টা। 

বিজ্ঞাপন
loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here