এশীয় কুস্তি চ্যাম্পিয়নশিপে সোনা জিতলেন বজরং পুনিয়া

0
310

নয়াদিল্লি: শুরুতে পিছিয়ে পড়েছিলেন তিনি। কিন্তু শেষ পর্যন্ত বাজিমাত করলেন তিনি। এশীয় কুস্তি চ্যাম্পিয়নশিপে  দেশের জন্য প্রথম সোনা এনে দিলেন বজরং পুনিয়া। ৬৫ কেজি ফ্রিস্টাইল বিভাগের ফাইনালে তিনি হারালেন কোরিয়ার সেউংচুল লি-কে। কোরীয় প্রতিদ্বন্দ্বীকে ৬-২ পয়েন্টে হারিয়ে সোনা জেতার পর জাতীয় পতাকা নিজের গায়ে জড়িয়ে ‘ভিক্টরি ল্যাপ’ দিলেন পুনিয়া।

লড়াইয়ের প্রথম অর্ধে পুনিয়া ০-২ পয়েন্টে পিছিয়ে ছিলেন। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে দারুন ভাবে লড়াইয়ে ফিরে আসেন তিনি। কোরীয় প্রতিদ্বন্দ্বীকে আর কোনো পয়েন্ট সংগ্রহ করতে দেননি তিনি। দ্বিতীয়ার্ধে শুরুতেই প্রতিদ্বন্দ্বীকে ম্যাটের বাইরে ঠেলে দিয়ে একটি পয়েন্ট পান পুনিয়া। তার পর আরও দু’ বার লি-কে পরাস্ত করে ২টি পয়েন্ট সংগ্রহ করেন। তার পর আর ফিরে তাকাতে হয়নি পুনিয়াকে। আগাগোড়া আক্রমণাত্মক খেলে আরও ৩টি পয়েন্ট সংগ্রহ করে জয় ছিনিয়ে নেন।

জেতার পর পুনিয়া বলেন, “সোনা হল সোনা। এর সঙ্গে রুপো বা ব্রোঞ্জের কোনো তুলনা হয় না। এই প্রথম কোনো বড়ো আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টে সোনা পেলাম। এই জয় পেয়ে দারুন খুশি আমি।”

শনিবার ছিল এশীয় কুস্তি চ্যাম্পিয়নশিপে শেষের আগের দিন। এ দিন  ভারতের জন্য রুপো এনেছেন মহিলা কুস্তিগির সরিতা। তিনি ৫৮ কেজি বিভাগের ফাইনালে হেরে গেলেন কিরগিজস্তানের আইসুলু তেনিবেকোভার কাছে। এই চ্যাম্পিয়নশিপে ভারতের মহিলা কুস্তিগিররা কোনো সোনা না জিতলেও মোট ৬টি পদক পেয়েছে — ৪টে রুপো ও ২টি ব্রোঞ্জ। এশীয় কুস্তি চ্যাম্পিয়নশিপে মহিলা কুস্তিগিরদের এটাই সব চেয়ে ভালো ফল। এর আগে ২০০৩ সালের চ্যাম্পিয়নশিপে ভারতীয় মহিলা দল ৫টি পদক পেয়েছিল – ২টি রুপো ও ৩টি ব্রোঞ্জ।

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here