খবর অনলাইন: ভয়াবহ দাবানলে ক্ষতিগ্রস্ত উত্তরাখণ্ডের ১৩টি জেলার ১৯০০ হেক্টর জঙ্গল এলাকা। ফেব্রুয়ারি থেকে শুকনো আবহাওয়া, তার সঙ্গে মাত্রাতিরিক্ত গরমের প্রভাবে ক্রমশ ছড়িয়ে পড়ছে এই দাবানল। সব চেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত জেলাগুলি হল পৌড়ি গাড়োয়াল, চামোলি, নৈনিতাল, বাগেশ্বর আর পিথোড়াগড়। দাবানলের প্রভাবে মৃত্যু হয়েছে ৬ জনের। দাবানলের রোষ থেকে ছাড় পায়নি রাজ্যের বিখ্যাত ওয়াইল্ড লাইফ স্যাঙ্কচুয়ারিগুলোও। ইতিমধ্যে জিম করবেট ন্যাশনাল পার্কের ১৯৮ হেক্টর জমি ক্ষতিগ্রস্ত। রাজাজি ন্যাশনাল পার্কের ৭০ হেক্টর, কেদারনাথ মাস্ক ডিয়ার স্যাঙ্কচুয়ারির ৬০ হেক্টর ক্ষতিগ্রস্ত। করবেট টাইগার রিজার্ভ আর কালাগড় টাইগার রিজার্ভের ২৬১ হেক্টর জমি দাবানলে ক্ষতিগ্রস্ত। ফেব্রুয়ারি থেকে ৪৮টি দাবানলের ঘটনা ঘটেছে এখানে। অন্য দিকে এর প্রভাবে মাঝেমাঝেই বন্ধ রাখা হচ্ছে গুরুত্বপূর্ণ সড়কগুলি। দুর্যোগ মোকাবিলায় তৎপর হয়েছে প্রশাসন। ১৩৫ জন জওয়ান সমেত জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর তিনটি কোম্পানি ইতিমধ্যেই রাজ্যে পাঠানো হয়েছে। রাজ্যকে ‘দাবানলে ক্ষতিগ্রস্ত’ হিসেবে ঘোষণা করার জন্য রাজ্যপাল কে কে পালের কাছে আবেদন জানিয়েছেন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী হরিশ রাওয়াত। তবে রাজ্যের মুখ্য বন্যপাল  বি পি গুপ্ত আশ্বাস দিয়েছেন দাবানল থেমে গেলেই আবার নতুন করে গাছ গজিয়ে উঠবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here