বাল্যবিবাহে তাঁবু দেব না, রাজস্থানে সামাজিক আন্দোলনে ব্যবসায়ীরা

0

খবর অনলাইন : এই একবিংশ শতাব্দীতেও বাল্যবিবাহ একটা জ্বলন্ত সমস্যা রাজস্থানে। এই মধ্যযুগীয় সামাজিক অসুখ দূর করতে কার্যত ব্যর্থ প্রশাসন। এখন এগিয়ে এসেছেন আম আদমিরই একাংশ। বাল্যবিবাহ রুখতে এক অভিনব আন্দোলনে নেমেছেন রাজস্থানের তাঁবু ব্যবসায়ীরা। তাঁরা জানিয়ে দিয়েছেন, কোনও বাল্যবিবাহে তাঁরা আর তাঁবু সরবরাহ করবেন না।

তাঁবু বা শামিয়ানা খাটিয়ে, প্যান্ডেল বেঁধে ধুমধাম করে বিয়ে দেওয়াটাই সামাজিক রীতি রাজস্থানে। ‘রাজস্থান টেন্ট ডিলার্স কিরায়া ব্যবসায়ী সমিতি’র পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, বর-কনের বার্থ সার্টিফিকেট না দেখে তারা আর বিয়ের অনুষ্ঠানে তাঁবু বা ওই ধরনের কোনও সামগ্রী সরবরাহ করবে না। সমিতি আরও জানিয়েছে, কেউ যদি ভুয়ো সার্টিফিকেট দেখিয়ে তাদের বাল্যবিবাহে অংশীদার করার চেষ্টা করেন, তা হলে সমিতি কাছাকাছি থানায় খবর দিয়ে দেবে। উল্লেখ্য, রাজস্থানে ৪৭ হাজার তাঁবু ব্যবসায়ী রয়েছেন।

এপ্রিল মাসের শেষ ও মে মাসের প্রথম সপ্তাহে রাজস্থানে বিয়ের ধুম লেগে যায়। এর মধ্যে বেশির ভাগই বাল্যবিবাহ। বিশেষ করে, চিতৌরগড়, দুঙ্গারপুর, বানসওয়ারা, ঝুনঝুনু, শিকার, চুরু প্রভৃতি জেলায় বাল্যবিবাহের হার সব চেয়ে বেশি।

বছরে বাল্যবিবাহের সংখ্যার নিরিখে ভারত এই মুহূর্তে পৃথিবীতে ষষ্ঠ। ২০১১ সালের আদমসুমারি অনুযায়ী এ দেশে ১০ থেকে ১৯ বছর বয়সি ১ কোটি ৯০ লক্ষ নাবালক বিবাহিত, যার ৭৬% মেয়ে। বিহার, উত্তরপ্রদেশ, রাজস্থানের মতো রাজ্যে আইনি বয়স ১৮-এর অনেক আগেই মেয়েদের বিয়ে দেওয়াটাই দস্তুর।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন