খবর অনলাইন : পরমাণু বোমায় ধ্বংস হয়ে যাওয়া হিরোশিমায় এই প্রথম পা রাখলেন কোনও মার্কিন বিদেশসচিব। জি-৭-এর দু’ দিনব্যাপী বৈঠকে যোগ দিতে রবিবার ভোরে হিরোশিমা এলেন জন কেরি। আফগানিস্তান থেকে এসে হিরোশিমার পশ্চিমে এক মার্কিন সেনাঘাঁটিতে তিনি অবতরণ করেন। আগামী মাসেই জি-৭ শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দিতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা জাপান সফরে আসবেন। তখন জাপানের এই সমৃদ্ধশালী মেট্রোপলিটান শহরে তাঁর আসার কথা রয়েছে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসাবে এই প্রথম কেউ হিরোশিমায় আসবেন। জন কেরির হিরোশিমা সফরকে তারই মহড়া হিসাবে দেখা হচ্ছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও জাপান ছাড়াও ব্রিটেন, ফ্রান্স, জার্মানি, ইতালি ও কানাডার কূটনীতিকরা হিরোশিমার বৈঠকে যোগ দিচ্ছেন। সন্ত্রাসবাদ, পশ্চিম এশিয়ার সমস্যা, অভিবাসন সঙ্কট, ইউক্রেনের বিরোধ ইত্যাদি গুরুত্বপূর্ণ আন্তর্জাতিক বিষয় নিয়ে কূটনীতিকদের মধ্যে আলোচনা হবে। তবে এই বৈঠক ঘিরে সমস্ত আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দু কিন্তু বৈঠকস্থল। জাপানের মানুষজন আশা করেন, পরমাণু অস্ত্র বিরোধিতায় তাঁদের যে কট্টর অবস্থান তা সঠিক ভাবে বোঝার চেষ্টা করবেন জি-৭-এর কূটনীতিকরা। জাপানের বিদেশমন্ত্রী ফুমিও কিশিদা আশা করেন, পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ ঠিকঠাক কার্যকর করতে বৈঠকে ‘হিরোশিমা ঘোষণাপত্র’ প্রকাশ করা হবে। জাপান পার্লামেন্টে হিরোশিমা থেকেই নির্বাচিত হয়েছেন কিশিদা। জন কেরি ও বাকি দেশগুলির বিদেশমন্ত্রীদের হিরোশিমা পিস মেমোরিয়াল পার্কে যাওয়ার কথা।


মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here