খবর অনলাইন: জম্মু-কাশ্মীরের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে আরও সেনা পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিল কেন্দ্র। এক শ্লীলতাহানির ঘটনাকে কেন্দ্র করে গত চার দিন কার্যত ফুটছে কাশ্মীর। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের সচিব রাজীব মহাঋষি শনিবার গোয়েন্দা বিভাগ, সেনা এবং পুলিশ আধিকারিকদের সঙ্গে পরিস্থিতি পর্যালোচনা করার জন্য একটি বৈঠকে বসেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের পক্ষ থেকে বৈঠকের পর এক বিবৃতিতে  জানানো হয়েছে, “গত চার দিন ধরে জম্মু-কাশ্মীরে মৃত্যুর ঘটনায় যথেষ্ট উদ্বিগ্ন কেন্দ্র। তাই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে বাড়তি সেনা পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।”

এক স্কুলছাত্রীর শ্লীলতাহানির ঘটনাকে কেন্দ্র করে গত মঙ্গলবার হান্দোয়ারায় বিক্ষোভের আগুন ছড়িয়ে পড়ে। অভিযোগের আঙুল ওঠে সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে। উত্তেজিত জনতা লাগাতার বিভিন্ন সেনা ছাউনিতে ইট ছুঁড়তে থাকে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ গুলি চালালে এক মহিলা-সহ পাঁচ জনের মৃত্যু হয়। মঙ্গলবার থেকে জম্মু-কাশ্মীরের বিভিন্ন সেনা ছাউনিতে ইট বৃষ্টি অব্যাহত।

বুধবারই সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে প্রকাশিত একটি ভিডিও-বিবৃতিতে আক্রান্ত সেই কিশোরী জানিয়েছিল, কোনও জওয়ান তার শ্লীলতাহানি করেননি। বরং স্থানীয় দুই যুবক তাকে চড় মারে ও হেনস্থা করে। কিন্তু শুক্রবার মেয়েটির এক ঘনিষ্ঠ আত্মীয় জানান, ঘটনার পর তিন দিন মেয়েটিকে থানায় আটকে রেখেছে পুলিশ। এমনকি পরে তার বাবাকেও আটক করা হয় বলে অভিযোগ। পুলিশ জানায়, মেয়েটি ও তার পরিবারকে নিরাপত্তা দিতে এই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।  

শনিবার একটি মামলার পরিপ্রেক্ষিতে কাশ্মীর হাইকোর্ট পুলিশের কাছে জানতে চায়, কোন পরিস্থিতিতে ওই কিশোরীকে আটকে রাখা হয়েছিল।

 

 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here