গর্ভপাতের জন্য মহিলাদের শাস্তি চান ট্রাম্প

0

খবর অনলাইন : মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র যদি গর্ভপাত নিষিদ্ধ করে, তা হলে যে সব প্রসূতি গর্ভপাত করবেন তাঁরা শাস্তির জন্য তৈরি থাকবেন। এই মন্তব্য করে দেশ জুড়ে সমালোচনার ঝড় তুলেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান ফ্রন্টরানার ভিক্টর ট্রাম্প। এমএসএনবিসি ট্রাম্পের সাক্ষাৎকার প্রচার করার পরেই অবশ্য মার্কিন কোটিপতি ব্যবসায়ী তাঁর আগের বক্তব্য থেকে একটু পিছিয়ে যান। প্রথমে বলেন, গর্ভপাতের বিষয়টি রাজ্যগুলিরই দেখা উচিত। তার পরে সর্বশেষ বিবৃতিতে ট্রাম্প বলেন, যে ডাক্তার বা অন্য কোনও ব্যক্তি এই অবৈধ কাজ করবেন তাঁকেই আইনত দোষী করা হবে, মহিলাকে নয়। গর্ভপাতের জন্য মহিলাদের দায়ী করে ট্রাম্প প্রথমে যে মন্তব্যটি করেন তাতে গর্ভপাত-সমর্থক ও গর্ভপাত-বিরোধী দু’টি মহলেরই আক্রমণের মুখে পড়েন। প্রেসিডেন্ট নির্বাচন পদপ্রার্থী ট্রাম্পের নামে নিন্দার ঝড় বয়ে যায়। মার্কিন রাজনীতিতে গর্ভপাত বরাবরই একটি নির্ণায়ক ইস্যু, যদিও সুপ্রিম কোর্ট ৪০ বছর আগেই গর্ভপাত আইনত বৈধ বলে রায় দিয়েছে। রক্ষণশীল রাজনীতিবিদরা সব সময় গর্ভপাত বিরোধিতাকে নির্বাচনী প্রচারের হাতিয়ার করেন। কিন্তু এ বার ট্রাম্প প্রসূতিদের শাস্তি দেওয়ার কথা বলে রিপাবলিকান শিবিরেই বিরোধিতার মুখে পড়েছেন। ট্রাম্পের প্রতিদ্বন্দ্বী রিপাবলিকান প্রার্থী জন কাসিশ বলেন, ধর্ষণের মতো কিছু সুনির্দিষ্ট ঘটনা ছাড়া তিনি গর্ভপাতের বিরোধী। কিন্তু এর জন্য মহিলাদের কখনওই শাস্তি দেওয়া যায় না। আর ডেমোক্র্যাটিক ফ্রন্টরানার হিলারি ক্লিনটন তো রেগেই আগুন। তাঁর মন্তব্য, “ট্রাম্প যা বলেছেন তা কুৎসিত ও বিপজ্জনক। তিনি আগাগোড়া এমন সব কথা বলে যাচ্ছেন আমি অবাক হয়ে যাচ্ছি। আর এক বার দেখিয়ে দিলেন তিনি কী।”

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন