খবর অনলাইন: নববর্ষের দিনই ভেঙে পড়ল ৪০০ বছরের পুরনো সংস্কার। আদালতের রায়ের কাছে নতি স্বীকার করে শনি শিঙ্গনাপুর মন্দির কর্তৃপক্ষ গর্ভগৃহে মহিলাদের প্রবেশ করতে দিলেন। সংবাদ সংস্থা এএনআই-এর দেওয়া খবর অনুযায়ী শুক্রবার মহিলাদের প্রথম দলটি মন্দিরের গর্ভগৃহে প্রবেশ করে দেবতাকে পুজো দেন।

উল্লেখযোগ্য ভাবে গোটা মহারাষ্ট্র জুড়ে যখন নববর্ষের উৎসব পালিত হচ্ছে সেই দিনে এমন একটি সিদ্ধান্তে খুশির রেশ ছড়িয়েছে আন্দোলনকারীদের মুখে। এই আন্দোলনের নেত্রী তৃপ্তি দেশাই মন্দিরে পুজো দেন।

একটি জনস্বার্থ মামলার পরিপ্রেক্ষিতে মুম্বই হাইকোর্ট জানিয়েছিল, কোনও অবস্থাতেই মন্দিরে মহিলাদের প্রবেশ আটকানো যায় না। যেখানে পুরুষদের প্রবেশের অধিকার আছে, সেখানে মহিলারাও ঢুকবেন। হাইকোর্টের এই নির্দেশের পর ভূমাতা ব্রিগেডের এক দল কর্মী পরের দিনই শনি শিঙ্গনাপুরের মন্দিরে যান এবং যেখানে বিগ্রহের অধিষ্ঠান সেই ‘চৌতারা’য় ওঠার চেষ্টা করেন। কিন্তু স্থানীয় প্রতিরোধ বাহিনীর সদস্যরা এবং মন্দিরের প্রশাসনিক কর্মীরা তাঁদের হটিয়ে দেন। তাঁরা ‘চৌতারা’টি ঘিরে রাখেন। পরে পুলিশ এসে ভূমাতা ব্রিগেডের কর্মীদের ১০০ মিটার দূরে নিয়ে চলে যায়। সেখানেই তাঁরা শুয়ে অবস্থান বিক্ষোভ শুরু করেন। এর আগেও তাঁরা মন্দিরে ঢোকার চেষ্টা করেছিলেন।

শুক্রবার সকালেই মন্দির ট্রাস্টের তরফে ঘোষণা করা হয়, মহিলাদের ‘চৌতারা’য় উঠতে দেওয়া হবে। ট্রাস্টের ম্যানেজার সঞ্জয় বাঙ্কার বলেন, “আমরা হাইকোর্টের নির্দেশ পালন করছি, গর্ভগৃহে মহিলাদের ঢুকতে দিচ্ছি।”

ছবি: Shanidev.com -এর সৌজন্যে



মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here