সরকারি চাকরি: বিষয় যখন ইংরাজি

0

অভিজিৎ ব্যানার্জি

চাকরির পরীক্ষায় প্রশ্ন তৈরি হয় কেবল কী কী পারো তা জানার জন্য নয়, কী কী পারো না এবং কোন কোন বিষয়ের প্রশ্নের উত্তর দিতে তুমি অসুবিধায় পড়তে পারো, সেগুলিও দেখা হয়। আমরা সেই উত্তরটি করি, যেটা আমরা মনে করি ঠিক। কিন্তু সেটা তো ঠিক নাও হতে পারে। কারণ ওই পরীক্ষার উত্তর যে সংস্থা পরীক্ষা নিচ্ছে, তারা নির্দিষ্ট করে। সেই অনুযায়ী না হলে, ঠিক উত্তর হয় না। তবে তার কিন্তু সর্বজনীনতা আছে। এমন নয় যে তারা ইচ্ছামতো উত্তর ঠিক করে রেখেছে।

আগেই বলেছি, তুমি যে বিষয়টা নিয়ে স্নাতক, স্নাতকোত্তর ডিগ্রি বা এম ফিল, পিএইচডি করেছ, তার মানে সেই বিষয়টা তুমি সব জান, তা কিন্তু নয়। এ ব্যাপারে নিজেকে নিজের বিচার ছাড়া কোনও পদ্ধতি নেই। আমি অনেক ইংরাজি স্নাতকোত্তর ডিগ্রিধারী পরীক্ষার্থীকে দেখেছি, তারা ইংরাজি পরীক্ষায় অনেক কিছু ভুল করে আসে। সে preposition হোক বা idioms বা sentence construction বা অন্য কিছু। তুমি ইংরাজি নিয়ে পড়েছ, তুমি ঠিক ইংরাজি লিখতেই পারো। কারণ সেটা তো তুমি নিজের মন থেকে নিজের মতো লিখছ। কিন্তু চাকরির প্রশ্নপত্রে তোমাকে যাচাই করা হচ্ছে, তুমি কতটা জান।

এত কথা বললাম, এ বার উদাহরণ না দিলে হবে না। ধরো, একটা শব্দের সমার্থক শব্দ লিখতে দিল। অধিকাংশ ক্ষেত্রে দেখবে এমন কিছু শব্দ দেয়, তোমার জীবনে যেন প্রথম বার সেই শব্দের সঙ্গে পরিচয় হচ্ছে। অথবা appropriate preposition থেকে এমন একটা প্রশ্ন দিয়েছে, তা তোমার মাধ্যমিক/উচ্চ মাধ্যমিক/চাকরির পরীক্ষার জন্য  বাজার থেকে যে বই কিনেছ, তার কোথাও নেই। অথবা তোমার একটি শব্দের অর্থ খোঁজার জন্য Oxford/Cambridge Dictionary-র সাহায্য নিতে হচ্ছে। কিছু idioms-ও দেয় যা একদম যেন নতুন ভাবে তোমার কাছে এল।

ইংরাজির শব্দার্থ শুধু শব্দ দিয়ে আসতে পারে বা বাক্যের মধ্যে underline/italics করে আসতে পারে। বাক্যের মধ্যে দিলে অনেক সময় একটু বোঝা যায় কিন্তু শুধু শব্দ থাকলে খুব অসুবিধায় পড়তে হয়। Phrasal verb-ও খুব জটিল কিছু দেয় । সেগুলিও সাধারণ বইগুলিতে পাওয়া যায় না। Number, Gender আমরা মনে করি খুব সহজ, কিন্তু এগুলোর মধ্যে যেগুলি জটিল, সেগুলোই দিয়ে দেয়। যেমন একটি পরীক্ষায় Terminus-এর plural জানতে চেয়েছে। সব চেয়ে বড় কথা option গুলো এমন ভাবে থাকে, তোমার কিছু time kill করার চেষ্টা করবেই-

  1. Terminu ii) Termini iii) Terminuous iv)

কিছু শব্দের অর্থও খুব কাছাকাছি থাকে। সে ক্ষেত্রেও পরীক্ষার্থীকে সমস্যায় পড়তে হয়। মনে রাখতে হবে, যেগুলি সমস্যাজনক, সেগুলিই চাকরির পরীক্ষার দেয়। অতএব তোমাকে একদম article থেকে শুরু করে সব পড়তে হবে। voice, narration-ও করতে হবে। যেগুলি জটিল, সেগুলি বেশি করে দেখতে হবে।

Preliminary পরীক্ষায় option দেওয়া হয়। options-এর শেষটি থাকে none। আমাদের জানার পরিধি সীমিত হলে আমরা ওটাতেই দিয়ে ভাবি, বাকি চারটে ভুল আছে।

সব বিষয়ই আরও ভালো করার একটাই উপায়, বেশি করে পড়া এবং guide মেনে পড়া। তোমাকে আরও ‘বেশি’ জানতে হবে, কিন্তু সে ‘বেশি’ যে কতটা তা তুমি বা আমি কেউই জানি না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.