খবর অনলাইন : একটি অস্ত্র বোম্বে হাইকোর্টের রায়, আরেকটি অস্ত্র শনি শিংনাপুর মন্দিরের দৃষ্টান্ত। এই দুই অস্ত্রে বলীয়ান হয়ে মহারাষ্ট্রের ভূমাতা ব্রিগেড তাদের লড়াই চালিয়ে যাবে। রাজ্যের অন্য মন্দিরগুলিতেও মহিলাদের প্রবেশ তারা সুনিশ্চিত করতে চায়। এই উদ্দেশ্যেই তাদের পরবর্তী লক্ষ্য কোলহাপুরের মহালক্ষ্মী মন্দির।
শুক্রবার শনি শিংনাপুর মন্দির ট্রাস্ট বোম্বে হাইকোর্টের রায় মেনে মন্দিরের গর্ভগৃহ তথা ‘চৌতারা’ মহিলাদের জন্য খুলে দিয়েছে। ভেঙে গেছে ৪০০ বছরের পুরনো সংস্কার। ভূমাতা ব্রিগেডের নেত্রী তৃপ্তি দেশাই জানিয়েছেন, দীর্ঘদিনের আন্দোলনের ফলে মহিলারা তাঁদের ক্ষমতা অর্জন করতে শুরু করেছে। শনি শিংনাপুর মন্দিরে জয় পেয়ে তাঁদের লড়াই থেমে যাবে না। মহারাষ্ট্রের যে সব মন্দিরে লিঙ্গবৈষম্য আছে, সেখানেই তাঁরা ছুটে যাবেন এবং মহিলাদের জন্য মন্দিরের দ্বার খুলে দেওয়ার দাবিতে আন্দোলন করবেন। এই আন্দোলনের সূত্রেই তাঁরা ১৩ এপ্রিল কোলহাপুর যাবেন এবং মহালক্ষ্মী মন্দিরে প্রবেশের চেষ্টা করবেন।
মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়ণবীশ বলেছেন, মন্দিরে প্রবেশে অধিকারের দাবিতে মহিলাদের আন্দোলন করতে হয়, ব্যাপারটা খুবই লজ্জার। প্রথম দিন থেকেই রাজ্য সরকার বলে আসছে, তারা এই বৈষম্যের বিরোধী। আজ তাই শনি শিংনাপুর মন্দির মহিলাদের জন্য দরজা খুলে দিয়েছে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here