ট্রয়ো

সত্যজিৎ রায়, মৃণাল সেন ও ঋত্বিক ঘটক – চলচ্চিত্রের ‘ত্রয়ী’। চলচ্চিত্র নিয়ে যে কোনো আলোচনায় এই ‘ত্রয়ী’র নাম প্রথমেই উঠে আসে। এঁদের সৃষ্টির ভাষা মূলত বাংলা হলেও এঁদের খ্যাতি ভারতবর্ষ ছাড়িয়ে পৌঁছে গিয়েছিল বিশ্বের চলচ্চিত্র অঙ্গনে। এই তিন পরিচালককে ভারতীয় চলচ্চিত্র জগতে নিউ ওয়েভ সিনেমার পথিকৃৎ বলা যায়।

সত্যজিতের জয়যাত্রা শুরু হয়েছিল ১৯৫৫-য় বিভূতিভূষণের ‘পথের পাঁচালী’ চলচ্চিত্রায়নের মধ্য দিয়ে। বহুমুখী প্রতিভাসম্পন্ন এই মানুষটি তাঁর চলচ্চিত্রজীবনে তথ্যচিত্র, শর্ট ফিল্ম ও ফিচার ফিল্ম নিয়ে মোট ৩৬টি চলচ্চিত্র পরিচালনা করেন।

Loading videos...

চলচ্চিত্রে মৃণাল সেনের কর্মকাণ্ডও শুরু হয়েছিল ১৯৫৫-য়, তাঁর পরিচালনায় মুক্তি পায় ‘রাত ভোরে’। ৪৭ বছরের চলচ্চিত্রজীবনে মৃণাল সেন বাংলা, হিন্দি, তেলুগু এবং ওড়িয়া ভাষায় মোট ২৭টি চলচ্চিত্র পরিচালনা করেন।

মাত্র ৫১ বছর বয়সেই জীবনদীপ নির্বাপিত হয়েছিল আরও এক প্রতিভাধর চলচ্চিত্র পরিচালক ঋত্বিক ঘটকের। বয়সে সত্যজিৎ-মৃণালের সামান্য ছোটো হলেও চলচ্চিত্র জগতে ঋত্বিকের প্রবেশ তাঁদের কিঞ্চিৎ আগেই। তাঁর পরিচালিত প্রথম ছবি ‘নাগরিক’ (১৯৫২)। এর দু’ বছর আগেই অবশ্য চলচ্চিত্রে তাঁর আত্মপ্রকাশ অভিনেতা ও সহকারী পরিচালক হিসাবে ‘ছিন্নমূল’ ছবিতে।        

বিশ্বের অন্যতম শ্রেষ্ঠ তিন পরিচালকের ক্যামেরায় তাঁদের ছবিগুলি হয়ে ওঠে মহাকাব্যিক। বাংলা চলচ্চিত্রের এই তিন স্রষ্টার নগরজীবন কেন্দ্রিক ছবিগুলি নিয়েই সৌমিক কান্তি ঘোষের সৃষ্টি ‘ট্রায়ো’।

লেখক ও প্রাবন্ধিক সৌমিক কান্তি ঘোষ পেশায় অর্থনীতির অধ্যাপক। বেলুড় লালবাবা কলেজে কর্মরত। এ ছাড়াও তিনি রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণজ্ঞাপন বিভাগের সঙ্গে অতিথি অধ্যাপক হিসাবে যুক্ত। পড়াশোনা যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতি এবং ফিল্ম স্টাডিজ নিয়ে। হিউম্যান রিসোর্সে এমবিএ করেছেন। ‘মৃণাল সেন অ্যান আনরিভিল্ড মিস্ট্রি প্রাইড অব বেঙ্গল’, ‘মাল্টিপ্লেক্স অ্যান্ড ইন্ডিয়ান পপুলার সিনেমা’ ছাড়াও বেশ কিছু টেক্সট বইয়ের প্রণেতা সৌমিক। লেখকের আশা, বাংলা চলচ্চিত্রের ত্রয়ীর সৃষ্টি নিয়ে লেখা তাঁর এই বই পাঠককুলের মধ্যে বিপুল আগ্রহের সৃষ্টি করবে।

বই: ট্রায়ো

লেখক: সৌমিক কান্তি ঘোষ

প্রকাশক: রুপালি

দাম: ১৭০ টাকা

বইটি অনলাইনে কিনতে এখানে ক্লিক করুন।

এছাড়া কলেজ স্ট্রিটের দেজ পাবলিশিং হাউজ ও দে বুক স্টোরে পাওয়া যাচ্ছে।

আরও পড়ুন: পুস্তক পর্যালোচনা: মৃণাল সেনের অদ্বিতীয় পরিচয় তুলে ধরা হয়েছে ‘মৃণাল সেন অ্যান আনরিভিল্ড মিস্ট্রি প্রাইড অব বেঙ্গল’ বইয়ে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.