কলকাতা: বড়োসড়ো ফাঁড়ার হাত থেকে রক্ষা পেলেন রাজু গায়কোয়াড়। এজেসি রোড ফ্লাইওভার থেকে মা ফ্লাইওভার ধরার পথে দুর্ঘটনার কবলে পড়ে রাজুর গাড়ি। গাড়িতে তাঁর সঙ্গেই ছিলেন মোহনবাগানের আরও দুই ফুটবলার কিন লুইস ও সঞ্জয় বালমুচু। কোনো ফুটবলারই চোট-আঘাত পাননি। রাজুর গাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হলেও গতি কম থাকায় কোনো অঘটন ঘটেনি। রাজু বলছিলেন, “সৌভাগ্যক্রমে গাড়ির গতি কম ছিল। তাই কারোর কিছু হয়নি। পুলিশের এক কনভয়ের পিছনে আস্তেই যাচ্ছিলাম, হঠাৎ কনভয়ের একটি গাড়ি থেমে যায়। পিছনে থাকা গাড়িগুলো পরপর ধাক্কা মারে সামনের গাড়িতে। কনভয়ের একেবারে শেষে আমার গাড়ি ছিল। সামনের গাড়ি কাটিয়ে কিছুটা বাঁকিয়ে দিতে পেরেছিলাম বলে পিছনের গাড়ির একেবারে পিছনে লাগেনি।” উল্লেখ্য, সবুজ-মেরুন দলের দুই সদস্য রাজু ও কিন শনিবার সকালে দলের সঙ্গে বিমানে কটকে ফেডারেশন কাপ খেলতে রওনা দেবেন।

রাজুর দুর্ঘটনাগ্রস্ত গাড়ি।

আর পাঁচটা দিনের মতোই অনুশীলন সেরে সল্টলেকের বাড়ির পথ ধরেছিলেন রাজু। প্রতি দিনের মতো এ দিনও গাড়ির স্টিয়ারিং ছিল তাঁরই হাতে। মা ফ্লাইওভারে ওঠার মুখে পুলিশের এক কনভয়ের একটি গাড়ি হঠাৎই থমকে যায়। ফলে দুর্ঘটনা। সামনের বড়ো স্করপিও গাড়িতে রাজুর গাড়ির বাঁ দিকটা সজোরে লেগে দুমড়ে মুচড়ে যায়। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশই রাজুদের উদ্ধার করে বাড়ি পৌঁছে দেয়। মাঝে পুলিশ স্টেশনে গিয়ে নিয়মাফিক ডায়েরি করেন রাজু, তখনই এসে পড়েন বাগানের আধাকর্তারাও।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here