সার্কিট ট্যুরিজমের উদ্যোগ, নেতাজির পৈত্রিক ভিটের সংস্কার শুরু

0
5082
ancestral house of netaji at kodaliya

নিজস্ব সংবাদদাতা, দক্ষিণ ২৪ পরগণা: সব জটিলতা কাটিয়ে রাজ্য সরকারের উদ্যোগে সোনারপুরের কোদালিয়ায় নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর পৈত্রিক ভিটে সংস্কারের কাজ শুরু হল। মোট ৭৬ লক্ষ টাকা ব্যয়ে এই সংস্কারের কাজে হাত দিয়েছে রাজ্যে পূর্ত দফতর।

আগামী এক বছরের মধ্যে এই ভবন সংস্কারের কাজ শেষ হবে। হেরিটেজ ভবন হিসাবে সংরক্ষিত করা হবে এই পৈত্রিক ভিটে। এই পৈত্রিক ভিটেকে ঘিরে সার্কিট ট্যুরিজম গড়ে তোলারও উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন সোনারপুর রাজপুর পুরসভার চেয়ারম্যান।

নেতাজির ব্যবহৃত খাট, বিছানা, টেবিল-সহ আসবাবপত্র নতুন রূপে সাজিয়ে তোলার কাজও শুরু হয়ে গিয়েছে। সেই সঙ্গে সংস্কার করা হবে নেতাজির পৈত্রিক ভিটের ধানের গোলা এবং ভিটে লাগোয়া পুকুরও।

প্রসঙ্গত, ২০১৩ সালে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কোদালিয়ায় নেতাজির পৈত্রিক ভিটে পরিদর্শন করে জমি অধিগ্রহণ ও ভগ্ন ভবনের হেরিটেজ করার ঘোষণা করেন। সেই সঙ্গে হেরিটেজ কমিশনের কাছে সুপারিশ করার কথাও জানিয়েছিলেন। এর পর কমিশন থেকে ভিটেও পরিদর্শন করা হয়। এর পর সংস্কারের কাজ শুরু হলেও শরিকি আপত্তিতে সেই কাজ বন্ধ হয়ে যায় ।

রাজপুর সোনারপুর পুরসভার চেয়ারম্যান ডঃ পল্লব দাস জানান, “নেতাজির বংশধরদের আপত্তিতে কাজ থমকে গিয়েছিল, এখন জটিলতা কাটিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর উদ্যোগে ভবন সংস্কারের কাজ শুরু হয়েছে, পিডবলুডি জায়গা মাপজোক করেছে, বাড়ি, পুকুর এমনকি ধানের গোলা, সব সংস্কার করা হবে।” ভবনে পানীয় জলের ব্যবস্থা করা হবে, তৈরি হবে শৌচালয়। পাশাপাশি নেতাজির অগ্রজ সুনীল বসু যে পোস্ট অফিসে বসে কাজ করতেন তাও সংস্কার করা হবে।

নেতাজির ১২১ তম জন্মদিনকে ঘিরে মঙ্গলবার সারা দিন এই পৈত্রিক ভিটের কাছে নানা অনুষ্ঠান হয়, কিছু সময়ের জন্য দর্শনার্থীদের জন্য খুলে দেওয়া হয় এই বাড়ি। স্থানীয় স্কুলের ছাত্রছাত্রীরা ভিড় জমায় একবার চাক্ষুষ করতে, কেউ এই বাড়িকে স্মরণে রাখতে বাড়িকে নিয়ে সেলফি তোলে। নেতাজি কৃষ্টি কেন্দ্রর পক্ষ থেকে মূর্তিতে মাল্যদান থেকে শুরু করে আঁকা প্রতিযোগিতা, আবৃতি সহকারে বর্ণময় অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় সকাল থেকেই, মিউজিয়াম খুলে দেওয়া হয় দর্শনার্থীদের জন্য।

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here