ফিরে দেখা ফুটবল বিশ্বকাপ: ‘ইচ্ছাকৃত লাথি’ খেয়ে যখন পুসকাস মাঠের বাইরে

বিশ্বকাপ ফুটবল মানেই মন জোড়া-ফলায় বিদ্ধ। এক উত্তেজনা। দুই নস্টালজিয়া। উত্তেজনা আপাতত তোলা রইল ১৪ জুন রাশিয়া বিশ্বকাপের আসরের জন্য। এখন ভেসে যাওয়া যাক নস্টালজিয়ায়।

0
110
hangery, germany, ferenk puskas
Arunava Gupta
অরুণাভ গুপ্ত

ফেরেঙ্ক পুসকাস-ডাকনাম ‘গ্য়ালপিং মেজর’। সেনাবাহিনীর র‍্যাঙ্ক অনুযায়ী নামকরণ। ১৯৫৪ বিশ্বকাপ ফুটবলের আসরে হাঙ্গেরির অধিনায়ক। ১৯৫২-র অলিম্পিকে যাঁর দক্ষতা প্রশ্নাতীত হিসাবেই প্রমাণিত হয়েছিল। তিরিশ গজ দূরের যে কোনো জায়গা থেকে বাঁ-পায়ে মাপা শটে গোল করতে অদ্বিতীয়। টিমে তিনি সেরার সেরা।

স্যান্ডর কোসিসকে ভক্তরা আদর করে ডাকতেন ‘গোল্ডেন হেড’। ছোটোখাটো মাপের ফুটবলার, কোনো কোনো বিশেষ ক্ষেত্রে পুসকাসের থেকেও ভয়ঙ্কর। বল বাতাসে থাকলে কোসিসের মাথা নিশপিশ করে এবং তেমন সুযোগ পেলে গোল অবধারিত।

নান্ডর হিদেগকুটি এক জন অন্য জাতের সেন্টার ফরোয়ার্ড, যাঁকে আগে থেকে আন্দাজ করা অসম্ভব। আর জোসেফ বজসিকের প্রধান হাতিয়ার হলো তাঁর পরিশ্রম করার অগাধ ক্ষমতা, বলের উপর অসাধারণ নিয়ন্ত্রণ এবং আপাদমস্তক আক্রমণাত্মক। হাঙ্গেরি টিমে বজসিক প্রধান শক্তির উৎস, যেখানে ঘাটতি সেখানে জেনারেটরের ভূমিকায় তিনি।

এহেন হাঙ্গেরির কাছে ১৯৫৪ বিশ্বকাপ অধরা থাকা এক অবিশ্বাস্য ঘটনা। অথচ ঘটল। কিন্তু কেন?

মূল পর্বে প্রবেশের আগে হাঙ্গেরির সঙ্গে জার্মানির মোলাকাত হয়। পুরো ম্যাচ খেলতে পারেননি হাঙ্গেরির অধিনায়ক পুসকাস। জার্মানির সেন্টার-হাফ ওয়ার্নার লিবরিখ তক্কে তক্কে ছিলেন, সুযোগ মিলতে কষিয়ে বিরাশি সিক্কার লাথি। পুসকাসের অবস্থা কাহিল। বাকি সময় মাঠের বাইরে কাটাতে হয়েছে। বলতে বাধা নেই, ওয়ার্নারের ওই ওই মার্কামারা লাথি বিশ্বকাপ মাতালো। এবং বিশ্বকাপের ফাইনালে দুই দলের মুখোমুখি হওয়ার ছক তৈরি করে দিল বললেও অত্যুক্তি হয় না।

আরও পড়ুন: ফিরে দেখা ফুটবল বিশ্বকাপ: রিও-র রাজ্যপালের অপমান তাতিয়ে দিয়েছিল উরুগুয়েকে

পুসকাস রাখঢাক না করে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন, ‘ইচ্ছাকৃত লাথি’। অতটা খোলাখুলি না বললেও পর্যবেক্ষকরা বলেছেন, এটা বাড়াবাড়ি হয়েছে। এর পরেও ম্যাচটা কিন্তু জেতে হাঙ্গেরি। আর ফলাফল? যথেষ্ট চমকপ্রদ। হাঙ্গেরি ৮ এবং জার্মানি ৩।

এই চরম পরাজয়ের বদলা অবশ্য় নিতে পেরেছে জার্মানি। কী ভাবে, পড়ুন পরবর্তী সংখ্য়ায় www.khaboronline.com-এ

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here