ইসলামাবাদ : পাকিস্তানের একটি সুফি উপাসানালয়ে ছুরি, লাঠির ঘায়ে নিহত হলেন ২০ জন পুণ্যার্থী। এঁদের মধ্যে ৪ জন মহিলা। ঘটনায় আহত ৪ জন। পুলিশ সূত্রের খবর, এই হত্যালীলা হয় রবিবার সকালে পাক অধিকৃত পঞ্জাবের মহম্মদ আলি উপাসনালয়ে। ঘটনায় জড়িত সন্দেহে উপাসনালয়ের তত্ত্বাবধায়ক-সহ ৫ জনকে গ্রেফতার করা হয়। পুলিশ প্রধান জুলফিকর হামিদ জানান, উপাসনালয়ের তত্ত্বাবধায়ক আবদুল ওয়াহেদ তাঁর দোষ স্বীকার করেছেন। আবদুল ওয়াহেদ জানান, তাঁকে হত্যা করতে এসেছে এই সন্দেহে তিনি এত জনকে হত্যা করেন। তদন্ত চলাকালীন পুলিশ প্রধান জানান, সন্দেহভাজনরা ভীতু বা মনোরোগী হতে পারেন। অথবা কোনো রকম শত্রুতার কারণেও এই ঘটনা ঘটে থাকতে পারে। সরকারি আধিকারিক লিয়াকত আলি চট্টা জানান, আবদুল ওয়াহেদ সরকারের কর্মচারী, মানসিক ভাবে অসুস্থ। তিনি বলেন, উপাসনালয় পরিষ্কার রাখার জন্য এখানে পুণ্যার্থীদের ওপর নানা রকম অত্যাচার করা হয়, মারধরও করা হয় বলে অভিযোগ আছে। সরকারি সূত্রের খবর, পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী সহবাজ শরিফ ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তদন্তের রিপোর্ট জমা দিতে নির্দেশ দিয়েছেন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here