খবর অনলাইন : যাঁরা চান ভারত কোহিনুর ফিরিয়ে আনুক, তাঁদের আবেগে অনেকটাই জল ঢেলে দিল নরেন্দ্র মোদী সরকার। সুপ্রিম কোর্টে সলিসিটর জেনারেল বলেছেন, কেন্দ্রের সংস্কৃতি মন্ত্রক মনে করে কোহিনুর ফেরত পাওয়ার চেষ্টা করা উচিত নয়। কারণ ওই হিরে চুরি করে ব্রিটেনে নিয়ে যাওয়া হয়নি, বা কেউ জোর করেও নিয়ে যায়নি। ব্রিটিশদের এটি উপহার দেওয়া হয়েছিল। রঞ্জিত সিংহের উত্তরাধিকারী দলীপ সিংহ এটি ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির হাতে তুলে দেন।

কোহিনুর ফেরাতে তৎপর নয় মোদী সরকার। এ নিয়ে একটি জনস্বার্থের মামলা দায়ের করা হয় সুপ্রিম কোর্টে। ওই মামলার শুনানি চলার সময় প্রধান বিচারপতি টি এস ঠাকুরকে নিয়ে গঠিত এক সদস্যের ডিভিশন বেঞ্চ কেন্দ্রের অবস্থান জানতে চান। সলিসিটর জেনারেল রঞ্জিত কুমারের বক্তব্য শুনে কিছুটা বিস্মিত হন বিচারপতি। শীর্ষ আদালত যে জনস্বার্থের এই মামলাটি এখনই খারিজ করে দিতে আগ্রহী নয় তা বুঝিয়ে দিয়ে প্রধান বিচারপতি ঠাকুরের মন্তব্য, “যা বলছেন, তার অর্থ বুঝতে পারছেন তো! ভবিষ্যতে আইনি পথে কোহিনুরের দাবি জানাতে অসুবিধা হবে। ওরাই বলবে, আপনাদের দেশের আদালতই কোহিনুর ফেরানোর আর্জি খারিজ করে দিয়েছে।” অনেক দেশ যে কোহিনুরের দাবিদার, সে খবর সরকার রাখে কি না জানতে চাওয়া হলে সলিসিটর জেনারেল স্বীকার করেন, তিনি এ সব জানেন না। সরকারের সঙ্গে কথা বলে অবস্থান জানাবেন।

সুতরাং কোহিনুরের দাবি ছেড়ে দেওয়ার প্রশ্নে মোদী সরকার ইতিমধ্যেই যে চূড়ান্ত কোনও অবস্থান নিয়ে ফেলেছে, তা নয়। তবে এটা স্পষ্ট, সরকার এ ব্যাপারে আগ্রহী নয়। তবে চূড়ান্ত অবস্থান জানানোর দায়িত্ব বিদেশ মন্ত্রকের। এ জন্য আদালত কেন্দ্রকে ছ’ সপ্তাহ সময় দিয়েছে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here