প্রথম পাতা প্রচ্ছদ

‘ভবিষ্যতের ভূত’ কেন বন্ধ? মেট্রো চ্যানেলে প্রতিবাদ-বিক্ষোভ

0
protest rally at metro channel
মেট্রো চ্যানেলে প্রতিবাদ বিক্ষোভ। নিজস্ব চিত্র।

নিজস্ব প্রতিনিধি: ‘ভবিষ্যতের ভূত’ প্রদর্শন পশ্চিমবঙ্গের সমস্ত সিনেমা হলে হঠাৎ বন্ধ করে দেওয়ার প্রতিবাদে রবিবার অবস্থান বিক্ষোভের ডাক দিয়েছিলেন চলচ্চিত্র ও নাট্যজগতের কর্মীরা। ওই সিনেমার কলাকুশলীরা ছাড়াও ধর্মতলার মেট্রো চ্যানেলে ওই অবস্থান বিক্ষোভে শামিল হন সমাজের বিভিন্ন স্তরের মানুষ।

সেখানে উপস্থিত অনীক দত্ত বলেন, “কেন ছবিটা বিভিন্ন হল থেকে তুলে নেওয়া হল, হলগুলিতে এই ছবি আবার দেখানো হবে কিনা, তা আমরা জানতে চাই। প্রযোজকরা বিভিন্ন জায়গায় বিষয়টা জানিয়েছেন। সৌমিত্রদা খুব স্ট্রং একটা চিঠি লিখেছেন। মুম্বই থেকে লাল (সুমন মুখোপাধ্যায়) মেল করেছে। বহু শিল্পী, দর্শক পাশে আছেন। এখানে আমরা ছবির সঙ্গে যাঁরা আছি, তাঁরা ছাড়াও আজ অনেকে এসেছেন। সকলেরই এক প্রশ্ন।”

আরও পড়ুন আচমকা প্রদৰ্শন বন্ধ, সরিয়ে নেওয়া হল সদ্য মুক্তিপ্রাপ্ত ‘ভবিষ্যতের ভূত’

এ দিনের প্রতিবাদ-বিক্ষোভে শামিল হন তরুণ মজুমদার, কৌশিক সেন, সুমন্ত মুখোপাধ্যায়, সংগীত পরিচালক দেবজ্যোতি মিশ্র, পশ্চিমবঙ্গের প্রাক্তন মুখ্যসচিব অর্ধেন্দু সেন, অম্বিকেশ মহাপাত্র প্রমুখ।

২৪ ঘণ্টা হয়ে গেল, রাজ্যের সব সিনেমা হল থেকে ‘ভবিষ্যতের ভূত’ সরিয়ে ফেলা হয়েছে। কিন্তু কেন বা কার নির্দেশে এই ছবির প্রদর্শন বন্ধ করে দেওয়া হল, এই ছবি ফের হলে ফিরবে কিনা – এ সব প্রশ্নের উত্তর পাচ্ছেন না খোদ পরিচালক। কোনো কোনো হল কর্তৃপক্ষ বলছেন ‘টেকনিক্যাল ফল্ট’। কেউ কেউ বলছেন ‘হায়ার অথরিটির নির্দেশ’।

রবিবারও অনীক-সহ ‘ভবিষ্যতের ভূত’-এর বেশ কয়েক জন অভিনেতা সাউথ সিটিতে গিয়ে জানতে চান, কেন ছবি তুলে নেওয়া হল? কর্তৃপক্ষের জবাব, ‘হায়ার অথরিটির নির্দেশ’। কিন্তু এই ‘হায়ার অথরিটি’ কে জানতে চাওয়া হলে সেই প্রশ্ন এড়িয়ে যাওয়া হয়। এমনকি ওই নির্দেশের কোনো লিখিত প্রমাণও দেখাতে পারেনি কর্তৃপক্ষ।

সেন্সর বোর্ডের ছাড়পত্র পাওয়া কোনো সিনেমার প্রদর্শন কারও লিখিত নির্দেশ ছাড়াই কি বন্ধ করে দেওয়া যেতে পারে? এই আইনি প্রশ্নও এ বার উঠছে বিভিন্ন মহলে।

মানুষ আবার চাঁদে যাবে, তবে শুধু হাঁটতে নয়, থাকতেও

0
moon
চাঁদ

ওয়েবডেস্ক: আবার চাঁদে মানুষ পাঠাবে নাসা। তবে এ বারে আর পতাকা উড়িয়ে বা হেঁটেই চলে আসবেন না তাঁরা। রীতিমতো চাঁদের মাটিতে থাকবেন তাঁরা। এই পরিকল্পনা ২০২৮ সালের মধ্যে কার্যকর করার লক্ষ্য নিয়েছে নাসা।

ওয়াশিংটনে নাসার সদর দফতরে একটি সাংবাদিক বৈঠকে সংস্থার অন্যতম প্রধান জিম ব্রিডেনস্টাইন এ কথা বলেন। বলেন, যতটা তাড়াতাড়ি সম্ভব এই কাজ শুরু করে দিতে হবে। এই বারের শুরুটা অন্য রকম।

এ বার চাঁদে মানুষ পাঠানোর পরিকল্পনাটি আদতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের। এই প্রকল্প বাস্তবায়িত করার লক্ষ্যে বেসরকারি কোম্পানিগুলিকে কাজে লাগানো হবে।

আরও পড়ুন – প্রথম মহিলা ‘ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট ফ্লাইট ইঞ্জিনিয়ার’ হলেন হিনা জয়সওয়াল

অবশ্য চাঁদে নতুন করে মানুষ পাঠানোর আগে ২০২৪ সালের মধ্যে মানুষবিহীন মহাকাশযান পাঠাতে চায় নাসা। তারও আগে ২০১৯ সালের শেষেই বা ২০২০ সালের মধ্যে সেখানে যন্ত্রপাতি আর সরঞ্জাম পাঠাতে চায় নাসা।

প্রসঙ্গত, চাঁদে শেষ হেঁটে ছিলেন ইউজিন সেরনান ১৯৭২ সালে, অ্যাপোলো ১৭ অভিযানের সময়।

নাসা চাঁদে একটি ছোটো স্পেস স্টেশন গড়ে তোলার পরিকল্পনা করছে। এটি করতে চাইছে ২০২৬ সাল নাগাদ। স্পেস স্টেশন ‘গেটওয়ে’ গড়ে তোলা হবে চাঁদের কক্ষপথে। চাঁদের পৃষ্ঠে যাতায়াতের ক্ষেত্রে এটি ‘ওয়ে-স্টেশন’ হিসাবে কাজ করবে। চাঁদে ফের মানুষ পাঠানোর অভিযানে আইএসএস-এর (ইন্টারন্যাশনাল স্পেস স্টেশন) পাশাপাশি অন্যান্য দেশেরও সহযোগিতা চায় নাসা।

আরও পড়ুন – আগামী ২৪ ঘণ্টায় ঝড়বৃষ্টি রাজ্যে, পাহাড়ে তুষারপাত

নাসার চন্দ্র অভিযানে যোগ দেওয়ার জন্য বেসরকারি কোম্পানিগুলির কাছে দরপত্র আহ্বান করা হচ্ছে। দরপত্র জমা নেওয়ার শেষ তারিখ ২৫ মার্চ। প্রথম দফার বাছাই পর্ব চলবে মে মাস পর্যন্ত। যন্ত্রপাতি আর অন্যান্য ক্ষেত্রে সহযোগিতার জন্য নিলামে ডাকা হচ্ছে বিভিন্ন সংস্থাকে, যাতে কাজটি দ্রুত করা হয়।

স্মার্ট ফোন কেনার আগে যাচাই করে নিন এই ৮টি বিষয়

0
smartphone
প্রতীকী ছবি

ওয়েবডেস্ক: স্মার্টফোন কিনতে গেলে বেশ কয়েকটি বিষয়ে ভালো করে দেখেশুনে নিতে হয়। শুধু রং আর দাম নয়। রয়েছে আরও অনেকগুলি প্রয়োজনীয় বিষয়। দেখুন সেগুলি কী কী?

দাম –

প্রথমেই আসি দামের কথায়। রংচঙে বিজ্ঞাপনে ভুলে দাম দিয়ে ভুল ফোন কিনবেন না। যেই ফোন কিনবেন তার বিষয়ে বিশদে জানুন, প্রয়োজনে দাম-সহ ইত্যাদি বিষয়গুলি অনলাইনে ও একাধিক দোকান থেকে দেখে বুঝে নিয়ে তবেই দাম দিন।

১. ফিচার –

এক একটি স্মার্টফোনের ফিচার এক এক রকম হয়। কোনটি আপনার কাজের ক্ষেত্রে জরুরি সেটি দেখে নিন প্রথমেই। তার মধ্যে পড়ছে প্রসেসর, স্টোরেজ ইত্যাদি বিষয়।

আরও পড়ুন – লন্ডনের পার্কে অপরিচিতার দুই কুকুর নিয়ে হুল্লোড় জিতের, নিজেই দেখুন 

২. ব্রাইটনেস –

ফোনের ব্রাইটনেসটিও স্মার্টফোন কেনার সময় দেখে নিতে হয়। যাতে দিনের বেলায় ঘরের বাইরেও স্পষ্ট ভাবে দেখা যায় সেই রকম একটি ফোন পছন্দ করা উচিত।

৩. ডিসপ্লে –

নজর রাখতে হবে ডিসপ্লে সাইজের ওপরও। কত বড়ো স্ক্রিন সেটা নির্ভর করে এক্ষেত্রে। ৫.৮ থেকে ৬.৪ ইঞ্চির মধ্যে স্ক্রিন হলে ভালো হয়। কারণ আজকাল ফোনের মধ্যে টিভি দেখার রেওয়াজ রয়েছে। তার জন্য বড়ো স্ক্রিন উপযুক্ত।

৪. পারিপার্শ্বিক –

আজকাল ফোনের আয়তন ক্রমশ বাড়ছে। সেক্ষেত্রে তা বহন করার ক্ষেত্রে সুবিধা অসুবিধার ব্যাপারটাও একটি বড়ো কথা। যাতে করে আয়তনের জন্য লেখা বা ব্যবহার করার ক্ষেত্রে কোনো রকম সমস্যায় পড়তে না হয়, সেটিও নজর রাখতে হবে ফোন কেনার সময়।

smartphone
প্রতীকী ছবি

৫. স্টোরেজ –

স্মার্ট ফোন কিনতে হলে নজর দিতে হবে স্টোরেজে। কম করে ৩২ জিবি স্টোরেজ তো চাইই চাই। আর সম্ভব হলে ৬৪ জিবি স্টোরেজ। স্টোরেজ বেশি হলে তাতে প্রয়োজনীয় অ্যাপ, পছন্দের খেলা, প্রিয় অনেক কিছুই লোড করা যায় সময়ে কাজে লাগানোর জন্য।

৬. অপারেটিং সিস্টেম-

হয় অ্যনড্রয়েড না হয় আইওএস অপারেটিং সিস্টেমই আজকাল চলছে বেশি। তাই ফোন কিনতে হলে এই জাতীয় ফোন কেনাই বুদ্ধিমানের। এতে অনেক কিছু অ্যাপ ব্যবহারও করা যায়। ব্যবহার করা যায় গুগল, জি-মেল, ম্যাপ ইত্যাদিও।

আরও পড়ুন – এক সঙ্গে ৭টি শিশুর স্বাভাবিক জন্ম দিয়ে মধ্যপ্রাচ্যে রেকর্ড গড়লেন ইরাকি যুবতী

৭. ব্যাটারি –

ব্যাটারি তো একটি অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। যদি সারা দিন ফোন অন থাকুক এটাই চাওয়া হয় তাহলে অবশ্যই ভালো ব্যাটারির ফোন বাছাই করতে হবে। সঙ্গে খেয়াল রাখতে হবে যাতে দ্রুত ব্যাটারি চার্জ করা যায়।

৮. ক্যামেরা –

এখন ক্যামেরার ব্যাপারটি তো অবশ্যই মনে রাখতে হবে। কত মেগা পিক্সেলের ক্যামেরা, তাতে ছবি কেমন ওঠে? আর তার ব্রাইট নেস কেমন এই সবও কিন্তু সমান গুরুত্বপূর্ণ।

নতুন বা ব্যবহার করা ফোন কিনতে পারেন। সে ক্ষেত্রে যে বিষয়গুলি জেনে নিতে হবে-

  • কোনো রকম মেরামত করা হয়েছে কিনা?
  • এই স্মার্টফোনের কোনো ওয়ারেন্টি কার্ড আছে কিনা?
  • এই ফোনের ভালো মন্দ কোনো বিশেষ দিক আছে কিনা?
  • ফোনে কোনো সমস্যা আছে কিনা?

চালু হল অসংগঠিত ক্ষেত্রের শ্রমিকদের জন্য ‘প্রধানমন্ত্রী শ্রমযোগী মন্ধন প্রকল্প’-এ নাম নথিভুক্তি

0
Informal sector
প্রতীকী ছবি

নয়াদিল্লি: চালু হয়ে গেল অসংগঠিত ক্ষেত্রের শ্রমিকদের জন্য ‘প্রধানমন্ত্রী শ্রমযোগী মন্ধন প্রকল্প’ (পিএম-সিইএম)। এ ক্ষেত্রে মাসিক অবসর ভাতার পরিমাণ তিন হাজার টাকা। এই ভাতা পাওয়ার জন্য যোগাযোগ করা যাবে সারা দেশের প্রায় ৩ লক্ষ ১৩ হাজার সাধারণ পরিষেবা কেন্দ্র অর্থাৎ কমন সার্ভিস সেন্টার (সিএসসি)-এ। এই বিষয়ে সিএসসি ই-গভর্নেন্স সার্ভিসেস ইন্ডিয়া লিমিটেডের একটি বিশেষ গাড়ি এই শ্রমিকদের এই প্রকল্পে অন্তর্ভুক্তকরণের কাজ করছে।

একটি সরকারি বিবৃতিতে বলা হয়েছে, এই ক্ষেত্রের ৪০ বছর বয়স পর্যন্ত শ্রমিকদের এই পকল্পের অধীনে আনা হচ্ছে। তাঁরা ৬০ বছর বয়সের পর মাসিক অবসর ভাতা পাবেন। তার জন্য মাসে ১০০ টাকা করে টাকা জমাতে হবে এই প্রকল্পে নিজ নিজ অ্যাকাউন্টে।

বিস্তারিত জানতে পড়ুন: চালু হচ্ছে প্রধানমন্ত্রী শ্রম যোগী মন্ধন প্রকল্প, পেনশন পাওয়ার জন্য কী করতে হবে?

৩ লক্ষ ১৩ হাজার সিএসসি-এর মধ্যে ২ লক্ষ ১৩ হাজার কাজ করবে গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায়। এই সিএসসিগুলির কাজ হল গ্রাম আর মফস্‌সল এলাকা থেকে উপযুক্ত প্রকৃত গরিব মানুষকে খুঁজে বের করা আর তাঁদের এর আওতায় আনা।

আরও পড়ুন – বাজারে এলো মোটো জি৭ সিরিজ, জানুন বিস্তারিত

এই পরিষেবা পাওয়ার জন্য শ্রমিকদের নিকটবর্তী পরিষেবা কেন্দ্রে যেতে হবে। সঙ্গে নিয়ে যেতে হবে আধার কার্ড, ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের যাবতীয় নথি, বা জনধন অ্যাকাউন্টের পাসবুক। প্রথম মাসের টাকা নেওয়া হবে নগদে। দেওয়া হবে একটি রিসিপ্ট।

আরও পড়ুন – পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ ওয়ার্ডার নিয়োগ, অনলাইনে আবেদন জানাবেন কী ভাবে?

প্রয়োজনে ব্যাঙ্কে না গিয়েও যাতে ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট খোলা যায় তারও ব্যবস্থা করছে এই পরিষেবা কেন্দ্র।

কেন্দ্রীয় শ্রম মন্ত্রণালয় দ্বারা প্রধানমন্ত্রীর এই প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। এটি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী কর্তৃক গৃহীত একটি সামাজিক নিরাপত্তা প্রকল্প। এই প্রকল্পটির বিষয়ে অন্তর্বর্তী বাজেটে ঘোষণা করা হয়েছে। আগামী পাঁচ বছরে অসংগঠিত ক্ষেত্রের ১০ কোটি শ্রমিকের কাছে এই সুবিধে পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্য নেওয়া হয়েছে।

কাচের বাসনপত্রের অনবদ্য সম্ভার পেতে হলে যেতে হবে অ্যাসপিরেশনজ ওয়ার্ল্ডে

0
ASPIRATIONZ WORLD
অ্যাসপিরেশনসের অসাধারণ বাসন সম্ভার

কলকাতা: খাবারের স্বাদ আরও বাড়িয়ে দেবে অ্যাসপিরেশনজের অসাধারণ কাচের বাসনের সম্ভার। শৌখিতার অন্য নাম বলতে পারেন অ্যাসপিরেশনজ ওয়ার্ল্ড। সম্প্রতি নতুন ধরনের বেশ কিছু বাসনপত্রের সুন্দর একটি প্রদর্শনীর আয়োজন করেছিল সংস্থাটি। প্রদর্শনীটির আয়োজন করা হয়েছিল তাদের তোপসিয়ার শোরুমে।

ASPIRATIONZ WORLD
অ্যাসপিরেশনসের অসাধারণ বাসন সম্ভার

নিখুঁত আর অত্যাধুনিক কাটলেরি আর কুকারি সামগ্রী রয়েছে সংস্থার কাছে। যা অতি অসাধারণ ভাবে সাজিয়ে তুলবে আপনার রান্নাঘর আর খাবার ঘরকে। বহুগুণ বাড়িয়ে দেবে অতিথিদের কাছে নিজের পছন্দের মানকে। এখানে সংগ্রহে রয়েছে ডিনার সেট, টি সেট, মাগস ইত্যাদিও। খুব শৌখিন বোন চায়নার সামগ্রীগুলিও চোখ ধাঁধানো। তার ওপর রয়েছে রুচিশীল কারুকার্যও। যা কিনা এক কথায় অনবদ্য।

অ্যাসপিরেশনসজ ওয়ার্ল্ডের পরিচালক নিশান্ত শাউ বলেন, তিনি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করেন যে, এই সামগ্রীগুলি ভালো লাগবেই। সংস্কৃতিকে তুলে ধরতে আর এগিয়ে নিয়ে যেতে এগুলি খুবই ভালো।

আরও পড়ুন – সাবধান! শহিদ জওয়ানদের পরিবারকে সাহায্য করতে গিয়ে ‘ফাঁদে’ পা দেবেন না

তিনি বলেন, তাঁরা ঐতিহ্যকে সঙ্গে নিয়ে এগিয়ে চলতে পছন্দ করেন। তাঁদের সামগ্রীগুলির মধ্যেও তারই ছাপ। এগুলি নিছকই পণ্য নয়, সংস্কৃতির বাহক। গ্রাহকদের পরিবর্তিত পছন্দ আর রুচির কথা মাথায় রেখেই তৈরি এই সামগ্রীগুলি।

কোথাও নিরাপত্তার গাফিলতি না থাকলে এমন হামলা হতে পারে না, মত প্রাক্তন ‘র’ প্রধানের

0
Vikram Sood
বিক্রম সুদ

ওয়েবডেস্ক: ভারতের গোয়েন্দা সংস্থা র (রিসার্চ অ্যান্ড অ্যানালিসিস উইংস)-এর প্রাক্তন প্রধান বিক্রম সুদের দাবি ঘিরে ফের বিতর্ক দানা বাঁধছে। গত বৃহস্পতিবার জম্মু-কাশ্মীরের পুলিওয়ামায় আত্মঘাতী জঙ্গি হামলা পর বিক্রম সংবাদ মাধ্যমের কাছে দাবি করেন, “কোথাও কোনো নিরাপত্তার গাফিলতি না থাকলে এ ধরনের কোনো ঘটনা মোটেই ঘটতে পারে না”।

হায়দরাবাদে একটি অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, “আমি জানি না কোথায় কী ভুল হয়েছে। তবে এটুকু বলতে পারি, কোনো ধরনের নিরাপত্তার ঘাটতি না থাকলে এমন ঘটনা ঘটতে পারে না”।

প্রাক্তন ‘র’ কর্তার মতে, “এটা তো ঠিক ওই হামলার সঙ্গে এক জন নয়, একাধিক ব্যক্তি জড়িত ছিল। যাদের মধ্যে কেউ বিস্ফোরক পদার্থগুলো কিনে এনেছে, কেউ আবার সেগুলি দিয়ে বিস্ফোরক তৈরি করেছে, সেগুলোকে বহন করার জন্য কেউ আবার গাড়ি নিয়ে এসেছে। একই সঙ্গে তারা সিআরপিএফের কনভয় যাওয়ার পুঙ্খানুপুঙ্খ খবরাখবরও রেখেছে”।

সচরাসচর বিশাল সংখ্যক সেনাকে স্থানান্তরিত করতে বিমানের ব্যবস্থা করা হয়। কিন্তু সে দিন আড়াই হাজারের বেশি সেনাকে স্থানান্তরিত করার জন্য ৭৮টি বাস ব্যবহার করা হয়েছিল।

[ আরও পড়ুন: দায় এড়াতে পুলওয়ামা হামলার নেপথ্যে ভিন্ন কারণ তুলে ধরল পাকিস্তান ]

ঘটনার পরই পাকিস্তানকে যোগ্য জবাব দেওয়ার কথা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এ ব্যাপারে বিক্রমকে সাংবাদিকরা প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, “এটা কোনো বক্সিং ম্যাচ নয়। আপনিও প্রধানমন্ত্রীর মতো মন্তব্য করতেই পারেন। সেটা নির্ভর করছে আপনার অবস্থান এবং সময়ের উপর। কিন্তু আজ বা কালকেই হতে পারে বলে তেমন কোনো সম্ভাবনা নাও থাকতে পারে”।

তরুণ-তরুণীদের সরকারি কর্মসংস্থান সম্পর্কে দিশা দেখাতে বাঁকুড়ায় ‘নবদিশা’র সূচনা

0
inauguration nabadisha
'নবদিশা' সূচনা অনুষ্ঠান। নিজস্ব চিত্র।
indrani sen
ইন্দ্রাণী সেন

বাঁকুড়া: ‘নবদিশা’ র আনুষ্ঠানিক সূচনা হল বাঁকুড়ায়। জেলার কর্মপ্রার্থী তরুণ-তরুণীদের সরকারি বিভিন্ন শাখায় কর্মসংস্থানের লক্ষ্যেই এই বিশেষ প্রকল্পের উদ্ভাবন। রবিবার বাঁকুড়ার রবীন্দ্রভবনে ‘নবদিশা’ প্রকল্পের আনুষ্ঠানিক সূচনা করেন জেলাশাসক ডাঃ উমাশঙ্কর এস।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার কোটেশ্বর রাও, সভাধিপতি মৃত্যুঞ্জয় মুর্মু-সহ জেলা প্রশাসনের অন্য আধিকারিকরা।

জেলাশাসকের কথায়, “বাঁকুড়া জেলার ছেলেমেয়েরা পড়াশোনায় বরাবর ভালো ফল করে। মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় মেধা তালিকায় সব সময়ই উপরে থাকে। জেলার প্রতিভাবান ছাত্রছাত্রীদের কর্মসংস্থানের লক্ষ্যে ‘নবদিশা’ প্রকল্পের কথা ভাবা হয়েছে। যেখানে সম্পূর্ণ বিনা খরচে ডব্লুবিসিএস, আইএএস, আইপিএস এবং ইউপিএসসি অন্যান্য পরীক্ষার বিষয়ের ধারণা দেওয়ার পাশাপাশি এ বিষয়ে তাদের আগ্রহী করে তোলা হবে।”

a part of audience
শ্রোতাদের একাংশ। নিজস্ব চিত্র।

জেলাশাসক আরও বলেন, জেলা প্রশাসনের আধিকারিকরা নিয়মিত এই শিক্ষার্থীদের পাঠদান করবেন। জেলার পুলিশ সুপার কোটেশ্বর রাও বলেন, অভাবী মেধাবী ছাত্রছাত্রীদের পাঠদানেরও বিশেষ ব্যবস্থা থাকবে।

আরও পড়ুন বিজেপি নেতার মেয়ের অন্তর্ধান রহস্যের কিনারা! উদ্ধার ডালখোলা স্টেশন থেকে

জেলা প্রশাসন সূত্রে আরও জানানো হয়েছে, সিভিল সার্ভিস পরীক্ষা ছাড়াও অন্যান্য প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার বিষয়েও পাঠদানের ব্যবস্থা থাকবে।

একই সঙ্গে এ দিন জানানো হয়েছে, এর পর থেকে প্রতি সপ্তাহে শনি ও রবিবার বাঁকুড়া ক্লাবে এক ঘণ্টা করে আগ্রহী ছাত্রছাত্রীদের এ বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। জেলাপ্রশাসনের এই উদ্যোগে খুশি ছাত্রছাত্রী থেকে কর্মপ্রার্থী সকলেই।

পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ ওয়ার্ডার নিয়োগ, অনলাইনে আবেদন জানাবেন কী ভাবে?

0
WBP
পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ

ওয়েবডেস্ক: ওয়ার্ডার (পুরুষ ও মহিলা) নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে ওয়েস্টবেঙ্গল পুলিশ রিক্রুটমেন্ট বোর্ড। অনলাইনে আবেদন নেওয়া হবে। জেনে নেওয়া যাক বিস্তারিত —-

নিয়োগকারী সংস্থা –

পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ

পদের নাম –

ওয়ার্ডার (পুরুষ ও মহিলা)

শূন্যপদ –

৮১৬টি

শূন্যপদের যাবতীয় খোঁজ খবর –

অসংরক্ষিত পদের সংখ্যা –

মহিলা – ৬৫টি

পুরুষ – ৩৭৬টি

সংরক্ষিত পদের সংখ্যা –

তপসিলি জাতি –

মহিলা – ২৮

পুরুষ – ১৫৬

তপসিলি উপজাতি –

মহিলা –

পুরুষ – ৪৩

অন্যান্য পিছিয়ে পড়া সম্প্রদায়ের জন্য –

মহিলা – ২১

পুরুষ – ১২০

বেতন ক্রম-

৫,৪০০ টাকা থেকে ২৫,২০০ টাকা, সঙ্গে গ্রেড পে ২,৬০০ টাকা।

কর্মস্থল –

পশ্চিমবঙ্গ

বয়সসীমা –

১ জানুয়ারি ২০১৯ সাল অনুযায়ী বয়স ১৮ বছর থেকে ২৭ বছরের মধ্যে হতে হবে। নিয়ম অনুযায়ী বয়সের ছাড় পাওয়া যাবে।

শিক্ষাগত যোগ্যতা –

প্রার্থীকে রাজ্য বা কেন্দ্রীয় সরকার অনুমোদিত প্রতিষ্ঠান থেকে মাধ্যমিক বা সমতুল্য পাশ করতে হবে।

উচ্চতা ও যাবতীয় প্রয়োজনীয় বিষয় –

মহিলা –

উচ্চতা – ১৬০ সেন্টিমিটার,

পুরুষ –

উচ্চতা – ১৬৭ সেন্টিমিটার

ছাতি – ৭৮ থেকে ৮৩ সেন্টিমিটার

গুরুত্বপূর্ণ তারিখ –

আবেদন শুরুর তারিখ – ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

আবেদনের শেষ তারিখ – ১৪ মার্চ ২০১৯

আবেদনের খরচ –

সাধারণ ও অন্যান্য পিছিয়ে পড়া শ্রেণির জন্য আবেদন ফি ২২০ টাকা

তপসিলি জাতি ও উপজাতিদের জন্য আবেদন ফি ২০ টাকা

আরও পড়ুন – শিক্ষক নিয়োগে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ কমিশনের

ফি জমা করতে হবে অনলাইন বা অফলাইনে।

আবেদন করতে হবে –

https://wbprb.applythrunet.co.in/Login.aspx?L=A

বিস্তারিত জানতে দেখতে হবে সংস্থার নিজস্ব ওয়েবসাইট

আই লিগের লড়াইয়ে ঘরের মাঠে পয়েন্ট ভাগাভাগি ইস্টবেঙ্গলের

0
eb

ইস্টবেঙ্গল – ১                                   চার্চিল – ১

ওয়েবডেস্ক: আই লিগের খেতাবি লড়াইয়ে ঘরের মাঠে আটকে গেল ইস্টবেঙ্গল। রবিবার যুবভারতীতে চার্চিলের বিরুদ্ধে পয়েন্ট ভাগাভাগি করে নিল আলেজান্দ্রোর ছেলেরা। দ্বিতীয়ার্ধে পিছিয়ে পরে সমতা ফেরায় লাল-হলুদ ব্রিগেড। ফলে জমে গেল যে লিগের লড়াই সেই নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই।

প্রথমার্ধে চাপ রেখেই শুরু করে ইস্টবেঙ্গল। তবে প্রতিআক্রমণে ম্যাচে ফেরার চেষ্টা চালায় গোয়ার দলটি। সুযোগ পেয়েছিলেন তাদের চেস্টার। কিন্তু তাঁর শট বাইরে যায়। তবে প্রথমার্ধে দু’দলের তরফ থেকে আক্রমণের চেয়ে ফাউল বেশি লক্ষ্য করা গেল। যার ফলে বেশ কয়েকবার ম্যাচ থামাতে বাধ্য হন রেফারি। প্রথমার্ধে অবশ্য নির্ধারিত সময়ে আগে গোল পেয়েই যেতে পারতো ইস্টবেঙ্গল। তবে দোভালের গোলমুখ শট বিপদমুক্ত করেন চার্চিল কিপার ভাস্করন। অন্য দিকে ইনজুরি টাইমে চার্চিলের আউচোর ফ্রিকিক একটুর জন্য বাইরে যায়।

দ্বিতীয়ার্ধে গোলের লক্ষ্যে শুরুতে চাপ বাড়ায় চার্চিল। ধীরে ধীরে ম্যাচে ফেরে ইস্টবেঙ্গলও। সুযোগ পেয়েছিলেন এনরিকে। কিন্তু তাঁর শট তেকাঠিতে থাকেনি। এই অর্ধেও দু’দলের তরফ থেকে দেখা গেল ফাউল। অবশ্য ট্যাকটিকাল ফুটবলে ৬৮ মিনিটে চার্চিলকে এগিয়ে দেন লাল-হলুদের প্রাক্তন ফুটবলার প্লাজা। পিছিয়ে পরে চাপ বাড়ায় ইস্টবেঙ্গল। যার ফল খেলা শেষ হওয়ার মিনিট দশেক আগে ফ্রিকিক থেকে গোল করে সমতা ফেরান কাশিম। শেষ দিকে চাপ বাড়ালেও জয়সূচক গোল পায়নি ইস্টবেঙ্গল।

এই ম্যাচের পর ১৬ ম্যাচে ৩২ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে ইস্টবেঙ্গল। অন্য দিকে ১৮ ম্যাচে ৩১ পয়েন্ট নিয়ে চতুর্থ স্থানে চার্চিল। শীর্ষে চেন্নাই সিটি ১৬ ম্যাচে ৩৪ পয়েন্ট।

পুলওয়ামা হামলার পর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংকে চিঠি লিখল বিজেপি

0
Rajnath Singh
রাজনাথ সিং। ফাইল ছবি

লুধিয়ানা: পঞ্জাবের জেলা বিজেপি সভাপতি পরমিন্দর মেহতা চিঠি লিখলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংকে। দেশবিরোধী কাজ রুখতে বিশেষ আবেদনে এই চিঠি।

পরমিন্দর লিখেছেন, “জম্মু-কাশ্মীরের মতোই পঞ্জাবেও বেশ কিছু নেতা পাকিস্তানের হয়ে কথা বলছেন। তাঁদের গতিবিধির উপর নজর রাখুক গোয়েন্দা বিভাগ”।

পুলওয়ামার জঙ্গি হামলার পর গোটা দেশ শোকস্তব্ধ। পরমিন্দর জানিয়েছেন, “পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রীও পাক-সেনাপ্রধানকে সতর্ক করে দিয়েছেন।

কিন্তু তার পরেও তাঁরই মন্ত্রিসভার সদস্য নভোজ্যোত সিং সিধু-সহ বেশ কয়েকজন এমন মন্তব্য করছেন, যা জম্মু-কাশ্মীরের বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতাদের মতোই”।

নাম করেই পরমিন্দর চিঠিতে লেখেন, “তাঁদের কথা যেন মিলে যাচ্ছে সুখপাল খৈরার মতো পাকিস্তানকে বাঁচাতে উদ্যোগী কয়েক জন নেতার সঙ্গে”।

পরমিন্দর দাবি করেছেন, “ওই সব নেতাদের গতিবিধি এবং কার্যকলাপের উপর নজরদারি চালাতে গোয়েন্দাদের সাহায্য নেওয়া উচিত”।

[ আরও পড়ুন: সাবধান! শহিদ জওয়ানদের পরিবারকে সাহায্য করতে গিয়ে ‘ফাঁদে’ পা দেবেন না ]

নচেত যে কোনো দিন জম্মু-কাশ্মীরের মতোই পঞ্জাবেও আগামী দিনে পাকিস্তানের মদতে জঙ্গি কার্যকলাপ শুরু হয়ে যেতে পারে বলেই তাঁর আশঙ্কা।

সাম্প্রতিক