বুমরাহ-ভুবির দাপটের পর সাবলীল বিজয়-রাহুল, দ্বিতীয় দিনের শেষে কিছুটা এগিয়ে ভারত

1
522
india vs south africa

ভারত: ১৮৭ এবং ৪৯-১ (রাহুল ১৬ অপরাজিত, পার্থিব ১৬, ফিলান্দার ১-১১)

দক্ষিণ আফ্রিকা: ১৯৪ (আমলা ৬১, ফিলান্দার ৩৫, বুমরাহ ৫-৫৪)

জোহানেসবার্গ: জোহানেসবার্গ টেস্টের দ্বিতীয় দিনের শেষে কে এগিয়ে? খুব সেয়ানে সেয়ানে লড়াই হলেও বলা যেতে পারে সিরিজে এই প্রথম বার ভারত কিছুটা এগিয়েই রয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকার থেকে। এখন সব দায়িত্ব ব্যাটসম্যানদের ওপরে। এই পিচে আরও অন্তত দুশো রান যদি উঠে যায়, তা হলে সিরিজ হোয়াইট ওয়াশের আতঙ্ক হয়তো কেটে যেতে পারে।

ভারত যে এগিয়ে থেকেই দ্বিতীয় দিন শেষ করল, যথারীতি তার নেপথ্যে রয়েছেন বোলাররা। বৃহস্পতিবার শুরুটা ভুবনেশ্বর কুমারকে দিয়ে হলেও শেষ করলেন জসপ্রীত বুমরাহ। ইনিংসের প্রথমাংশে সুইং-এ বিপক্ষকে কাঁপিয়ে দিয়েছিলেন ভুবি। শেষাংশে খেল দেখালেন বুমরাহ। একাই তিনি পাঁচ উইকেট দখল করলেন।

ভারতীয় বোলারদের এই দাপটে ভারতের রান থেকে মাত্র সাত রানে এগিয়ে থেমে যায় দক্ষিণ আফ্রিকা। প্রোটিয়া ইনিংসের একমাত্র উজ্জ্বল দিক হাশিম আমলার ব্যাটিং। একটা দিক তিনি একা ধরে না থাকলে হয়তো ভারতের রানের আগেই থেমে যেত দক্ষিণ আফ্রিকা।

দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নামার সময়েই চমক দেয় ভারত। পার্থিব পটেলকে দিয়ে ওপেন করানো হয়। এর পেছনে দু’টি কারণ থাকতে পারে। এক, বাঁ হাতি-ডান হাতি জুটি এবং দুই, রানে না থাকা রাহুলকে একটু পরে নামানো।

তবে ওপেন করতে নেমেও বিশেষ রান পাননি পার্থিব। তবে পার্থিব ফিরে যেতেই ঘুরে দাঁড়ায় ভারত। সিরিজে এই প্রথম বার রাহুল-বিজয় জুটিকে সাবলীল ভাবে দক্ষিণ আফ্রিকার পেসারদের বিরুদ্ধে রান করতে দেখা যায়। দিনের শেষ কয়েকটি ওভার যে ভাবে সামলেছেন তাতে বলাই যায় যে ভারতীয় ব্যাটসম্যানরা দক্ষিণ আফ্রিকার বোলারদের আতঙ্ক কাটিয়ে উঠছেন।

এখন তৃতীয় দিনের শুরুতেই সব কিছু নির্ভর করছে। রাহুল-বিজয় জুটি যদি তৃতীয় দিনের প্রথম ঘণ্টা ভালো ভাবে উতরে দিতে পারেন তা হলে দক্ষিণ আফ্রিকার ঘাড়ে চেপে বসতে ভারতের বেশি সময় লাগবে না।

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

loading...

1 মন্তব্য

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here