Connect with us

অনুষ্ঠান

অনলাইনে ২৭ দিনব্যাপী শাস্ত্রীয় নৃত্যের অনুষ্ঠান, আয়োজনে অগ্নিবীণা ডান্স অ্যাকাডেমি

স্মিতা দাস

করোনাভাইরাসের অতিমারির কারণে বাতিল হয়েছে বহু অনুষ্ঠান থেকে পার্বণ। মানুষের স্বাভাবিক জীবনযাত্রাও গিয়েছে বদলে। নিউনর্মালে নতুন করে সব কিছু ভাবতে বাধ্য হচ্ছে মানুষকে। বাধ্য হচ্ছে নতুন অনেক কিছুকেই মেনে নিতে। তা বলে শিল্প কখনও থেমে থাকে না। তাই এখন শিল্পীরাও অনলাইনকে সম্বল করেই যাবতীয় আয়োজন করছেন। তেমনই একটি প্রচেষ্টা আগ্নিবীণা ডান্স অ্যাকাডেমির। প্রায় এক মাস ধরে চলছে তাদের রথযাত্রা উৎসব। রথযাত্রা থেকে প্রতিদিন নিয়ম করে চলছে নৃত্যানুষ্ঠান তাও অনলাইনে।

বীরভূমের রামপুর হাটের একটি প্রতিষ্ঠান অগ্নিবীণা ডান্স অ্যাকাডেমির। তার কর্ণধার প্রশান্ত (অঞ্চল) পাল। তিনি অনলাইনে এই এক মাস ব্যাপী নৃত্যানুষ্ঠানের আয়োজন করেছেন। অনুষ্ঠানটি শুরু হয়েছে ১৭ জুন থেকে চলবে ১৪ জুলাই পর্যন্ত।

প্রশান্ত বলেন, ইতিমধ্যেই হাজার হাজার ভিউ হয়েছে এই অনুষ্ঠানের। প্রচুর শুভ কামনায় ভরে গিয়েছে পেজ।

প্রশান্ত বলেন, আসলে পরিকল্পনা ছিল ভারতের সমস্ত শাস্ত্রীয় নৃত্যকে এক মঞ্চে তুলে ধরার। তাও দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের শিল্পীদের মাধ্যমে। কিন্তু তার পরই এই অতিমারির আবহ তৈরি হয়। আর সমস্ত পরিকল্পনাই আটকে যায়। শেষে অনলাইনে অনুষ্ঠানটি এই ভাবে নামানোর কথা মাথায় আসে। সঙ্গে সঙ্গে সেই মতোই আয়োজন শুরু হয়।

বলেন, ঠিক হয় রথযাত্রায় পরম প্রভু শ্রীশ্রী জগন্নাথদেবের শ্রীচরণকে স্মরণ করেই এই অনুষ্ঠান হবে। তার জন্য অনলাইনে প্রচার করা হয়। শিল্পীদের সঙ্গে যোগাযোগ করা, তাঁদের নাচের ভিডিও চেয়ে পাঠানো এবং তার এডিটিং শুরু হয়। অনুষ্ঠানটির নাম দেওয়া হয়, ‘নৃত্যমালিকা’।

দিল্লি, কলকাতা, অসম, হলদিয়া, শান্তিনিকেতন, বহরমপুর, জামসেদপুর, রামপুরহাট, দুর্গাপুর, সিউড়ী ও বারাসাত থেকে প্রায় ৩৫ জন নৃত্যশিল্পী এই অনুষ্ঠানে মিলিত হয়েছেন। তাঁদের মধ্যে রয়েছেন একাধিক সম্মানে সম্মানিত দূরদর্শনের শিল্পী ও আন্তর্জাতিক স্তরের বিশিষ্ঠ শিল্পী এবং আন্তর্জাতিক সম্মানে সম্মানিত নৃত্যশিল্পীও।

তাঁদের মধ্যে রয়েছেন, ড: সুমিত বসু, ড: অর্কদেব ভট্টাচার্য, কৃষ্ণেন্দু রায়, শৌভিক চক্রবর্তী, দীপ্তাংশু পাল, সুস্মিতা রায়, শুভ জেনা, শ্রীদীপ কর্মকার, অরিন্দম ব্যানার্জি, সন্দীপ বোস, বিল্টু সরকার, কুশল ভট্টাচার্য, দেবব্রত বড়ুয়া-সহ আরও অনেকেই।

পরিবেশিত হচ্ছে ভরতনাট্যম, কত্থক, মণিপুরী, কথাকলি, কুচিপুড়ি, মোহিনীআট্যম, গৌড়ীয় নৃত্য, ওড়িশি-সহ সকল ভারতীয় শাস্ত্রীয় নৃত্য।

অনুষ্ঠানটি দেখা যাচ্ছে প্রতি দিন বিকেল ৫টা থেকে। আগ্নিবীণা ডান্স অ্যাকাডেমির ফেসবুক পেজে।

আরও পড়ুন – ঘরোয়া আমেজে অনলাইনে রবীন্দ্রসংগীতের পেড প্রোগ্রাম করলেন মনোজ ও মনীষা মুরলী নায়ার

Advertisement
Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

অনুষ্ঠান

বাইশে শ্রাবণ উপলক্ষ্যে বাগুইআটি নৃত্যাঙ্গনের নিবেদন ‘ভুবনজোড়া আসনখানি’, দেখা যাবে অনলাইনে

স্মিতা দাস

বাইশে শ্রাবণ শুধু মহাপ্রয়াণ নয়, পরমাত্মার সঙ্গে মহামানবের মিলনোৎসবের দিনও বটে। আশি বছর চলল। আমাদের প্রাণের ঠাকুর, রবিঠাকুর ইহজগৎ ত্যাগ করলেও মানুষের মনের সংসারের পরতে পরতে তিনিও আজও আছেন এবং থাকবেনও চিরকাল। তাই শুধু মাত্র একটি-দু’টি দিন নয়, জীবনের প্রত্যেকটি দিনই নিজেদের কাজেকর্মের মধ্যে দিয়ে তিনি চিরস্মরণীয়। কিন্তু তবু মন মানে না। ঠাকুরের পায়ে শ্রদ্ধাঞ্জলি জ্ঞাপনের কিছু বিশেষ দিনের অবকাশ খুঁজে ফেরা মন তাই ফিরে ফিরে স্মরণ করে বাইশে শ্রাবণ। এই বছরে বাইশে শ্রাবণে বাগুইআটি নৃত্যাঙ্গনের নিবেদন ‘ভুবনজোড়া আসনখানি’।

বিশ্ব জুড়ে করোনার অতিমারির মধ্যেও সমস্ত বিধিনিষেধ মেনে এই বিশেষ শ্রদ্ধাঞ্জলি জ্ঞাপনের প্রয়াস বাগুইআটি নৃত্যাঙ্গনের। তাদের ভাবনায় অঙ্গীকারে বাইশে শ্রাবণ হয়ে উঠুক তাঁর মহাজীবনের উদযাপন, নব প্রজন্মের সঙ্গে তাঁর সেতুবন্ধনের দিন ও তাঁর প্রাণের বাংলাকে বাঁচানোর দিন। প্রাণের ঠাকুরের আশ্রয় এসে এ হয়তো এক অর্থে শান্তি-সন্ধানের প্রয়াসও।

প্রসঙ্গত পঁচিশে বৈশাখ থেকে শুরু করে এক সপ্তাহ চলেছিল বাগুইআটি নৃত্যাঙ্গনের ‘রবীন্দ্র জয়ন্তী’। দুই বাংলার বাঙালিদের প্রযুক্তির সুতোয় বেঁধে হয়েছিল সেই উদযাপন।

এ বার বাইশে শ্রাবণে আরও ব্যাপ্ত সেই পরিধি। অনুষ্ঠানের সূচনা হবে নিমতলা মহাশ্মশানে কবির সমাধিতে শ্রদ্ধা অর্পণের মাধ্যমে। তার পর সেখান থেকে জোড়াসাঁকো হয়ে রবীন্দ্রভারতী এবং বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়।

অনুষ্ঠানে থাকবেন পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জেলার শিল্পীরা। পাশাপাশি অসমের গুয়াহাটি, ত্রিপুরা, শিলচর, জামশেদপুর, রাঁচি ও অন্যান্য অঞ্চলের রবীন্দ্র অনুরাগী এবং  শিল্পীরাও এই অনুষ্ঠানে থাকবেন। সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশের শিল্পীরা, অতলান্তিকের ও-পার থেকে কানাডা, ব্রিটেন ও আমেরিকার শিল্পীরাও থাকবেন।

সমগ্র অনুষ্ঠানটির একটি বড়ো অংশই সরাসরি সম্প্রচারিত হবে। সপ্তাহব্যাপী এই অনুষ্ঠান চলবে প্রতি দিন ভারতীয় সময় সন্ধ্যা সাতটায়। সাত তারিখে সরাসরি দেখানো হবে সকালে দশটা থেকে। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করবেন মধুমিতা বসু। পরিচালনায় জয়িতা বিশ্বাস।

অনুষ্ঠানের প্রথম দিনের শিল্পী ও অতিথিবৃন্দ সুমিত্রা সেন, শ্রাবণী সেন, শিক্ষাবিদ পবিত্র সরকার, নৃত্যশিল্পী পলি গুহ, কবি হাসমত জালাল ও বাংলাদেশের বিশিষ্ট কবি ও সংগীতশিল্পী বুলবুল মহলানবীশ ও কবি মোহসেনা হোসেন ইলোরা, ত্রিপুরা থেকে তিথি দেব বর্মন। এ ছাড়াও ইন্দ্রানী সেন, মোহন সিং খানগুরা, দূর্বা সিং খানগুরা, চন্দ্রাবলী রুদ্র দত্ত, প্রদীপ দত্ত, দীপাবলি দত্ত, ডাঃ তানিয়া দাস, প্রণতি ঠাকুর, শুভময় সেন, পৌষালী রুদ্র বসু, বিশ্বজিৎ দাস গুপ্ত, জামশেদপুর থেকে চন্দনা চৌধুরী, রাঁচির সুবীর লাহিড়ী যোগ দেবেন।

বাংলাদেশ থেকে যাঁরা থাকছেন

ওই অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ থেকে যাঁরা যোগ দিচ্ছেন তাঁরা হলেন বুলবুল মহলানবীশ, শামসুল হুদা,  ঝর্না রহমান, বর্ণালী সরকার, বেলায়েত হোসেন, বর্ণালী বিশ্বাস শান্তা, সালমা আকবর, সাজেদ আকবর, মীরা মণ্ডল, নায়ীমা রুমান রুমা, শিমুল পারভীন, নিমাই মণ্ডল, আজিজুর রহমান আজিজ (সভাপতি, রবীন্দ্র একাডেমি, বাংলাদেশ), সুবর্ণা রহমান, গোলাম হায়দার প্রমুখ।

ইউরোপ-আমেরিকা থেকে যাঁরা থাকছেন

ও দিনের অনুষ্ঠানে যোগ দেবে সুদূর ইংল্যান্ডের বার্মিংহাম থেকে মিডল্যান্ডস বেঙ্গলি অ্যাসোসিয়েশন। সংস্থার সাংস্কৃতিক সম্পাদক দেবলীনা মজুমদার প্রারম্ভিক বক্তৃতা দেবেন। অনুষ্ঠানে নৃত্য পরিবেশন করবেন অহনা বিশ্বাস ও আত্রেয়ী ভট্টাচার্য, বেহালা বাজাবেন রিতিশা বৈদ্যরায় এবং আবৃত্তি করবেন মৌমিতা চট্টোপাধ্যায়।   

ফ্লোরিডা থেকে যোগ দিচ্ছেন বিজয়া সেনগুপ্ত, কানাডা থেকে মুনিরা সুলতানা মিলি  এবং আরও অনেকে। এ ছাড়াও দেশ-বিদেশের অনেক বুদ্ধিজীবীও থাকবেন।

দেখা যাবে বাগুইআটি নৃত্যাঙ্গনের ইউটিউব ও ফেসবুক পেজে।  

আরও – আন্তর্জাতিক নৃত্য উৎসব ‘নৃত্যমালিকা’ শুরু হচ্ছে, দেখা যাবে ফেসবুকে

Continue Reading

অনুষ্ঠান

আন্তর্জাতিক নৃত্য উৎসব ‘নৃত্যমালিকা’ শুরু হচ্ছে, দেখা যাবে ফেসবুকে

sejuti

স্মিতা দাস

‘নৃত্যমালিকা’ – একগুচ্ছ রবীন্দ্রনৃত্য ও সৃজনশীল নৃত্যের ডালি। আন্তর্জাতিক নৃত্য উৎসব ‘নৃত্যমালিকা’। পলি গুহ পরিচালিত ‘ইন্ডিয়ান কালচারাল ট্রুপ’-এর প্রযোজনায় অনলাইন আন্তর্জাতিক সৃজনশীল ও রবীন্দ্র নৃত্য উৎসব ‘নৃত্যমালিকা’। অনুষ্ঠানটির পরিকল্পনায় সেঁজুতী গুহ রায়। গোটা আগস্ট মাসের প্রতি শনি ও রবিবার সন্ধ্যা ৭টায় ফেসবুকে সম্প্রচারিত হবে এই নৃত্যানুষ্ঠান।

আন্তর্জাতিক এই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করবেন নৃত্যজগতের খ্যাতনামা আট শিল্পী। থাকছেন পলি গুহ, প্রদীপ্ত নিয়োগী, অনুরাধা নিয়োগী, সুজয় ঠাকুর, কাশ্মীরা সামন্ত, ওয়ার্দা রিহাব, জয়দীপ পালিত, জয়িতা বিশ্বাস।

সেঁজুতী বলেন, লকডাউন চলাকালীন আজ পর্যন্ত খালি শাস্ত্রীয় নৃত্য নিয়ে প্রচুর অনলাইন নৃত্য উৎসব হয়েছে। কিন্তু রবীন্দ্র ও সৃজনশীল নৃত্য নিয়ে এটিই প্রথম। তাঁর কথায় ভারতবর্ষের নৃত্যশৈলীকে জানতে হলে শুধু ক্লাসিক্যাল নয়, এই সমস্ত রকমের নৃত্যকেই জানা প্রয়োজন। কিন্তু বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই তা হয় না। রবীন্দ্র ও সৃজনশীল আধুনিক নৃত্য আড়ালেই থেকে যাচ্ছে। তাকে বের করে আনতে হবে জগতের দরবারে। তাই এই বিশেষ প্রচেষ্টা। অনুষ্ঠানটি দেখা যাবে এই লিঙ্কে।

অনুষ্ঠানটি শুরু হবে নৃত্যশিল্পী পলি গুহের নিবেদন দিয়ে। শেষ দিনেও থাকছে তাঁর নিবেদন। সঙ্গে থাকবে ট্রুপের ছাত্রীবৃন্দের নিবেদনও।

এই গোটা কর্মকাণ্ডটি করতে সেঁজুতীকে সাহায্য করেছেন, সৌমিক ব্যানার্জি,  ঋতুরাজ প্রামাণিক, স্বাগতা মাইতি গাঙ্গুলি।  

আরও পড়ুন – শেষ হবে করোনা-কাল, নতুন দিশা দেখাবে বিশ্বমাতা, শিল্পীর রং-তুলিতে সেই ভবিষ্যতের ছবি

Continue Reading

অনুষ্ঠান

ঘরোয়া আমেজে অনলাইনে রবীন্দ্রসংগীতের অনুষ্ঠান করলেন মনোজ ও মনীষা মুরলী নায়ার

প্রথমে প্রচার, তার পর টিকিট বিক্রি আর তার পর অনুষ্ঠান।

স্মিতা দাস

করোনাভাইরাস বদলে দিল জীবন। মঞ্চ শিল্পীরাও এখন অনলাইন কনসার্ট করছেন। রবীন্দ্রসংগীত শিল্পীরাও পিছিয়ে নেই। সম্প্রতি রবীন্দ্রসংগীত শিল্পী মনোজ মুরলী নায়ার ও মনীষা  মুরলী নায়ার অনলাইন কনসার্টের আয়োজন করেছিলেন। অনুষ্ঠানের নাম ছিল ‘শ্রাবণেরও দিন যায়’। প্রথমে প্রচার, তার পর টিকিট বিক্রি আর তার পর অনুষ্ঠান ও তাতে দর্শক শ্রোতাদের উপস্থিত হওয়া – এই সবটাই হয়েছে অনলাইনে। সাড়া কেমন পেলেন? তার উত্তর দিয়েছেন শিল্পী নিজে।

জনপ্রিয় শিল্পী মনোজ ও মনীষা। শিল্পী মনোজ মুরলী নায়ার বলেন, জীবনের এই মোড়ে এসে সবটাই কেমন বদলে গিয়েছে। এমনটা কেউ কখনওই ভাবেনি। অথচ সব বদলে গেল। এখন জীবন জীবিকার তাগিদে প্রায় চার মাস পরে এসে এ বার ভাবতেই হচ্ছে এমন কিছু নিয়েই। তাই অবশেষে এমন একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন। এখন প্রযুক্তিকে সঙ্গে নিয়ে সকলেই এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছে। তাঁরাও করেছেন।

মনোজ বলেন, মঞ্চে হাজার হাজার মানুষের সামনে তাঁদের প্রত্যক্ষ প্রতিক্রিয়া দেখে অনুষ্ঠান করতে অভ্যাস তাঁদের। বিশেষ করে বিষয়টি যখন রবীন্দ্রসংগীত, সেখানে দর্শক শ্রোতাদের প্রতিক্রিয়া, ঘাড়নাড়া ইত্যাদিই গান গাইতে উৎসাহ যোগায়। সেখানে অনলাইনে তার কিছুই উপলব্ধি হয় না। তবে, হ্যাঁ নতুন অভিজ্ঞতাও মন্দ নয়।

এটি ছিল তাঁদের প্রথম অনলাইন পেড প্রোগ্রাম। সোশ্যাল মাধ্যমেই সব কিছু। লাইভ, ভিডিও ক্লিপিং দিয়ে প্রচার করেছেন। তিনি বলেন, বহু বয়স্ক মানুষ আছেন যাঁরা রবীন্দ্রসংগীতের অনুরাগী কিন্তু স্মার্টফোন বা সোশ্যালমাধ্যমগুলিতে অভ্যস্ত নন। তাঁদের খুবই অসুবিধা হয়। অন্যের সাহায্যের অপেক্ষায় থাকতে হয়। তবুও তেমন ভাবেও বহু শ্রোতা এই অনুষ্ঠানে এসেছিলেন। সেই নিরিখে শিল্পী হিসাবে তিনি খুবই খুশি।

টিকিটের দাম কী রকম ছিল

মনোজ মুরলী নায়ার জানান, ভারতীয়দের জন্য ১০০ টাকা। এ ছাড়া বিদেশে ১০ ডলার, বা পাউন্ড ইত্যাদি। সব মিলিয়ে প্রায় ৩১৫টি মতো টিকিট বিক্রি হয়েছিল। কারণ এটাই ছিল প্রথম বার। তিনি বলেন, মঞ্চে কনসার্ট হলে একটা টিকিটে একজনই আসেন। কিন্তু অনলাইনে তা সম্ভব নয়। একটা টিকিটে সারা বাড়ির সকল সদস্যই দেখতে পারেন। ফলে এ ক্ষেত্রে একটা প্রতিকূলতা তো রয়েইছে। সুতরাং খুব একটা যে লাভবান বিষয় তা কিন্তু নয়।

সমস্যা কিছু হয়নি?

মনোজ মুরলী নায়ার বলেন, মিউজিশিয়ান নিয়ে এই রকম অনুষ্ঠান করলে সেখানে খরচ অনেক বেশি হয়। এটা যে হেতু রবীন্দ্রনাথের গান, আর মানুষ যে কোনো পরিস্থিতিতে, এমনকি এই সময় এই যুগেও তা শুনতে ভালোবাসেন তাই সম্ভব হয়েছিল ঘরোয়া আমেজে শোনানো। কিন্তু অন্য ধরনের গান হলে তা সম্ভব নয়।

কতগুলি গান ছিল

প্রায় ২০টি গান ছিল। একক আর দ্বৈত মিলিয়ে। তার মধ্যে ছিল ‘ধরণীর গগনের’, ‘মেঘের পরে মেঘ জমেছে’, ‘আজি ঝরঝর মুখর বাদল দিনে’, ‘মধু গন্ধে ভরা’ ইত্যাদি।

ভবিষ্যতে কি এমন অনুষ্ঠান আবার করবেন

শিল্পী দৃঢ় প্রত্যয়ে জানালেন, নিশ্চয়ই করবেন। তাঁর কথায়, আবার তাঁরা এই ভাবেই অনুষ্ঠান করবেন। এটা ছিল শুরু।  

দেখুন – ৮০-র পরেও নতুন অভিজ্ঞতার ‘শ্যামা’য় তিনি অভিভূত, বললেন সত্তরোর্ধ্ব নৃত্যশিল্পী পলি গুহ

Continue Reading
Advertisement
Advertisement

রবিবারের খবর অনলাইন

কেনাকাটা

কেনাকাটা4 days ago

ঘর ও রান্নাঘরের সরঞ্জাম কিনতে চান? অ্যামাজন প্রাইম ডিলে রয়েছে ৫০% পর্যন্ত ছাড়

খবরঅনলাইন ডেস্ক : অ্যামাজন প্রাইম ডিলে রয়েছে ঘর আর রান্না ঘরের একাধিক সামগ্রিতে প্রচুর ছাড়। এই সেলে পাওয়া যাচ্ছে ওয়াটার...

কেনাকাটা4 days ago

এই ১০টির মধ্যে আপনার প্রয়োজনীয় প্রোডাক্টটি প্রাইম ডে সেলে কিনতে পারেন

খবরঅনলাইন ডেস্ক : চলছে অ্যামাজনের প্রাইমডে সেল। প্রচুর সামগ্রীর ওপর রয়েছে অনেক ছাড়। ৬ ও ৭  তারিখ চলবে এই সেল।...

কেনাকাটা4 days ago

শুরু হল অ্যামাজন প্রাইম ডে সেল, জেনে নিন কোন জিনিসে কত ছাড়

খবরঅনলাইন ডেস্: শুরু হল অ্যামাজন প্রাইম ডে সেল। চলবে ২ দিন। চলতি মাসের ৬ ও ৭ তারিখ থাকছে এই অফার।...

things things
কেনাকাটা1 week ago

করোনা আতঙ্ক? ঘরে বাইরে এই ১০টি জিনিস আপনাকে সুবিধে দেবেই দেবে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : করোনা পরিস্থিতিতে ঘরে এবং বাইরে নানাবিধ সাবধানতা অবলম্বন করতেই হচ্ছে। আগামী বেশ কয়েক মাস এই নিয়মই অব্যাহত...

কেনাকাটা2 weeks ago

মশার জ্বালায় জেরবার? এই ১৪টি যন্ত্র রুখে দিতে পারে মশাকে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: একে করোনা তায় আবার ডেঙ্গুর প্রকোপ শুরু হয়েছে। এই সময় প্রতি বারই মশার উৎপাত খুবই বাড়ে। এই বারেও...

rakhi rakhi
কেনাকাটা2 weeks ago

লকডাউন! রাখির দারুণ এই উপহারগুলি কিন্তু বাড়ি বসেই কিনতে পারেন

সামনেই রাখি। কিন্তু লকডাউনের মধ্যে মনের মতো উপহার কেনা একটা বড়ো ঝক্কি। কিন্তু সেই সমস্যা সমাধান করতে পারে অ্যামাজন। অ্যামাজনের...

কেনাকাটা3 weeks ago

অনলাইনে পড়াশুনা চলছে? ল্যাপটপ কিনবেন? দেখে নিন ৪০ হাজার টাকার নীচে ৬টি ল্যাপটপ

ইনটেল প্রসেসর সহ কোন ল্যাপটপ আপনার অনলাইন পড়াশুনার কাজে লাগবে জেনে নিন।

কেনাকাটা3 weeks ago

করোনা-কালে ঘরে রাখতে পারেন ডিজিটাল অক্সিমিটার, এই ১০টির মধ্যে থেকে একটি বেছে নিতে পারেন

শরীরে অক্সিজেনের মাত্রা বুঝতে সাহায্য করে এই অক্সিমিটার।

কেনাকাটা3 weeks ago

লকডাউনে সামনেই রাখি, কোথা থেকে কিনবেন? অ্যামাজন দিচ্ছে দারুণ গিফট কম্বো অফার

খবরঅনলাইন ডেস্ক : সামনেই রাখি। কিন্তু লকডাউনের মধ্যে দোকানে গিয়ে রাখি, উপহার কেনা খুবই সমস্যার কথা। কিন্তু তা হলে উপায়...

laptop laptop
কেনাকাটা4 weeks ago

ল্যাপটপ কিনবেন? দেখে নিন ২৫ হাজার টাকার মধ্যে এই ৫টি ল্যাপটপ

খবরঅনলাইন ডেস্ক : কোভিভ ১৯ অতিমারির প্রকোপে বিশ্ব জুড়ে চলছে লকডাউন ও ওয়ার্ক ফ্রম হোম। অনেকেই অফিস থেকে ল্যাপটপ পেয়েছেন।...

নজরে

Click To Expand