তেহরান: দ্বিতীয় বারের জন্য কি প্রেসিডেন্ট হতে পারবেন হাসান রাউহানি? শুক্রবার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোট দিল ইরান। ভোট শুরু হয় স্থানীয় সময় সকাল ৮টায়। শেষ হওয়ার কথা ছিল সন্ধে ৬টায়। কিন্তু ভোটদাতাদের ব্যাপক উৎসাহ দেখে সময়সীমা রাত ১০টা পর্যন্ত বাড়ানো হয়। তেহরান শহরে ভোট নেওয়া হয় রাত ১১টা পর্যন্ত। ৬৮ বছরের যাজক মধ্যপন্থী রাউহানিকে কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলে দিয়েছেন তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী ৫৬ বছরের কট্টরপন্থী যাজক ইব্রাহিম রইসি। ২০১৫ সালে বিশ্বের পরমাণু শক্তিধর দেশগুলির সঙ্গে পরমাণু চুক্তি সই করার পর রাউহানি এই প্রথম নির্বাচনের মুখে পড়লেন। ইরানের ওপর জারি থাকা অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের পথ প্রশস্ত করতেই রাউহানি পরমাণু চুক্তি সই করেন। ইরানের শহরাঞ্চলের মানুষ তাঁর উদার নীতির সমর্থক হলেও, গ্রামের মানুষের মধ্যে বেশ প্রভাব ফেলেছেন ইব্রাহিম রইসি। ইরানের গার্ডিয়ান কাউন্সিল ৬ জন প্রার্থীকে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে লড়ার অনুমতি দিয়েছিল। শেষ পর্যন্ত চার জন নির্বাচনে থেকে গিয়েছেন। তেহরানের মেয়র প্রার্থীপদ প্রত্যাহার করে নিয়েছেন ইব্রাহিম রইসির সমর্থনে এবং ভাইস প্রেসিডেন্ট ইশাক জাহাঙ্গিরি প্রার্থীপদ তুলে নিয়েছেন রাউহানির সমর্থনে। শনিবারই ফল প্রকাশ হওয়ার সম্ভাবনা। তবে ইরানের সংবিধান অনুযায়ী কেউ এই ভোটে ৫০ শতাংশ না পেলে আগামী সপ্তাহে ‘রান অফ’ (প্রথম দু’ জন স্থানাধিকারীর মধ্যে ফের নির্বাচন) হবে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here