জয় দিয়ে অভিযান শুরুর লক্ষ্যে সুনীলরা

0
203

সানি চক্রবর্তী:

হোক না প্রস্তুতি ম্যাচে জয়। তবু তো কম্বোডিয়াকে ৩-২ ব্যবধানে হারিয়ে ১২ বছর পরে দেশের বাইরে জয় পেয়েছে ভারতীয় দল। আর সেটাই স্টিফেন কনস্ট্যানটাইনের শিবিরে এনে দিয়েছে অক্সিজেনের সিলিন্ডার। এএফসি কাপের যোগ্যতাঅর্জন পর্বে গ্রুপের ম্যাচে মায়ানমারের বিরুদ্ধে নামার আগে যেটা বাড়তি আত্মবিশ্বাস জোগাচ্ছে সুনীল-জেজেদের।

এমনিতেই ভারতের (১৩২) থেকে ফিফা র‍্যাঙ্কিং-এ ৪০ ধাপ নীচে রয়েছে মায়ানমার। তাও প্রতিপক্ষের রাজধানী শহর ইয়াঙ্গনে লড়াইটা মোটেই ভারতের পক্ষে একতরফা হবে না। কারণ, নিকট অতীতে মায়ানমারের ট্র্যাকরেকর্ড বেশ ভালো। বেশ ভালো ফুটবলের নমুনা মেলে ধরছে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার এই দেশটি। পাশাপাশি হেড টু হেড বিচারে ভারত সামান্য এগিয়ে মায়ানমারের থেকে (১০-৯)। এ ছাড়া ইয়াঙ্গনে ২০১৩ সালে এএফসি চ্যালেঞ্জ কাপের ম্যাচে খেলতে এসে ০-১ ব্যবধানে হেরে ফিরতে হয়েছিল ভারতকে। এক দিকে, মায়ানমারের বিরুদ্ধে তাদের মাঠে বাজে ট্র্যাকরেকর্ড (১৯৫৩ সালের পর থেকে মায়ানমারে গিয়ে তাদের হারাতে পারেনি ভারত), অন্য দিকে ছন্দে থাকা প্রতিপক্ষের ঘরের মাঠে ম্যাচ। সেখান থেকে গ্রুপের প্রথম ম্যাচে তিন পয়েন্ট নিয়ে আসাটা যে মোটেই সহজ নয়, তা ভালোমতোই জানেন ভারতের ব্রিটিশ কোচ স্টিফেন কনস্ট্যানটাইন। নিজেদের আন্ডাররডগ বলছেন তিনি, সঙ্গে হিসেব কষে বলছেন এক পয়েন্ট নিয়ে ফেরাটাই লক্ষ্য। অধিনায়ক সুনীল ছেত্রী যদিও আগের কাসুন্দি ঘাঁটতে একেবারেই রাজি নন।

কোচ কনস্ট্যানটাইনের মতে, “ফুটবলাররা এই ম্যাচের জন্য দারুণ পরিশ্রম করেছে। মায়ানমারের বিরুদ্ধে ম্যাচটা কঠিন হবে। আমাদের শক্ত লড়াইয়ের মুখেই পড়তে হবে।” উল্লেখ্য, গ্রুপ এ-তে ভারতের সঙ্গে মায়ানমার ছাড়াও রয়েছে কিরঘিজস্তান ও ম্যাকাও। গ্রুপ থেকে দু’টি দল ২০১৯ সংযুক্ত আরব আমিরশাহি এশিয়ান কাপের যোগ্যতা অর্জন করবে। প্রথম অ্যাওয়ে ম্যাচের পরেই ভারতের তিনটি হোম ম্যাচ রয়েছে। যে প্রসঙ্গে ব্রিটিশ কোচের সংযোজন, “আমাদের মতোই প্রত্যেক দলেরই পরের পর্বে যাওয়ার সমূহ সম্ভাবনা রয়েছে। তাই প্রথম ম্যাচে কোনো ভাবেই হারা চলবে না। এর পরের তিনটি হোম গেমে ৯ পয়েন্টের লক্ষ্যে ঝাঁপাব আমরা। আপাতত নজরে শুরুই মায়ানমার ম্যাচ।” কোচর মতো রক্ষণাত্মক ভঙ্গিতে না গিয়ে বরং স্ট্রাইকারের ঢঙয়েই আক্রমণাত্মক সুনীল যদিও তিন পয়েন্টের লক্ষ্যেই প্রথম ম্যাচে নামার কথা বলেছেন। ভারত অধিনায়কের মতে, “চাপ থাকবে ঘরের দলের উপরেই। মায়ানমারের আগের বেশ কিছু ম্যাচের ভিডিও ফুটেজ দেখেছি, ওদের কোনো ভাবেই হেয় করা চলে না। তবে আমরাও দারুণ ভাবে প্রস্তুত হয়ে এসেছি নিজেদের সেরাটা উজাড় করে দিতে। শক্ত লড়াইয়ে নামছি তিন পয়েন্টের লক্ষ্যেই।”

ভারত বনাম মায়ানমার

থুউন্না স্টেডিয়াম, ইয়াঙ্গন

ভারতীয় সময় বিকেল ৫ টা।

সরাসরি ডিডি স্পোর্টস, হটস্টার ও জিও টিভিতে।

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here