খবর অনলাইন : “বিয়ে হলে বউকে ‘ভারত মাতা কি জয়’ নামে ডাকব। ছেলেপুলেরও নাম ‘ভারত মাতা কি জয়’ রাখব” — এই মন্তব্য করে ফের বিতর্কের ঝড় তুললেন জেএনইউ-এর ছাত্রনেতা কানহাইয়া কুমার। দেশদ্রোহিতার মামলায় শর্তাধীন জামিনে মুক্ত কানহাইয়া শনিবার ‘মুক্তধারা’ আয়োজিত ‘প্রতিরোধ’ শীর্ষক এক অনুষ্ঠানে বলেন, “ওরা বলে, দেশই সব, তাই আপনাদের ‘ভারত মাতা কি জয়’ বলতে হবে। বিয়ে হলে তাই বউকে ‘ভারত মাতা কি জয়’ নামে ডাকব। ছেলেপুলেরও নাম রাখব ‘ভারত মাতা কি জয়’। নিজের নামটাও পালটে ‘ভারত মাতা কি জয়’ করে দেব। যখন আমার ছেলেপুলেরা স্কুলে যাবে এবং শিক্ষকরা যখন তাদের বাবা-মায়ের নাম জানতে চাইবে তারা বলবে ‘ভারত মাতা কি জয়’। এ ভাবে তারা স্কুলে বিনা খরচে শিক্ষা পাবে, তাদের কোনও ফি দিতে হবে না।”

‘ইন্ডিয়া টুডে’ পত্রিকাকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে কানহাইয়া বলেন, তিনি ‘ভারত মাতা কি জয়’ ধ্বনির সমালোচনা করছেন না। যাঁরা এই ধ্বনি দিতে অন্যকে জোর করছেন তাঁদের সমালোচনা করছেন। এক জন মায়ের সন্তানকে যখন আর খিদের জ্বালায় ঘুমিয়ে পড়তে হবে না, তখনই হবে ‘ভারত মাতা কি জয়’। কানহাইয়া বলেন, আরএসএস আগে দেশের উন্নতির জন্য, দেশের আরও ভালোর জন্য কাজ করুক, তার পরে লোককে বলুক ‘ভারত মাতা কি জয়’ স্লোগান তুলতে।


মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here