সিওল: গত ডিসেম্বরে প্রেসিডেন্টের পদ থেকে তাঁকে সরতে হয়েছিল আর্থিক দুর্নীতির অভিযোগেই। মার্চের দ্বিতীয় সপ্তাহে ছাড়তে হয় প্রেসিডেন্টের বাসভবনও। অবশেষে আদালতের নির্দেশে গ্রেফতার হলেন দক্ষিণ কোরিয়ার প্রাক্তন রাষ্ট্রপ্রধান পার্ক গুন হে। এর আগেও  দু’বার আর্থিক দুর্নীতির অভিযোগে গ্রেফ্রতার হয়েছেন দঃ কোরিয়ার দুই প্রাক্তন রাষ্ট্রপ্রধান। রাজনৈতিক সুবিধা পাওয়ার পরিবর্তে ঘনিষ্ঠ বন্ধু চৈ-সুন-সিলকে স্যামসাং-সহ নানা কোম্পানি থেকে অবৈধ উপায়ে টাকা আদায়ে সাহায্য করেছিলেন পার্ক, তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ এমনটাই। পার্ক নিজে অবশ্য সম্পূর্ণ অস্বীকার করেছেন এই অভিযোগ। সরকারের গোপন তথ্য ফাঁস, কর্তৃত্বের অপব্যবহার, ঘুষ নেওয়ার মতো একাধিক গুরুতর অভিযোগের তদন্ত করার সময় পার্কের বিরুদ্ধে জারি করা হয়েছিল গ্রেফতারি পরোয়ানা। বৃহস্পতিবার ৯ ঘণ্টার শুনানির পর গ্রেফতারের সিদ্ধান্ত  জানায় আদালত। আদালতের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, “অভিযোগের স্বপক্ষে যাবতীয় তথ্যপ্রমাণ লোপাট হওয়া আটকাতে প্রাক্তন প্রেসিডেন্টকে গ্রেফতার করা জরুরি। দোষী সাব্যস্ত হলে ১০ বছর পর্যন্ত জেল হতে পারে পার্কের। 

আরও পড়ুন; আর্থিক দুর্নীতি: প্রেসিডেন্ট পার্ক গুন হে-কে সরিয়ে দিল দক্ষিণ কোরিয়ার আদালত 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here