ওয়েবডেস্ক: প্রত্যেক দিবস পালনের পেছনেই কোনো না কোনো একটা কারণ থাকে। গল্প থাকে। ঠিক তেমনই গল্প আছে ১৪ নভেম্বর অর্থাৎ জওহরলাল নেহরুর জন্মদিনের দিন শিশুদিবস পালনের পেছনেও।

জওহরলাল নেহরু হলেন স্বাধীন ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রী। তিনি ছিলেন দারুণ দূরদৃষ্টি সম্পন্ন তুখোড় রাজনীতিবিদ। তবে সেখানেই কিন্তু তাঁর পরিচয় শেষ নয়। তিনি যেমন ভালো কবিতা লিখতে পারতেন, তেমন ভালো সাহিত্যরচনাও করতে পারতেন। অর্থাৎ একই সঙ্গে ছিল রাজনীতি আর সাহিত্যের মেলবন্ধন। পাশাপাশি দেশপ্রেমিক তো বটেই।

এই সব ছাড়াও তিনি কিন্তু শিশুদের খুব ভালোবাসতেন। ভালোবাসতেন তাদের সঙ্গে সময় কাটাতে, খেলতে। তাঁর মনে ছোটোদের জন্য ছিল অকৃত্রিম ভালোবাসা। এই ভালোবাসার কারণেই তিনি পরিচিত হয়ে উঠেছিলেন চাচাজি নামেও। তিনি ছোটোরা যাতে বড়ো হয়ে উপযুক্ত শিক্ষা পায় তার জন্য বেশ কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার ব্যাপারে তাঁর অগ্রণী ভূমিকা ছিল।।

চাচাজি অর্থাৎ নেহরু বলতেন, আজকের একটি শিশুই তৈরি করবে আগামীকালের ভারতবর্ষ। শিশুদের মধ্যে লুকিয়ে আছে দেশের ভবিষ্যৎ।

সু কি-কে দেওয়া সম্মান ফিরিয়ে নিল অ্যামনেস্টি

যাই হোক, শিশুপ্রেমী এই মানুষটির মৃত্যুর পর তাই দেশ জুড়ে তাঁর জন্মদিনটিকে শিশুদিবস হিসাবে পালনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সেই উপলক্ষ্যে স্কুলে স্কুলে নানান অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।  নানান হাসি খেলায় মাতিয়ে রাখা হয় কচিকাঁচাদের।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন