Connect with us

বইপত্তর

শারদোৎসবে প্রকাশিত হচ্ছে ‘আরশিকথা আন্তর্জাতিক ম্যাগাজিন ২০২০’, প্রচ্ছদে সুরক্ষা ও সচেতনতার বার্তা

Published

on

আরশীকথা

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ২০১৬ সাল থেকে নানা আঙ্গিকে অবিরাম পথচলায় সচেষ্ট থাকছে আরশিকথা। এই পথচলার মূল উদ্দেশ্য এবং লক্ষ্য একটাই – গোটা বিশ্ব জুড়ে বাংলা ভাষাকে আরও ছড়িয়ে দিয়ে তার মর্যাদা এবং শ্রীবৃদ্ধি অক্ষুণ্ণ রাখা। বিশ্ব জুড়ে বাংলাভাষীদের সঙ্গে শ্রেষ্ঠ ভাবনার বিনিময় ঘটিয়ে এক অটুট সম্পর্কের বন্ধনে যুক্ত থাকা।

ইতিমধ্যেই আরশিকথা ১০টি দেশের সঙ্গে সংযুক্ত হতে পেরেছে। লক্ষাধিকেরও বেশি মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপনে সাফল্য অর্জন করছে। ৫০ হাজারেরও বেশি সম্মানিত পাঠক ও দর্শকের ভালোবাসা ও সহযোগিতায় এক অসাধারণ অনুপ্রেরণায় বিরামহীন এগিয়ে যাওয়ায় থাকতে পারছে তারা। প্রতিদিনকার তথ্য-সংবাদ প্রদান-সহ নানা প্রয়োজনীয় মূল্যবান প্রতিবেদন এবং বিনোদনে সবার মন জয় করে এগিয়ে চলেছে আরশিকথা অনলাইন বাংলা নিউজ পোর্টাল।

এ ছাড়া বিশেষ ভূমিকায় থাকা বিজ্ঞাপনদাতাগণ এবং আরশিকথা গ্লোবাল সাহিত্য ফোরামের সদস্য সদস্যাদের নানা স্বেচ্ছা-সহযোগিতায় রাজ্য, বহিঃরাজ্য-সহ দেশবিদেশের খ্যাতনামা ও বিশিষ্ট শিল্পীদের সমন্বয়ে বিগত ৪ বছরে বহু সামাজিক এবং আন্তর্জাতিক সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ড সংঘটিত করতে সমর্থ হয়েছে আরশিকথা। বিগত বছরগুলির মতো এ বছরও এর ব্যতিক্রম হয়নি।

বিজ্ঞাপনদাতাদের সহযোগিতায় ২০১৯ সাল থেকেই এক সিদ্ধান্তক্রমে আরশিকথা আন্তর্জাতিক ম্যাগাজিন প্রকাশ করা শুরু হয়েছে। পাশাপাশি ম্যাগাজিনটিকে দেশ-বিদেশের বিশেষ সরকারি বেসরকারি সংস্থা-সহ সমাজের বিশেষ ব্যক্তিত্বদের কাছেও পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। সেই লক্ষ্যে এ বছরও অর্থাৎ ২০২০ সালের আন্তর্জাতিক ম্যাগাজিন প্রকাশনার কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে। দেশবিদেশের বিশিষ্ট ও জনপ্রিয় লেখক, সাংবাদিক, কবি, প্রতিবেদক, কলামিস্ট, ব্লগারদের গল্প, কবিতা, প্রতিবেদন ও তথ্যসংবাদে সমৃদ্ধ থাকছে ‘আরশিকথা আন্তর্জাতিক ম্যাগাজিন ২০২০’।

আরশীকথা

আসন্ন দুর্গাপূজার একটি নির্দিষ্ট দিনে যাবতীয় সামাজিক ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে রাজ্যের বিশিষ্ট ও গুণীজনদের উপস্থিতিতে ম্যাগাজিনটির উদ্বোধন করা হবে। বর্তমান পরিস্থিতির দিকে লক্ষ রেখে বিগত বছরগুলির মতো এ বছর দেশবিদেশের শিল্পী সমন্বয়ে আন্তর্জাতিক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান মঞ্চস্থ করার বিষয়ে বিরত থাকা হল। তবে নানা প্রয়োজনীয় সামাজিক কর্মকাণ্ডে ‘আরশিকথা আন্তর্জাতিক ম্যাগাজিন ২০২০’ কর্মসূচি পালন করা হবে।

এরই অঙ্গ হিসেবে ১৭ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার শুভ মহালয়া এবং দেবশিল্পী বিশ্বকর্মা পূজার পুণ্য তিথিতে আগরতলার বনমালিপুরস্থিত আরশিকথার প্রধান কার্যালয়ের সামনে পরিবারের ত্রিপুরা বিভাগের সকল সদস্য ও সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে একটি সামাজিক কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে ‘আরশিকথা আন্তর্জাতিক ম্যাগাজিন ২০২০’-এর ম্যাগাজিন কভারের শুভ উদ্বোধন হয়। বর্তমান পরিস্থিতি অনুযায়ী ম্যাগাজিন প্রচ্ছদে এ বার সুরক্ষা ও সচেতনতার বার্তাকেই প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে।

এ দিন আরশিকথা পরিবার এবং আরশিকথা গ্লোবাল সাহিত্য ফোরাম-এর কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্যরা বস্ত্রদান কর্মসূচির অঙ্গ হিসেবে আগরতলা পুর নিগমের মহিলা সাফাই কর্মীদের হাতে নতুন বস্ত্র এবং স্বল্প খাদ্যসামগ্রী তুলে দেন। এ দিন এই মহতী উদ্যোগে এলাকার কয়েক জন বিশিষ্ট নাগরিকও উপস্থিত ছিলেন। এ দিন আরও কয়েকটি পুর-ওয়ার্ডের মহিলা সাফাইকর্মীদের মধ্যেও বস্ত্র বিতরণ করা হয়।

এ ছাড়া এ দিন পূর্বোদয় সামাজিক সংস্থার দানসামগ্রী প্রদান করার অভিনব আউটলেট ‘হার্ট অব হিউমিনিটি’-এর শঙ্কর চৌমুহনীস্থিত সেন্টারেও আরশিকথা গ্লোবাল সাহিত্য ফোরাম সদস্যদের তরফে দুঃস্থ ও অসহায়দের জন্য বস্ত্র ও খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়।

‘আরশিকথা আন্তর্জাতিক ম্যাগাজিন ২০২০’ উদ্বোধনকে কেন্দ্র করে এ বছর আরশিকথা অনলাইন বাংলা নিউজ পোর্টাল মোট ১০০ জন সাফাইকর্মী ও দুঃস্থদের মধ্যে বস্ত্র বিতরণ করার উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। এ ছাড়া পূজার তিন দিন প্রতি দিন দুঃস্থ ও অসহায়দের মধ্যে খাদ্যও বিতরণ করা হবে। পাশাপাশি সারা বছরের কর্মসূচি হিসেবে ফুটপাথ ব্যবসায়ী ও দৈনিক শ্রমিকদের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধির তথ্য প্রদান এবং সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ লকডাউনের শুরুকাল থেকেই চলছে এবং চলবে। এ বছর আরশিকথার তরফে নানা অনলাইন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের উদ্যোগও গ্রহণ করা হয়েছে।

বইপত্তর

পুস্তক পর্যালোচনা: ঘনাদা আর টেনিদাকে নিয়ে সৃষ্টি ‘বাংলা সাহিত্যে দুই দাদা’

টেনিদার খ্যাতি তাঁর খাঁড়ার মতো নাক, গড়ের মাঠে গোরা পেটানো, আর তার বিখ্যাত সংলাপ, ‘ডি-লা গ্রান্ডি মেফিস্টোফিলিস ইয়াক ইয়াক’-এর জন্য।

Published

on

দুই দাদা

বাংলা সাহিত্যে দুই অমর সৃষ্টি – ঘনাদা আর টেনিদা। ঘনাদার স্রষ্টা প্রেমেন্দ্র মিত্র আর টেনিদার স্রষ্টা নারায়ণ গঙ্গোপাধ্যায়।
প্রেমেন্দ্র মিত্রের কলমে ঘনাদার আত্মপ্রকাশ ১৯৪৫ সালে। প্রকৃত নাম ঘনশ্যাম দাস। ঘনাদা বলেন, ইউরোপীয়রা তাঁকে ‘ডস’ নামে চেনে। ৭২ নম্বর বনমালি নস্কর লেনের এক মেসবাড়িতে ঘনাদার বাস। ঘনাদার অধিকাংশ গল্পই তাঁর মেসবাড়িতে বসে বলা। আর শ্রোতা হল ওই মেসের চার প্রতিবেশী শিবু, শিশির, গৌর ও গল্পের কথক সুধীর।

ঘনাদার ভাণ্ডারে কল্পবিজ্ঞান, অভিযান বা ঐতিহাসিক গল্পের বিপুল সমাহার। আর সেই সব গল্পের বেশির ভাগেরই নায়ক ঘনাদা স্বয়ং। ঘনাদার প্রতিবেশীরা নানা ভাবে তাঁকে প্রভাবিত করে তাঁর মুখে সেই সব গল্প শোনে আর আমরা, পাঠকরা, তার ভাগ পাই। এক দিকে ঘনাদার বাগাড়ম্বরতা, মুখেন মারিতং জগৎ, অন্য দিকে তাঁর বিপুল পাণ্ডিত্য, উপস্থিত বুদ্ধি আর উদ্ভাবনী প্রতিভা তাঁকে বিপুল জনপ্রিয় করেছে।

নারায়ণ গঙ্গোপাধ্যায়ের টেনিদা কিন্তু পড়াশোনায় ভালো ছিলেন না। সাত বারের চেষ্টায় ম্যাট্রিকুলেশন পাশ করেন। বাস করেন উত্তর কলকাতার পটলডাঙায়। প্রকৃত নাম ভজহরি মুখার্জি। চার জনের একটি গ্রুপ, টেনিদা তার নেতা আর বাকিরা হল গল্পলেখক প্যালারাম, হাবুল আর ক্যাবলা। এই ‘চারমূর্তি’র প্রথম আত্মপ্রকাশ ১৯৫৭ খ্রিস্টাব্দে।

আরও পড়ুন : পুস্তক পর্যালোচনা : ক্যাম্বোডিয়া ইতিহাসের মৃত্যু পাথরে জীবন

টেনিদার খ্যাতি তাঁর খাঁড়ার মতো নাক, গড়ের মাঠে গোরা পেটানো, আর তার বিখ্যাত সংলাপ, ‘ডি-লা গ্রান্ডি মেফিস্টোফিলিস ইয়াক ইয়াক’-এর জন্য। টেনিদার গল্প দু’ ধরনের – এক, নিজের তথাকথিত বীরত্বের বানানো গল্প, আর দুই, চার মূর্তির অ্যাডভেঞ্চার কাহিনি। টেনিদা সম্পর্কে প্যালারামের মূল্যায়ন – পাড়ার কারও আপদে-বিপদে টেনিদা সকলের আগে, লোকের উপকারে ক্লান্তি নেই, মুখে হাসি লেগেই আছে, ফুটবলের মাঠে সেরা খেলোয়াড়, ক্রিকেটের ক্যাপ্টেন, আর গল্পের রাজা।
বাংলা সাহিত্যে এই দুই অত্যন্ত জনপ্রিয় কাল্পনিক চরিত্রকে নিয়ে সৌমিক কান্তি ঘোষের সৃষ্টি ‘বাংলা সাহিত্যে দুই দাদা’। লেখক ও প্রাবন্ধিক সৌমিক কান্তি ঘোষ পেশায় অধ্যাপক। বেলুড় লালবাবা কলেজে অর্থনীতির লেকচারার হিসাবে কর্মরত। এ ছাড়াও তিনি রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণজ্ঞাপন বিভাগের সঙ্গে অতিথি অধ্যাপক হিসাবে যুক্ত। পড়াশোনা যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতি এবং ফিল্ম স্টাডিজ নিয়ে। ‘মৃণাল সেন অ্যান আনরিভিল্ড মিস্ট্রি প্রাইড অব বেঙ্গল’, মাল্টিপ্লেক্স অ্যান্ড ইন্ডিয়ান পপুলার সিনেমা’ প্রভৃতি তাঁর লেখা উল্লেখযোগ্য গ্রন্থ। লেখকের আশা, ঘনাদা আর টেনিদাকে নিয়ে লেখা তাঁর এই বই পাঠককুল বিপুল আগ্রহ নিয়ে পড়বেন।

বই: বাংলা সাহিত্যে দুই দাদা
লেখক: সৌমিক কান্তি ঘোষ
প্রকাশক: রুপালি
দাম: ১৪৪ টাকা

বইটি অনলাইনে কিনতে এখানে ক্লিক করুন।

Continue Reading

বইপত্তর

পুস্তক পর্যালোচনা : ক্যাম্বোডিয়া ইতিহাসের মৃত্যু পাথরে জীবন

অঙ্কর ভাট আর অঙ্কর থমের সঙ্গেই ক্যাম্বোডিয়া আরও একটি কারণে চিরস্মরণীয়। তা হল পল পটের শাসনকালে গণহত্যা।

Published

on

ক্যাম্বোডিয়া ইতিহাসের মৃত্যু পাথরে জীবন

ক্যাম্বোডিয়া বলতেই চোখের সামনে প্রথমেই ভাসে ইতিহাস বইয়ে পড়া অঙ্কর ভাটের ছবি। মেকং নদীর তীরে অবস্থিত রাজধানী নম পেন থেকে ৩২৪ কিমি দূরে দ্বাদশ শতকের এই মন্দির খেমর স্থাপত্য শিল্পকলার অনুপম নিদর্শন। এই মন্দিরের বিশালত্ব এবং দেওয়ালের কারুকার্য রীতিমতো বিস্ময় জাগায়। অঙ্কর ভাটের এই মন্দির ক্যাম্বোডিয়ার জাতীয় প্রতীকে পরিণত হয়েছে। জন্মের লগ্ন থেকে আজ পর্যন্ত ক্যাম্বোডিয়ার যত পতাকা হয়েছে, তার সব ক’টিতেই স্থান পেয়েছে অঙ্কর ভাটের মন্দির।
পাশাপাশি রয়েছে অঙ্কর থম তথা ‘মহান নগরী’ – দ্বাদশ শতকের রাজধানী নগরী। খেমর সাম্রাজ্যের সর্বাধিক স্থায়ী রাজধানী নগরী অঙ্কর থম প্রতিষ্ঠা করেছিলেন রাজা সপ্তম জয়বর্মণ। ন’ বর্গ কিমি এলাকা জুড়ে ছড়ানো এই নগরীতেও রয়েছে মন্দিরস্থাপত্যের বিস্ময়কর নিদর্শন।

অঙ্কর ভাট আর অঙ্কর থমের সঙ্গেই ক্যাম্বোডিয়া আরও একটি কারণে চিরস্মরণীয়। তা হল পল পটের শাসনকালে গণহত্যা। ঠিক ৪৫ বছর আগে ১৯৭৫-এর একদিন পল পটের নেতৃত্বাধীন খেমর রৌশ বাহিনী ক্যাম্বোডিয়ার ক্ষমতা দখল করে। দেশের নাম পালটে করে কাম্পুচিয়া। মুহূর্তের মধ্যে নম পেন-সহ সমস্ত শহর খালি করে শহরবাসীকে পাঠিয়ে দেওয়া হয় গ্রামে। গ্রামীণ প্রকল্পে বলপূর্বক মজুর হিসাবে খাটানোর জন্য। একাদশ শতকের আদলে গ্রামীণ কৃষি ব্যবস্থা ঢেলে সাজার পরিকল্পনা করা হয়। যা কিছুর মধ্যে ‘পশ্চিমি’ ছাপ আছে বলে মনে করা হয়, তার সব কিছু ভেঙে গুঁড়িয়ে ফেলা হয়। ধ্বংস করে ফেলা হয় মন্দির, লাইব্রেরি। বাতিল করে দেওয়া হয় ‘পশ্চিমি’ ওষুধ। নির্বিচারে হত্যা করা হয় বুদ্ধিজীবীদের। কত মানুষকে যে মেরে ফেলা হয়, তার কোনো হিসাব নেই। বলা হয়, এই হত্যালীলায় ১০ লক্ষ থেকে ৩০ লক্ষ লোকের প্রাণ যায়।

পাঠককুলের কাছে এই ক্যাম্বোডিয়ার কাহিনি তুলে ধরেছেন অমল বন্দ্যোপাধ্যায়।

লেখক অমল বন্দ্যোপাধ্যায় – এক কথায় সর্ব গুণের সমাহার। এক দিকে বিজ্ঞানসাধক, অন্য দিকে সাহিত্যসাধক। সেই সঙ্গে তিনি বাচিকশিল্পী এবং ভ্রামণিকও। অমলবাবু যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মাসি বিভাগের প্রাক্তন বিভাগীয় প্রধান। ওষুধ সংক্রান্ত তাঁর প্রায় একশো গবেষণাপত্র বিশ্বের বিভিন্ন জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে। ইউনেসকো ফেলোশিপ নিয়ে জাপানের কিয়োটো বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণা করেছেন। গবেষণার জন্য তিনি আচার্য পি সি রায় স্বর্ণপদক, রামমোহন পুরস্কার ইত্যাদি পেয়েছেন।
অমলবাবুর সাহিত্যসাধনা ছাত্রজীবন থেকেই শুরু। তখন থেকেই নানা পত্রপত্রিকায় লেখালেখি শুরু করেন। আজ বিভিন্ন সাহিত্যআসরে তিনি মধ্যমণি হয়ে বিরাজ করেন।

কর্মসূত্রে এবং ভ্রমণের নেশা থেকে প্রায় সারা বিশ্ব চষে ফেলেছেন অমলবাবু। তাঁর বিশ্বভ্রমণ শুরু সত্তরের দশকেই। সেই ভ্রমণ আজও সমানে চলেছে। সম্প্রতি পূর্ব ইউরোপের বিভিন্ন দেশ ছাড়াও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার বেশ কয়েকটি দেশ ঘুরে এসেছেন। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য ক্যাম্বোডিয়া। সেই ক্যাম্বোডিয়া- ভ্রমণের ফসল ‘ক্যাম্বোডিয়া: ইতিহাসের মৃত্যু পাথরে জীবন’। এই বইয়ের মাধ্যমে পাঠককুল যে ক্যাম্বোডিয়াকে ভালো করে চিনবেন, সেখানে যে তাঁদের মানস-ভ্রমণ হয়ে যাবে তা বলাই বাহুল্য।

বই: ক্যাম্বোডিয়া ইতিহাসের মৃত্যু পাথরে জীবন

লেখক: অমল বন্দ্যোপাধ্যায়

প্রকাশক: রুপালি

দাম: ২০০ টাকা

বইটি কিনতে ফোন করুন ৯৪৩২০৬২৯২৮

ভ্রমণ সংক্রান্ত বই ছাড়াও আরও নানাধরনের বই প্রকাশ করে রুপালি। দেখতে এবং কিনতে এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

খবর অনলাইনে আরও পড়ুন :

পুস্তক পর্যালোচনা: মৃণাল সেনের অদ্বিতীয় পরিচয় তুলে ধরা হয়েছে ‘মৃণাল সেন অ্যান আনরিভিল্ড মিস্ট্রি প্রাইড অব বেঙ্গল’ বইয়ে

Continue Reading

বইপত্তর

পুস্তক পর্যালোচনা: মৃণাল সেনের অদ্বিতীয় পরিচয় তুলে ধরা হয়েছে ‘মৃণাল সেন অ্যান আনরিভিল্ড মিস্ট্রি প্রাইড অব বেঙ্গল’ বইয়ে

অধ্যাপক সৌমিক কান্তি ঘোষের ‘মৃণাল সেন অ্যান আনরিভিল্ড মিস্ট্রি প্রাইড অব বেঙ্গল’ শীর্ষক বইয়ে সিনেমাটোগ্রাফার হিসাবে, পরিচালক হিসাবে এবং সর্বোপরি অনন্য দর্শনশক্তি সম্পন্ন মানুষ হিসাবে মৃণাল সেনের অদ্বিতীয় পরিচয়টি তুলে ধরা হয়েছে।

Published

on

Mrinal Sen

মৃণাল সেন – আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন এক ব্যতিক্রমী চলচ্চিত্র পরিচালক। বাংলার সামাজিক-অর্থনৈতিক-রাজনৈতিক অবস্থার ছবি তুলে ধরে তিনি নতুন ধারার ভারতীয় চলচ্চিত্রের জ্ঞানতত্ত্বীয় সীমানাটা নতুন করে নির্ধারণ করেছেন। এ ক্ষেত্রে তাঁর অবদানের যথাযথ মূল্যায়ন কার্যত অসম্ভব।

অধ্যাপক সৌমিক কান্তি ঘোষের ‘মৃণাল সেন অ্যান আনরিভিল্ড মিস্ট্রি প্রাইড অব বেঙ্গল’ শীর্ষক বইয়ে সিনেমাটোগ্রাফার হিসাবে, পরিচালক হিসাবে এবং সর্বোপরি অনন্য দর্শনশক্তি সম্পন্ন মানুষ হিসাবে মৃণাল সেনের অদ্বিতীয় পরিচয়টি তুলে ধরা হয়েছে। সমাজের নিচুতলার মানুষজনের, শোষিত-নিপীড়িত মানুষজনের অভিজ্ঞতা চলচ্চিত্রায়িত করেছেন মৃণাল এবং তাঁর সেই চলচ্চিত্রায়ণকে সূক্ষ্ম বিচারবুদ্ধি দিয়ে বিশ্লেষণ করেছেন লেখক।

অনেকটা তাঁর চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যের প্রেক্ষিতে এ কথা বলাই যায় যে, film is by nature political…, অনেক মহতী মানুষই এ কথা উচ্চারণ করেছেন। চলচ্চিত্র তৈরি হয় তার বিষয়-প্রসঙ্গ, বক্তব্য, ভাবনা ও নন্দনতত্ত্ব সব মিলিয়ে। এই বইয়ে যেমন এক দিকে মৃণাল সেনের রাজনৈতিক সিনেমার প্রসঙ্গ উত্থাপিত হয়েছে, তেমনই তাঁর ব্যক্তিগত রাজনৈতিক মতাদর্শ বা বার্তা তাঁর চলচ্চিত্রে কী ভাবে বিশ্লেষিত হয়েছে তা-ও আলোচনা করার চেষ্টা করা হয়েছে।

মূলত কলকাতা ট্রিলোজি অর্থাৎ ‘ইন্টারভিউ’ (১৯৭১), ‘কলকাতা ৭১’ (১৯৭২) এবং ‘পদাতিক’ (১৯৭৩) ছবিগুলোই পর্যালোচনা ও বিশ্লেষণ করা হয়েছে এবং তার মাধ্যমে বিপ্লবের অনিবার্যতা এবং তার প্রেক্ষিতে মধ্যবিত্তের অবক্ষয়িত অস্তিত্বের সংকটকে তুলে ধরা হয়েছে।

এ বার লেখক নিয়ে দু’-চার কথা। অধ্যাপক সৌমিক কান্তি ঘোষ যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতি এবং ফিল্ম স্টাডিজ-এ স্নাতকোত্তর করে আপাতত বেলুড় লালবাবা কলেজে অর্থনীতির লেকচারার হিসাবে কর্মরত। এ ছাড়াও তিনি রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের জন সংযোগ বিভাগের সঙ্গে অতিথি অধ্যাপক হিসাবে যুক্ত। অর্থনীতির পাশাপাশি ফিল্ম স্টাডিজ নিয়ে তাঁর আগ্রহ বরাবরের আর তারই ফলশ্রুতি এই বই। লেখকের আশা, মৃণাল সেনকে নিয়ে তাঁর এই বই পাঠককুল বিপুল আগ্রহ নিয়ে পড়বেন।

বই: মৃণাল সেন অ্যান আনরিভিল্ড মিস্ট্রি প্রাইড অব বেঙ্গল (Mrinal Sen An Unrevealed Mistry Pride of Bengal)

লেখক: অধ্যাপক সৌমিক কান্তি ঘোষ

প্রকাশক: রুপালি

দাম: ১৫০.০০

ফোনেও বইটি অর্ডার করতে পারেন। ফোন করুন ৯৪৩২০৬২৯২৮ এই নম্বরে

Continue Reading

Amazon

Advertisement
বিদেশ2 hours ago

দরিদ্র দেশগুলির জন্য কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন বিমা প্রকল্পের পরিকল্পনা ‘হু’-র

kolkata High Court
রাজ্য2 hours ago

কোভিডরোগীদের জন্য মারণ হতে পারে বাজির ধোঁয়া, ঠেকাতে ফের আদালতে যাওয়ার প্রস্তুতি

Mayawati
দেশ2 hours ago

আর রাখঢাক নয়, এ বার বিজেপিকে সরাসরি ভোট দেওয়ার আহ্বান মায়াবতীর

দেশ3 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ৪৮,৬৪৮, সুস্থ ৫৭,৩৮৬

দেশ3 hours ago

স্বস্তি আরও বাড়িয়ে ভারতে সক্রিয় রোগী নামল ছ’লক্ষের নীচে, আপাতত চিন্তা দিল্লিকে নিয়ে

দেশ4 hours ago

কাশ্মীরে জঙ্গি হামলায় যুব সাধারণ সম্পাদক-সহ ৩ বিজেপি নেতা নিহত

Covid situation kolkata
কলকাতা4 hours ago

পাঁচ দিনে কমল সাড়ে চারশো, কলকাতায় সক্রিয় রোগীর সংখ্যা নামল ৭ হাজারের নীচে

দেশ5 hours ago

মুম্বইয়ে সকলের জন্য লোকাল ট্রেন চালু করছে মহারাষ্ট্র সরকার

দেশ3 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ৪৮,৬৪৮, সুস্থ ৫৭,৩৮৬

containment kolkata
কলকাতা2 days ago

লকডাউন নিয়ে গুজবের বিরুদ্ধে পুলিশি পদক্ষেপ

বিনোদন3 days ago

সিবিআই গ্রেফতার করতে পারে, আশঙ্কায় তড়িঘড়ি আদালতের দ্বারস্থ সুশান্ত সিং রাজপুতের দুই দিদি

কলকাতা2 days ago

বিসর্জনের আগেই আগুন, পুড়ে ছাই সল্টলেকের দুর্গাপুজো মণ্ডপ

উঃ ২৪ পরগনা2 days ago

সক্কালেই ফোন, টাটা ক্যানসার হসপিটালে রক্ত দিয়ে এলেন ১৪ জন স্বেচ্ছাসেবী

coronavirus
রাজ্য3 days ago

দেড় মাস পর রাজ্যে কমল সক্রিয় রোগী, নতুন সংক্রমণ নামল ৪ হাজারের নীচে

বিনোদন2 days ago

ভেন্টিলেশনেই সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, শুরু ডায়ালিসিস

বিনোদন3 days ago

চিকিৎসায় সাড়া দিচ্ছেন না সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, আরও সংকট, জানালেন চিকিৎসক

কেনাকাটা

কেনাকাটা16 hours ago

দীপাবলিতে ঘর সাজাতে লাইট কিনবেন? রইল ১০টি নতুন কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: আসছে আলোর উৎসব। কালীপুজো। প্রত্যেকেই নিজের বাড়িকে সুন্দর করে সাজায় নানান রকমের আলো দিয়ে। চাহিদার কথা মাথায় রেখে...

কেনাকাটা3 weeks ago

মেয়েদের কুর্তার নতুন কালেকশন, দাম ২৯৯ থেকে শুরু

খবর অনলাইন ডেস্ক: পুজো উপলক্ষ্যে নতুন নতুন কুর্তির কালেকশন রয়েছে অ্যামাজনে। দাম মোটামুটি নাগালের মধ্যে। তেমনই কয়েকটি রইল এখানে। প্রতিবেদন...

কেনাকাটা4 weeks ago

‘এরশা’-র আরও ১০টি শাড়ি, পুজো কালেকশন

খবর অনলাইন ডেস্ক : সামনেই পুজো আর পুজোর জন্য নতুন নতুন শাড়ির সম্ভার নিয়ে হাজর রয়েছে এরশা। এরসার শাড়ি পাওয়া...

কেনাকাটা4 weeks ago

‘এরশা’-র পুজো কালেকশনের ১০টি সেরা শাড়ি

খবর অনলাইন ডেস্ক : পুজো কালেকশনে হ্যান্ডলুম শাড়ির সম্ভার রয়েছে ‘এরশা’-র। রইল তাদের বেশ কয়েকটি শাড়ির কালেকশন অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন...

কেনাকাটা1 month ago

পুজো কালেকশনের ৮টি ব্যাগ, দাম ২১৯ টাকা থেকে শুরু

খবর অনলাইন ডেস্ক : এই বছরের পুজো মানে শুধুই পুজো নয়। এ হল নিউ নর্মাল পুজো। অর্থাৎ খালি আনন্দ করলে...

কেনাকাটা1 month ago

পছন্দসই নতুন ধরনের গয়নার কালেকশন, দাম ১৪৯ টাকা থেকে শুরু

খবর অনলাইন ডেস্ক : পুজোর সময় পোশাকের সঙ্গে মানানসই গয়না পরতে কার না মন চায়। তার জন্য নতুন গয়না কেনার...

কেনাকাটা1 month ago

নতুন কালেকশনের ১০টি জুতো, ১৯৯ টাকা থেকে শুরু

খবর অনলাইন ডেস্ক : পুজো এসে গিয়েছে। কেনাকাটি করে ফেলার এটিই সঠিক সময়। সে জামা হোক বা জুতো। তাই দেরি...

কেনাকাটা1 month ago

পুজো কালেকশনে ৬০০ থেকে ১০০০ টাকার মধ্যে চোখ ধাঁধানো ১০টি শাড়ি

খবর অনলাইন ডেস্ক: পুজোর কালেকশনের নতুন ধরনের কিছু শাড়ি যদি নাগালের মধ্যে পাওয়া যায় তা হলে মন্দ হয় না। তাও...

কেনাকাটা1 month ago

মহিলাদের পোশাকের পুজোর ১০টি কালেকশন, দাম ৮০০ টাকার মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : পুজো তো এসে গেল। অন্যান্য বছরের মতো না হলেও পুজো তো পুজোই। তাই কিছু হলেও তো নতুন...

কেনাকাটা1 month ago

সংসারের খুঁটিনাটি সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে এই জিনিসগুলির তুলনা নেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক : নিজের ও ঘরের প্রয়োজনে এমন অনেক কিছুই থাকে যেগুলি না থাকলে প্রতি দিনের জীবনে বেশ কিছু সমস্যার...

নজরে