বেজিং : একেবারে ঠিক যেন টাইটানিক। সেই রকমই আকার, চেহারায়ও হুবহু এক। লম্বায় ২৬৯ মিটার। ভেতরের নকশাও প্রায় একই রকম। থাকবে বলরুম, থিয়েটার, সুইমিং পুল এবং প্রথম শ্রেণির কেবিন। এর পাশাপাশি থাকবে ওয়াইফাই। এই জাহাজ তৈরির কাজ চলছে চিনে। স্থায়ীভাবে এটিকে নোঙর করে রাখা হবে সিচুয়ান প্রদেশের একটি জলাশয়ে। টাইটানিক-এর কাহিনি চিনে বহু মানুষের কাছে রোমাঞ্চকর এক কাহিনীর মতো। ১৯৯৭ সালে কেট উইন্সলেট এবং লিওনার্ডো ডিক্যাপ্রিও অভিনীত ছবিটি মুক্তি পাওয়ার পর চিনে এই জাহাজটির ব্যাপারে তীব্র আগ্রহের সৃষ্টি হয়। সেই আগ্রহ মেটাতে এই উদ্যোগ। 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here