Connect with us

গান-বাজনা

প্রাণবন্ত সংগীত-সন্ধ্যা উপহার দিলেন অলক রায়চৌধুরী

পাপিয়া মিত্র

সম্প্রতি রবীন্দ্র সদন প্রেক্ষাগৃহ এমন বাংলা গানে পূর্ণ থাকবে ভাবা যায়নি। সত্তরোত্তীর্ণ শ্রোতার পাশাপাশি যুবক-যুবতীর ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতো। সে দিন যিনি সংগীত পরিবেশন করেছিলেন তিনি যে সকলের প্রিয় ও অত্যন্ত কাছের মানুষ, তা প্রমাণ করল রবীন্দ্র সদনের মতো এক প্রেক্ষাগৃহ। তিনি সকলের প্রিয় অলক রায়চৌধুরী।

জীবনের ৬০ বছর ও সংগীতজীবনের চার দশক পার হওয়া হাসিমুখের বিশিষ্ট শিল্পীর অনুষ্ঠান থাকলে বহু মানুষ আজও বাংলা গান শোনার জন্য ভিড় জমান। কেমন অনুভূতি ছিল একক সংগীত পরিবেশন করে? তাঁর অকপট স্বীকারোক্তি – এটা তাঁর প্রথম একক অনুষ্ঠান নয়। তবে ভালো লেগেছে এই ভেবে যে তাঁর ছাত্র সুমন পান্থীর উদ্যোগে অনন্য মিউজিক এই দায়িত্ব নেওয়ায়। আর বেশির ভাগ মানুষ যেখানে বাংলা গান শোনে না, সেখানে উপস্থিতির হার দেখে তিনি অভিভূত।

সম্মাননার প্রত্যুত্তরে অলক। পাশে ইন্দ্রাণী সেন।

অনুষ্ঠানের শিরোনাম ছিল, ‘জীবনের ৬০, গানের ৪৪-এ অলক’। অনুষ্ঠান শুরু হয় শিল্পী সম্পর্কে দীর্ঘদিনের বন্ধু ইন্দ্রাণী সেনের প্রাককথন দিয়ে। শিল্পী ইন্দ্রাণী সেনকে স্মারক দিয়ে সম্মাননা জানানো হয় অনন্য মিউজিকের পক্ষ থেকে।

কথায়, গানে শুরু হয় শিল্পীর পরিবেশন। গানের প্রেক্ষাপট বলে শুরু করেন রবীন্দ্রসংগীত দিয়ে – ‘সেই তো আমি চাই’। শেষ হয় ৭০-৮০ জন ছাত্রছাত্রীকে নিয়ে ‘পুরানো সেই দিনের কথা’য়। মাঝে কী হল? ১৬টি গান শুনিয়েছেন শিল্পী। কথা দিয়ে গান। ছিল অতুলপ্রসাদ, দ্বিজেন্দ্রগীতি, ভজন, নিধুবাবুর গান, জগন্ময় মিত্রের ‘চিঠি’, হেমন্তর ‘নীল আকাশের নীচে পৃথিবী’, মৃণাল চক্রবর্তীর ‘খোলা জানালার ধারে’, পিন্টু ভট্টাচার্য-সহ বাংলা আধুনিক গানের মালা। ছাত্রদের সঙ্গে গাইলেন মাইকেলের লেখা ‘বিদ্যাসাগর তুমি বিখ্যাত ভারতে’, সুরারোপ করেছেন শিল্পী নিজেই। শিল্পীর নিজের দল ‘রবিছন্দম’, ‘রম্যবীণা’, ‘সুরসপ্তক’, ‘মল্লার’ ও ‘রবিস্পন্দন’। ‘রবিস্পন্দন’ অনুষ্ঠানের সূচনা করে। আর ছিল বিশিষ্ট শিল্পী নমিতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ‘মুক্তধারা শিল্পী গোষ্ঠী’। প্রতি দল দু’টি করে সংগীত পরিবেশন করে। ‘বাসন্তী  হে ভূবনমোহিনী’ সংগীত পরিবেশন করে শিল্পীকে শ্রদ্ধা জানান সুমন পান্থী। গীতবিতান  প্রাক্তনীও দু’টি  গান পরিবেশন করে।

অনুষ্ঠানে সম্মেলক সংগীত।

এ হেন শিল্পীর জীবনে সংগীত কী ভাবে এল, সেটা জানার আগ্রহ ছিল বিপুল। বয়স তখন চার কি পাঁচ। বাড়িতে মায়ের একটা হারমোনিয়াম ছিল। মায়ের কাছে সেই হারমোনিয়ামেই হাতেখড়ি। পরে প্রথাগত ভাবে বাড়িতে শিখিয়েছেন হরিপদ সাহা। তা প্রায় গ্র্যাজুয়েশন পর্যন্ত। পরে ‘দক্ষিণী’তে। ইতিমধ্যে বয়স যখন ২৫-এর ঘরে, পার্টটাইম লেকচারারশিপ জুটে যায় রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে এবং তা চলে ২০০০ পর্যন্ত। দীর্ঘ ১৫ বছর চাকরির সঙ্গে সংগীতচর্চা, মন ঠিক সায় দিচ্ছিল না। সব ছেড়ে একেবারে ডুব সুরসাগরে।

আরও পড়ুন: ‘সংযোগ’-এর বসন্ত উৎসবের অনুষ্ঠান এক মনোজ্ঞ সন্ধ্যা উপহার দিল

তাই হয়তো সব ধরনের গানে শিল্পী এতটাই সাবলীল। শিল্পীর আরও এক পরিচিতি পুরাতনী গানে এবং প্যারোডিতে। আর একটি বিশেষত্ব। যখন যে শিল্পীরই গান শোনা যায় তাঁর কণ্ঠে, মনে হয় যেন হেমন্ত, মান্না, শ্যামল বা মৃণাল গাইছেন। এ-ও তো এক অসাধারণ স্বকীয়তা।

যন্ত্রে শিল্পীকে সহযোগিতা করেন দেবাশিস সাহা, স্বপন অধিকারী, অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়, শম্ভু দাস ও তপন চাকী। মঞ্চ ও ধ্বনির দায়িত্বে ছিলেন যথাক্রমে সুধীররঞ্জন মুখোপাধ্যায় ও হাসি পাঞ্চাল। শ্রীপর্ণা আঢ্যর দক্ষ সংযোজনায় এ দিনের অনুষ্ঠান সর্বাঙ্গসুন্দর হয়ে ওঠে।

ছবি: সংগৃহীত

অনুষ্ঠান

বাইশে শ্রাবণ উপলক্ষ্যে বাগুইআটি নৃত্যাঙ্গনের নিবেদন ‘ভুবনজোড়া আসনখানি’, দেখা যাবে অনলাইনে

স্মিতা দাস

বাইশে শ্রাবণ শুধু মহাপ্রয়াণ নয়, পরমাত্মার সঙ্গে মহামানবের মিলনোৎসবের দিনও বটে। আশি বছর চলল। আমাদের প্রাণের ঠাকুর, রবিঠাকুর ইহজগৎ ত্যাগ করলেও মানুষের মনের সংসারের পরতে পরতে তিনিও আজও আছেন এবং থাকবেনও চিরকাল। তাই শুধু মাত্র একটি-দু’টি দিন নয়, জীবনের প্রত্যেকটি দিনই নিজেদের কাজেকর্মের মধ্যে দিয়ে তিনি চিরস্মরণীয়। কিন্তু তবু মন মানে না। ঠাকুরের পায়ে শ্রদ্ধাঞ্জলি জ্ঞাপনের কিছু বিশেষ দিনের অবকাশ খুঁজে ফেরা মন তাই ফিরে ফিরে স্মরণ করে বাইশে শ্রাবণ। এই বছরে বাইশে শ্রাবণে বাগুইআটি নৃত্যাঙ্গনের নিবেদন ‘ভুবনজোড়া আসনখানি’।

বিশ্ব জুড়ে করোনার অতিমারির মধ্যেও সমস্ত বিধিনিষেধ মেনে এই বিশেষ শ্রদ্ধাঞ্জলি জ্ঞাপনের প্রয়াস বাগুইআটি নৃত্যাঙ্গনের। তাদের ভাবনায় অঙ্গীকারে বাইশে শ্রাবণ হয়ে উঠুক তাঁর মহাজীবনের উদযাপন, নব প্রজন্মের সঙ্গে তাঁর সেতুবন্ধনের দিন ও তাঁর প্রাণের বাংলাকে বাঁচানোর দিন। প্রাণের ঠাকুরের আশ্রয় এসে এ হয়তো এক অর্থে শান্তি-সন্ধানের প্রয়াসও।

প্রসঙ্গত পঁচিশে বৈশাখ থেকে শুরু করে এক সপ্তাহ চলেছিল বাগুইআটি নৃত্যাঙ্গনের ‘রবীন্দ্র জয়ন্তী’। দুই বাংলার বাঙালিদের প্রযুক্তির সুতোয় বেঁধে হয়েছিল সেই উদযাপন।

এ বার বাইশে শ্রাবণে আরও ব্যাপ্ত সেই পরিধি। অনুষ্ঠানের সূচনা হবে নিমতলা মহাশ্মশানে কবির সমাধিতে শ্রদ্ধা অর্পণের মাধ্যমে। তার পর সেখান থেকে জোড়াসাঁকো হয়ে রবীন্দ্রভারতী এবং বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়।

অনুষ্ঠানে থাকবেন পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জেলার শিল্পীরা। পাশাপাশি অসমের গুয়াহাটি, ত্রিপুরা, শিলচর, জামশেদপুর, রাঁচি ও অন্যান্য অঞ্চলের রবীন্দ্র অনুরাগী এবং  শিল্পীরাও এই অনুষ্ঠানে থাকবেন। সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশের শিল্পীরা, অতলান্তিকের ও-পার থেকে কানাডা, ব্রিটেন ও আমেরিকার শিল্পীরাও থাকবেন।

সমগ্র অনুষ্ঠানটির একটি বড়ো অংশই সরাসরি সম্প্রচারিত হবে। সপ্তাহব্যাপী এই অনুষ্ঠান চলবে প্রতি দিন ভারতীয় সময় সন্ধ্যা সাতটায়। সাত তারিখে সরাসরি দেখানো হবে সকালে দশটা থেকে। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করবেন মধুমিতা বসু। পরিচালনায় জয়িতা বিশ্বাস।

অনুষ্ঠানের প্রথম দিনের শিল্পী ও অতিথিবৃন্দ সুমিত্রা সেন, শ্রাবণী সেন, শিক্ষাবিদ পবিত্র সরকার, নৃত্যশিল্পী পলি গুহ, কবি হাসমত জালাল ও বাংলাদেশের বিশিষ্ট কবি ও সংগীতশিল্পী বুলবুল মহলানবীশ ও কবি মোহসেনা হোসেন ইলোরা, ত্রিপুরা থেকে তিথি দেব বর্মন। এ ছাড়াও ইন্দ্রানী সেন, মোহন সিং খানগুরা, দূর্বা সিং খানগুরা, চন্দ্রাবলী রুদ্র দত্ত, প্রদীপ দত্ত, দীপাবলি দত্ত, ডাঃ তানিয়া দাস, প্রণতি ঠাকুর, শুভময় সেন, পৌষালী রুদ্র বসু, বিশ্বজিৎ দাস গুপ্ত, জামশেদপুর থেকে চন্দনা চৌধুরী, রাঁচির সুবীর লাহিড়ী যোগ দেবেন।

বাংলাদেশ থেকে যাঁরা থাকছেন

ওই অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ থেকে যাঁরা যোগ দিচ্ছেন তাঁরা হলেন বুলবুল মহলানবীশ, শামসুল হুদা,  ঝর্না রহমান, বর্ণালী সরকার, বেলায়েত হোসেন, বর্ণালী বিশ্বাস শান্তা, সালমা আকবর, সাজেদ আকবর, মীরা মণ্ডল, নায়ীমা রুমান রুমা, শিমুল পারভীন, নিমাই মণ্ডল, আজিজুর রহমান আজিজ (সভাপতি, রবীন্দ্র একাডেমি, বাংলাদেশ), সুবর্ণা রহমান, গোলাম হায়দার প্রমুখ।

ইউরোপ-আমেরিকা থেকে যাঁরা থাকছেন

ও দিনের অনুষ্ঠানে যোগ দেবে সুদূর ইংল্যান্ডের বার্মিংহাম থেকে মিডল্যান্ডস বেঙ্গলি অ্যাসোসিয়েশন। সংস্থার সাংস্কৃতিক সম্পাদক দেবলীনা মজুমদার প্রারম্ভিক বক্তৃতা দেবেন। অনুষ্ঠানে নৃত্য পরিবেশন করবেন অহনা বিশ্বাস ও আত্রেয়ী ভট্টাচার্য, বেহালা বাজাবেন রিতিশা বৈদ্যরায় এবং আবৃত্তি করবেন মৌমিতা চট্টোপাধ্যায়।   

ফ্লোরিডা থেকে যোগ দিচ্ছেন বিজয়া সেনগুপ্ত, কানাডা থেকে মুনিরা সুলতানা মিলি  এবং আরও অনেকে। এ ছাড়াও দেশ-বিদেশের অনেক বুদ্ধিজীবীও থাকবেন।

দেখা যাবে বাগুইআটি নৃত্যাঙ্গনের ইউটিউব ও ফেসবুক পেজে।  

আরও – আন্তর্জাতিক নৃত্য উৎসব ‘নৃত্যমালিকা’ শুরু হচ্ছে, দেখা যাবে ফেসবুকে

Continue Reading

অনুষ্ঠান

আন্তর্জাতিক নৃত্য উৎসব ‘নৃত্যমালিকা’ শুরু হচ্ছে, দেখা যাবে ফেসবুকে

sejuti

স্মিতা দাস

‘নৃত্যমালিকা’ – একগুচ্ছ রবীন্দ্রনৃত্য ও সৃজনশীল নৃত্যের ডালি। আন্তর্জাতিক নৃত্য উৎসব ‘নৃত্যমালিকা’। পলি গুহ পরিচালিত ‘ইন্ডিয়ান কালচারাল ট্রুপ’-এর প্রযোজনায় অনলাইন আন্তর্জাতিক সৃজনশীল ও রবীন্দ্র নৃত্য উৎসব ‘নৃত্যমালিকা’। অনুষ্ঠানটির পরিকল্পনায় সেঁজুতী গুহ রায়। গোটা আগস্ট মাসের প্রতি শনি ও রবিবার সন্ধ্যা ৭টায় ফেসবুকে সম্প্রচারিত হবে এই নৃত্যানুষ্ঠান।

আন্তর্জাতিক এই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করবেন নৃত্যজগতের খ্যাতনামা আট শিল্পী। থাকছেন পলি গুহ, প্রদীপ্ত নিয়োগী, অনুরাধা নিয়োগী, সুজয় ঠাকুর, কাশ্মীরা সামন্ত, ওয়ার্দা রিহাব, জয়দীপ পালিত, জয়িতা বিশ্বাস।

সেঁজুতী বলেন, লকডাউন চলাকালীন আজ পর্যন্ত খালি শাস্ত্রীয় নৃত্য নিয়ে প্রচুর অনলাইন নৃত্য উৎসব হয়েছে। কিন্তু রবীন্দ্র ও সৃজনশীল নৃত্য নিয়ে এটিই প্রথম। তাঁর কথায় ভারতবর্ষের নৃত্যশৈলীকে জানতে হলে শুধু ক্লাসিক্যাল নয়, এই সমস্ত রকমের নৃত্যকেই জানা প্রয়োজন। কিন্তু বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই তা হয় না। রবীন্দ্র ও সৃজনশীল আধুনিক নৃত্য আড়ালেই থেকে যাচ্ছে। তাকে বের করে আনতে হবে জগতের দরবারে। তাই এই বিশেষ প্রচেষ্টা। অনুষ্ঠানটি দেখা যাবে এই লিঙ্কে।

অনুষ্ঠানটি শুরু হবে নৃত্যশিল্পী পলি গুহের নিবেদন দিয়ে। শেষ দিনেও থাকছে তাঁর নিবেদন। সঙ্গে থাকবে ট্রুপের ছাত্রীবৃন্দের নিবেদনও।

এই গোটা কর্মকাণ্ডটি করতে সেঁজুতীকে সাহায্য করেছেন, সৌমিক ব্যানার্জি,  ঋতুরাজ প্রামাণিক, স্বাগতা মাইতি গাঙ্গুলি।  

আরও পড়ুন – শেষ হবে করোনা-কাল, নতুন দিশা দেখাবে বিশ্বমাতা, শিল্পীর রং-তুলিতে সেই ভবিষ্যতের ছবি

Continue Reading

গান-বাজনা

১২ বছরের পথচলায় ‘মুক্তধারা’র মুকুটে আরও একটি পালক, চালু হল ইউটিউব চ্যানেল

এই দীর্ঘ পথে ‘মুক্তধারা’র যে গীতিরথ চড়াই-উতরাই পার হয়েছে, তার সারথি নমিতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

papiya mitra
পাপিয়া মিত্র

দেখতে দেখতে এক যুগ পার। কবির ভাষায় – ‘বহু যুগের ওপার হতে আষাঢ় এল’। হ্যাঁ, এক আষাঢ়ঘন সন্ধ্যায় জন্ম নিয়েছিল ‘মুক্তধারা শিল্পী গোষ্ঠী’। ১২ জন সংগীতপিপাসুকে নিয়ে ১২ জুলাই। পথ চলা শুরু সেই ২০০৮-এ, দক্ষিণ কলকাতার রবীন্দ্রচর্চা ভবনে।

সেই দিনটিকে স্মরণ করে সম্প্রতি উদ্বোধন হল ‘মুক্তধারা’র ইউটিউব চ্যানেল, শঙ্খধ্বনি সহযোগে। প্রযুক্তির দৌলতে সংস্থার সদস্যরা অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন বাড়ি থেকে। আমন্ত্রিত ছিল খবরঅনলাইনডটকম-ও। ‘মুক্তধারা শিল্পী গোষ্ঠী’কে শুভ কামনা জানিয়েছেন বিশিষ্টজনেরা।

এ বার চিনে নেওয়া যাক এই দীর্ঘ পথে ‘মুক্তধারা’র যে গীতিরথ চড়াই-উতরাই পার হয়েছে, তার সারথিকে। তিনি নমিতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রবীন্দ্রসংগীতের ঝাঁপি ভরে পথ চলেছেন রথের রশি হাতে নিয়ে। শ্রদ্ধেয় সুচিত্রা মিত্রের সুযোগ্য ও সুধন্য ছাত্রী নমিতা একা পথ চলার স্বপ্ন দেখেছেন সংগীতচর্চিত মানুষজনকে সঙ্গী করে। প্রচারবিমুখ এই শিল্পী ছাত্রছাত্রী গড়ার কারিগর।

‘মুক্তধারা শিল্পী গোষ্ঠী’ আজ প্রায় ২৫ জনের এক বলিষ্ঠ সংস্থা। বিভিন্ন অনুষ্ঠানে এই গোষ্ঠী নিয়মিত আমন্ত্রিত হয়। পশ্চিমবঙ্গ সরকারের সংগীতমেলা, বর্ষা উৎসব তো আছেই, তা ছাড়া রবীন্দ্রভারতী সোসাইটি, বিধানসভা কার্যালয়, নেতাজি ফাউন্ডেশন, ক্যালকাটা কয়্যার, প্রেস ক্লাব, ২৩ পল্লি, ব্রাহ্মসমাজ ইত্যাদির অনুষ্ঠানেও ‘মুক্তধারা’ আমন্ত্রিত হয়েছে। বাংলাদেশে নববর্ষ উদযাপন, দিল্লিতে ওয়ার্ল্ড কালচারাল ফেস্টিভ্যালেও ডাক পেয়েছে তারা।

নমিতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

‘টালিগঞ্জ দৃষ্টান্ত’ ও ‘অনন্য মিউজিক’ আয়োজিত সম্মেলক সংগীত প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অধিকার করে ‘মুক্তধারা শিল্পী গোষ্ঠী’ এবং একটি পূর্ণাঙ্গ সিডি করার সম্মান লাভ করে তারা। ২০১৯-এ ভারত সরকারের ইন্ডিয়ান কাউন্সিল ফর কালচারাল রিলেশনস্‌-এ ‘মুক্তধারা’র নাম তালিকাভুক্ত হয়েছে। সেই সূত্র ধরে আগামীতে বিদেশের ডাকে সাড়া দেওয়ার প্রস্তুতি শুরু হয়ে গিয়েছে।

একাগ্রতা আর নিষ্ঠার জোরে নমিতা বন্দ্যোপাধ্যায় কলকাতার বুকে ‘নবসৃজনী’ (প্রবীণাদের নিয়ে), ‘রেওয়াজ’, ‘ক্রিয়েশন’ ও ‘বনবাণী’কে নিয়ে পথ চলছেন। এই লকডাউন পিরিয়ডেও থেমে নেই তিনি।

একা পারফর্মার না হয়ে সংস্থা গড়ার দিকে এলেন কেন নমিতাদেবী?

“নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে গেলে ভালো গান যেমন গাইতে হয়, পাশাপাশি একটা সাংগীতিক ব্যাকগ্রাউন্ডেরও প্রয়োজন হয়। সেটা আমাদের সময়কাল থেকে ছিল, আমার ছিল না। তবু সুশিক্ষার জোরে এবং নিজের দক্ষতায় প্রচুর একক অনুষ্ঠান করেছি। একটা সময়ে মনে হয়েছে আমার সৃষ্টিশীলতার পুরোটা আমি দিতে পারছি না। তখন মনে হল যদি একটা দল তৈরি করি, তা হলে কেমন হয়। সেখানে তারাও শিখল, দলবদ্ধ ভাবে গাইল, এককও গাইল, আমিও গাইলাম – তাতে আমার সৃষ্টিশীল দিকটা পূর্ণতা পেল। একক ভাবে তা পরিপূর্ণতা পায় না। এতে দর্শকশ্রোতাবন্ধুদের কাছে বেশিক্ষণ থাকতে পারা যায় ও তাঁদের কাছে পাওয়া যায়” – বললেন নমিতা বন্দ্যোপাধ্যায়, ‘মুক্তধারা’র কান্ডারি।

তিনি আরও জানালেন, যেমন পথের পাঁচালি – অপু, দুর্গা, সর্বজয়াকে যেমন মানুষ চিনেছেন, তার থেকেও বেশি চিনেছেন যিনি চলচ্চিত্রটি তৈরি করেছেন সেই সত্যজিৎ রায়কে। সত্যজিৎ রায়, মৃণাল সেন – এঁরা তো কখনও অভিনয় করেননি। কিন্তু ওঁরাও সেই শিল্পের সঙ্গে জড়িত। ওঁরা প্রাতঃস্মরণীয়। উত্তমকুমারের ‘নায়ক’ চরিত্র মনে হলেই ভেসে উঠবে সত্যজিৎ রায়ের মুখ। সুতরাং ক্রিয়েটিভিটি পূর্ণতা পায় দলকে ঘিরে। এখানেই তাঁদের সম্মান। তবে তাঁর কাছে সম্মানের পাল্লাটা কতটা ভারী হল সেটা বড়ো কথা নয়। বড়ো কথা, সকলকে নিয়ে পথ চলা। তাঁর সৃজনশীলতা পাঁচ জনের মধ্যে ছড়িয়ে দেওয়ার যে আনন্দ ও পরিবেশনা, তার সম্মান আরও বেশি। ঈশ্বর যা দিয়ে পাঠিয়েছেন তার থেকে বেশি কিছু হওয়ার নয়। তবে একক শিল্পী হয়েও দলগত উপস্থাপনায় অনেক বেশি ঋদ্ধ হয়েছেন তিনি।

‘মুক্তধারা’র দ্বাদশ বর্ষ উদযাপন কালে শুভ কামনা জানিয়েছেন বিশিষ্ট সংগীতশিল্পী অলক রায়চৌধুরী। বললেন, “বর্তমানে সমবেত গান প্রায় উঠে যাওয়ার মুখে। ‘মুক্তধারা’ নয় নয় করে ১২ বছর কাটিয়ে আরও এগিয়ে যাবে এটা আমার বিশ্বাস। ১২টা বছর কম নয়। শিল্পীদের মধ্যে নিরন্তর আগ্রহ জাগিয়ে রাখা এবং রবীন্দ্রসংগীত ছাড়াও নানা ধরনের গান করে চলা – এ এক অনন্য উদাহরণ। নমিতা তা পেরেছেন।”

আরও এক শিল্পী সুমন পান্থী জানালেন, “সংগীতের এই মহাসমুদ্রে পাড়ি দিতে দিতে একজন সুদক্ষ কান্ডারির মাধ্যমেই একটি তরী এ-পার থেকে ও-পারে, সুনির্দিষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছে যেতে পারে। সে রকমই একটি তরী ‘মুক্তধারা শিল্পী গোষ্ঠী’। তার সুদক্ষ কান্ডারি নমিতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আমাদের এই পরিবারের সঙ্গে সফল উপস্থাপন তিনি করেছেন। তাঁর সংস্থার ১২ বছরের উদযাপনকে স্বাগত জানাই।”

‘মুক্তধারা’র ইউটিউব চ্যানেলটি উদ্বোধন করেন শুভঙ্কর রায়চৌধুরী। সমগ্র অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন ইন্দ্রাণী মুখোপাধ্যায়, আহ্বায়ক শাশ্বতী বিশ্বাস, যুগ্ম সম্পাদক দেবব্রত বর ও নমিতা বন্দ্যোপাধ্যায়, সভাপতি মিত্রা দত্ত ও সংগীত পরিবেশন করেন লোপামুদ্রা মুখোপাধ্যায়।

Continue Reading
Advertisement
Advertisement
দেশ13 mins ago

“দুর্ঘটনা নয়, পরিকল্পিত খুন”, কোড়িকোড়ের ঘটনা নিয়ে চাঞ্চল্যকর দাবি এয়ার সেফটি এক্সপার্টের

রাজ্য55 mins ago

বঙ্গোপসাগরে নতুন নিম্নচাপ, তবুও এখনই টানা বৃষ্টির সম্ভাবনা নেই দক্ষিণবঙ্গে

coronavirus
দেশ1 hour ago

অমিত শাহ, ধর্মেন্দ্র প্রধানের পর কোভিডে আক্রান্ত আরও এক কেন্দ্রীয় মন্ত্রী

বিনোদন2 hours ago

২৮ দিন পর করোনা মুক্ত অভিষেক বচ্চন

দেশ2 hours ago

পাখির সঙ্গে সংঘর্ষ, উড়তে গিয়ে রাঁচি বিমানবন্দরে ফিরল এয়ারএশিয়ার বিমান

কলকাতা2 hours ago

অক্সিজেন সিলিন্ডার দিয়ে জানলার কাচ ভেঙে মেডিক্যালের কার্নিশে করোনা রোগী!

দেশ3 hours ago

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এক লক্ষ কোটি টাকার কৃষি-কাঠামো তহবিল চালু করবেন রবিবার

দেশ4 hours ago

মুদি দোকানের মালিক-কর্মীদেরও পরীক্ষা করাতে হবে, রাজ্যগুলিকে চিঠি কেন্দ্রের

দেশ8 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ৬১৫৩৭, সুস্থ ৪৮৯০০

Hrithik Roshan
বিনোদন2 days ago

‘ক্রিশ ৪’ নয়, তার আগেই একটি কমেডি ছবিতে হৃতিক রোশনকে দেখা যাবে?

কলকাতা2 days ago

রাতভর প্রবল বৃষ্টিতে ভাসল কলকাতার একাংশ

দেশ7 hours ago

বিমান দুর্ঘটনা লাইভ: উদ্ধার ব্ল্যাক বক্স, উদ্ধারকারীদের কোয়ারান্টাইনে যাওয়ার নির্দেশ শৈলজার

দেশ1 day ago

১ সেপ্টেম্বর থেকেই স্কুলের ঘণ্টা বাজানোর কেন্দ্রীয় প্রস্তুতি

বিদেশ2 days ago

‘ভাসমান বোমার’ হুমকিকে উপেক্ষা, ক্ষোভে ফুঁসছে বেইরুট

গাড়ি ও বাইক2 days ago

চলতি মাসে যে ৫টি নতুন মোটর বাইক বাজারে আসছে

বিজ্ঞান2 days ago

করোনা রোগীর মৃত্যুর ঝুঁকি কমাতে প্লাজমা থেরাপির কোনো ভূমিকা নেই, বলেছে এইমসের অন্তর্বর্তী বিশ্লেষণ

রবিবারের খবর অনলাইন

কেনাকাটা

কেনাকাটা2 days ago

ঘর ও রান্নাঘরের সরঞ্জাম কিনতে চান? অ্যামাজন প্রাইম ডিলে রয়েছে ৫০% পর্যন্ত ছাড়

খবরঅনলাইন ডেস্ক : অ্যামাজন প্রাইম ডিলে রয়েছে ঘর আর রান্না ঘরের একাধিক সামগ্রিতে প্রচুর ছাড়। এই সেলে পাওয়া যাচ্ছে ওয়াটার...

কেনাকাটা2 days ago

এই ১০টির মধ্যে আপনার প্রয়োজনীয় প্রোডাক্টটি প্রাইম ডে সেলে কিনতে পারেন

খবরঅনলাইন ডেস্ক : চলছে অ্যামাজনের প্রাইমডে সেল। প্রচুর সামগ্রীর ওপর রয়েছে অনেক ছাড়। ৬ ও ৭  তারিখ চলবে এই সেল।...

কেনাকাটা3 days ago

শুরু হল অ্যামাজন প্রাইম ডে সেল, জেনে নিন কোন জিনিসে কত ছাড়

খবরঅনলাইন ডেস্: শুরু হল অ্যামাজন প্রাইম ডে সেল। চলবে ২ দিন। চলতি মাসের ৬ ও ৭ তারিখ থাকছে এই অফার।...

things things
কেনাকাটা1 week ago

করোনা আতঙ্ক? ঘরে বাইরে এই ১০টি জিনিস আপনাকে সুবিধে দেবেই দেবে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : করোনা পরিস্থিতিতে ঘরে এবং বাইরে নানাবিধ সাবধানতা অবলম্বন করতেই হচ্ছে। আগামী বেশ কয়েক মাস এই নিয়মই অব্যাহত...

কেনাকাটা2 weeks ago

মশার জ্বালায় জেরবার? এই ১৪টি যন্ত্র রুখে দিতে পারে মশাকে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: একে করোনা তায় আবার ডেঙ্গুর প্রকোপ শুরু হয়েছে। এই সময় প্রতি বারই মশার উৎপাত খুবই বাড়ে। এই বারেও...

rakhi rakhi
কেনাকাটা2 weeks ago

লকডাউন! রাখির দারুণ এই উপহারগুলি কিন্তু বাড়ি বসেই কিনতে পারেন

সামনেই রাখি। কিন্তু লকডাউনের মধ্যে মনের মতো উপহার কেনা একটা বড়ো ঝক্কি। কিন্তু সেই সমস্যা সমাধান করতে পারে অ্যামাজন। অ্যামাজনের...

কেনাকাটা3 weeks ago

অনলাইনে পড়াশুনা চলছে? ল্যাপটপ কিনবেন? দেখে নিন ৪০ হাজার টাকার নীচে ৬টি ল্যাপটপ

ইনটেল প্রসেসর সহ কোন ল্যাপটপ আপনার অনলাইন পড়াশুনার কাজে লাগবে জেনে নিন।

কেনাকাটা3 weeks ago

করোনা-কালে ঘরে রাখতে পারেন ডিজিটাল অক্সিমিটার, এই ১০টির মধ্যে থেকে একটি বেছে নিতে পারেন

শরীরে অক্সিজেনের মাত্রা বুঝতে সাহায্য করে এই অক্সিমিটার।

কেনাকাটা3 weeks ago

লকডাউনে সামনেই রাখি, কোথা থেকে কিনবেন? অ্যামাজন দিচ্ছে দারুণ গিফট কম্বো অফার

খবরঅনলাইন ডেস্ক : সামনেই রাখি। কিন্তু লকডাউনের মধ্যে দোকানে গিয়ে রাখি, উপহার কেনা খুবই সমস্যার কথা। কিন্তু তা হলে উপায়...

laptop laptop
কেনাকাটা3 weeks ago

ল্যাপটপ কিনবেন? দেখে নিন ২৫ হাজার টাকার মধ্যে এই ৫টি ল্যাপটপ

খবরঅনলাইন ডেস্ক : কোভিভ ১৯ অতিমারির প্রকোপে বিশ্ব জুড়ে চলছে লকডাউন ও ওয়ার্ক ফ্রম হোম। অনেকেই অফিস থেকে ল্যাপটপ পেয়েছেন।...

নজরে

Click To Expand