চাপা টেনশন, তবু আস্ফালন ‘বন্দি’ কেষ্টর

0

খবর অনলাইন: “আমি নজরবন্দি নই। আমাকে নজরবন্দি করার ক্ষমতা নেই কারও।’’ চোখে মুখে চাপা টেনশন। তবু মুখে আস্ফালন বীরভূমে তৃণমূলের জেলা সভাপতি, নির্বাচন কমিশনের নজরবন্দি অনুব্রত মণ্ডলের।

কমিশনের নির্দেশ অনুযায়ী ভোট চলাকালীন নিজের বিধানসভা কেন্দ্র বোলপুর থেকে বেরোতে পারবেন না অনুব্রত ওরফে কেষ্ট। বেরোননি। সকাল থেকে বাড়িতে ছিলেন। বেলা সাড়ে দশটার পর বাড়ি থেকে বেরিয়ে ভোট দিতে যান। দলের প্রতীক লাগিয়ে ভোট দিতে বুথে ঢুকে পড়েন বলে অভিযোগ। তিনি অবশ্য অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। অনু্ব্রত বলেন, “বুথে ঢোকার আগে প্রতীক খুলে ফেলে ছিলাম।” কিন্তু সংশ্লিষ্ট বুথে থাকা প্রিসাইডিং অফিসার স্বীকার করে নিয়েছেন যে অনুব্রত পাঞ্জাবিতে দলের প্রতীক লাগিয়েই বুথে ঢোকেন।

ভোট দেওয়ার পর মিনিট দশেকের জন্য দলীয় কর্মীর বাইকে চেপে বেপাত্তা হয়ে যান। পরে অবশ্য আবার বাড়ি ঘুরে পার্টি অফিসে ফিরে আসেন। সেখানে নজরদারিতে ছিল ডিউটিরত ম্যাজিস্ট্রেট এবং কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা।

পার্টি অফিসে বসে অনুব্রত দাবি করেন, কোনও ভোটেই তিনি বোলপুর ছেড়ে অন্য কোথাও যান না।

ছবি: সৌজন্যে ২৪ ঘণ্টা

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন