আইএসএল: এআইএফএফ-কে হুঁশিয়ারিই দিয়ে এল দুই প্রধান

0
3187

সানি চক্রবর্তী

কলকাতা: সর্বভারতীয় ফুটবল ফেডারেশনের সঙ্গে সভায় কার্যত হুঁশিয়ারিই দিয়ে এলেন দুই প্রধানের কর্তারা। আইএসএলে খেলার অ্যাপিয়ারেন্স ফি (১৫ কোটি টাকার দরপত্র কেনা) দিয়ে লিগে নাম লেখাবে না বলেই জানালেন মোহনবাগান-ইস্টবেঙ্গলের কর্তারা। সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর আশ্বাসে বলীয়ান হয়ে কলকাতা থেকে খেলার ব্যাপারেও জোরদার সওয়াল করে এল তারা। মঙ্গলবার নিজেদের দাবিদাওয়া নিয়ে রাজ্যের ক্রীড়ামন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসের সঙ্গে দেখা করবেন দুই প্রধানের শীর্ষকর্তারা। সেই সভায় থাকবেন মহমেডানের কর্তারাও, ক্রীড়ামন্ত্রীর কাছেই নিজেদের দাবিদাওয়া রাখবেন তাঁরা।

অ্যাপিয়ারেন্স ফি না দেওয়ার কথা এ দিন এআইএফএফ সচিব কুশল দাসের কাছে ফের এক বার জানিয়েছেন কর্তারা। সভাপতি প্রফুল্ল পটেল সভায় ছিলেন না। তাঁর কাছে ক্লাব কর্তাদের বার্তা পৌঁছে দেবেন বলেই জানিয়েছেন কুশলবাবু। মোহনবাগান ক্লাবের পক্ষে সৃঞ্জয় বসু ও দেবাশিস দত্ত আর ইস্টবেঙ্গলের পক্ষে দেবব্রত সরকার ও ডা: শান্তিরঞ্জন দাশগুপ্ত উপস্থিত ছিলেন সভায়। এআইএফএফ সচিবের কাছে আইএসএল ও আই লিগের সমস্ত দলকে রেখে মিলিত লিগ করার দাবিও জানিয়েছেন দুই প্রধানের কর্তারা। জানা গিয়েছে, লিগের যাবতীয় খসড়া আইএসএল কর্তৃপক্ষের হাতে রয়েছে বলে যে ব্যাপারে পাস কাটিয়ে গিয়েছেন কুশলবাবু। সূত্রের খবর, কোনো নির্দিষ্ট আশ্বাসবাণী না দিলেও কলকাতা থেকে কোন দল খেলবে তা নিয়ে একটা শঙ্কা প্রকাশ করেছেন তিনি।

কারণ, দুই প্রধানের কর্তাদের হুঁশিয়ারি। সরাসরি তাঁরা বলে রেখেছেন, কলকাতা থেকে মোহন-ইস্ট খেলতে না পারলে অন্য কোনো দলও খেলতে পারবে না। উল্লেখ্য, কয়েক দিন আগেই রাজ্যের ক্রীড়ামন্ত্রী বলেছিলেন, যুবভারতী স্টেডিয়াম রয়েছে রাজ্য সরকারের অধীনে। তাই সেখানে যাতে কলকাতার দলগুলো খেলতে পারে, সেটা নিশ্চিত করার চেষ্টা করবেন। স্বভাবতই ক্রীড়ামন্ত্রীর কথা ও রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর আশ্বাসে ভর করেই চাপ বাড়িয়েছেন দুই প্রধানের কর্তারা। তাই এ হেন পরিস্থিতিতে মঙ্গলবারে ক্রীড়ামন্ত্রীর সঙ্গে সভার ফলাফল কী হয়, সেটা জানার দিকেই তাকিয়ে দুই প্রধানের সমর্থকরা।

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here