Connect with us

দিবস

রবীন্দ্রনাথের এই পাঁচন আটকে ছিল সেই সময়ের মহামারি, এখন কি পারবে?

ওয়েবডেস্ক: প্রায় ১০০ বছর আগে, সময়টা ১৯১৯ তখনও এক মহামারির কবলে পড়েছিল দেশ। সেই মাহামারির হাত থেকে বাঁচতে পারেনি শান্তিনিকেতনও। সেই পরিস্থিতিতে শান্তিনিকেতনের প্রত্যেক পড়ুয়া সদস্যকে রক্ষা করতে একটি বিশেষ পাঁচনের প্রচলন করেছিলেন স্বয়ং রবীন্দ্রনাথ। তার প্রমাণ পাওয়া যায় তাঁরই লেখা বহু চিঠিচাপাটি থেকেই।

যাই হোক।  ১৯১৯ সালের ১ জানুয়ারি বন্ধু জগদীশচন্দ্র বসুকে সে সময়ের ইনফ্লুয়েঞ্জা মহামারির কথা বলে চিঠি লিখছেন রবীন্দ্রনাথ। তিনি লিখছেন, ‘আমার এখানে প্রায় দু’শো লোক, অথচ হাসপাতাল প্রায়ই শূন্য প’ড়ে আছে— এমন কখনও হয় না— তাই মনে ভাবচি এটা নিশ্চয়ই পাঁচনের গুণে হয়েচে।’ আরও লিখেছেন, “…তার মধ্যে হেমলতা প্রায় সেরে উঠেচেন— কিন্তু সুকেশীর জন্য ভাবনার কারণ আছে। কিন্তু ছেলেদের মধ্যে একটিরও ইনফ্লুয়েঞ্জা হয়নি। আমার বিশ্বাস, তার কারণ, আমি ওদের বরাবর পঞ্চতিক্ত পাঁচন খাইয়ে আসচি।”

রামানন্দ চট্টোপাধ্যায়ের মেয়ে সীতা দেবীর ‘পুণ‍্য স্মৃতি’ থেকে জানা যায়, রবীন্দ্রনাথ নিজে রোজ ঘুরে ঘুরে প্রত্যেক অসুস্থ ছাত্রছাত্রীকে দেখতে যেতেন। তাদের শারীরিক অবস্থার খোঁজখবর নিতেন। এমনকি চিকিৎসাও করতেন। সীতা দেবী লিখছেন, “সে বার তিনি একটি ভেষজ প্রতিষেধক তৈরি করলেন। সেই প্রতিষেধকটির নাম ‘পঞ্চতিক্ত পাঁচন’।”

স্বাভাবিক ভাবেই মনে হতে পারে কী এমন পাচন যার কিনা এত রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা।

তেউরি, নিম, গুলঞ্চ, নিশিন্দা এবং থানকুনি একসঙ্গে সবটা বেটে তৈরি হয়েছিল এই পাঁচন। রবীন্দ্রনাথ এই পাঁচন তৈরি করে প্রত্যেকে রোজ খাওয়াতেন।

ছোটোবেলা থেকেই গান নাটক আঁকা ইত্যাদির মতো চিকিৎসাশাস্ত্রেও রবির ছিল গভীর আগ্রহ। পরবর্তী কালে শান্তিনিকেতনে স্কুল প্রতিষ্ঠার পর কালীমোহন ঘোষকে আশ্রমে আসার আমন্ত্রণ জানান কবি। চিঠিতে তিনি লিখেছেন, ‘আমার এখানে চিকিৎসক বলিতে আমি ও ক্ষিতিমোহনবাবু’।

বোস ইনস্টিটিউটের প্রাক্তন অধ্যাপক  বিজ্ঞানী রাজাগোপাল চট্টোপাধ্যায় মলিকিউলার বায়োলজি নিয়ে চর্চা করেছেন। তাঁর গবেষণার বিষয়ের মধ্যে রয়েছে প্রাচীন ভেষজও। তাঁর মতে, “এই পঞ্চতিক্ত পাঁচন ভাইরাসের সঙ্গে মানুষকে লড়াই করতে সাহায্য করবে। এতে গুলঞ্চ আছে যা সুগার রোগীদের জন্য ভালো। নিম তো স্কিন থেকে শরীরের ভেতরের রোগের সঙ্গে লড়াইয়ের ক্ষমতা বাড়ায়। আর যে ইনফ্লুয়েঞ্জার কথা রবীন্দ্রনাথ বলছেন তা-ও তো ভাইরাস। এই পথ্য করোনার সঙ্গে লড়াইয়ে কাজে লাগতে পারে।”

কোভিড-১৯ অর্থাৎ করোনা ভাইরাসের কোনও মেডিসিন বা কোনও অ্যন্টিডোট এখনও তৈরি হয়নি। তাই নানান ভাবে রোগ প্রতিরোধক পরিস্থিতি তৈরি করার চেষ্টা করা হচ্ছে শরীরে, যাতে করে ভাইরাস বেশি ক্ষণ টিকে থাকতে পারবে না। এ ক্ষেত্রে অ্যলোপ্যাথি ওষুধ যে ভাবে কাজ করছে ঠিক সেই রকম ভাবেই কাজ করতে পারে প্রাচীন আয়ুর্বেদ, গাছগাছড়া। তারা অ্যন্টিভাইরাল নয় ঠিকই কিন্তু ভাইরাস যে পরিবেশ পছন্দ করে, তা নষ্ট করে দেওয়ার জন্য এগুলোর অবদান অনস্বীকার্য। রবীন্দ্রনাথের যে পঞ্চতিক্ত পাঁচন তার অনেক গুণ আছে, বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

বিজ্ঞানী রাজাগোপাল চট্টোপাধ্যায় রবীন্দ্রনাথের পঞ্চতিক্ত পাঁচনের উপাদানগুলি বিশ্লেষণ করতে গিয়ে বলেন, “তেউরি, নিম, নিশিন্দা— এই তিন উপাদান সব চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ, কারণ তা শ্বাসজনিত রোগ আর ম্যালেরিয়ার সঙ্গে লড়াই করতে পারে।’’

অনেক কথা হল, এ বার বরং জেনে নেওয়া যাক কেমন করে বানাতে হবে এই পঞ্চতিক্ত পাঁচন।

প্রথমে উপকরণ

১। নিমপাতা — ২-৩টি ডাল

২। গুলঞ্চ — ডাল থেকে কেটে এক ইঞ্চি

৩। তেউরি (কলাগাছের শেকড়) — এক ইঞ্চি

৪। নিশিন্দা — এক চামচ

৫। থানকুনি পাতা — ১০টা

এ বার পদ্ধতি

সব ক’টি উপকরণকে প্রথমেই খুব ভালো করে ধুয়ে নিতে হবে। এ বার একটি পাত্রে এক কাপ মতো জল নিয়ে ফোটাতে হবে। তাতে উপকরণগুলি সব দিয়ে দিতে হবে। এক কাপের উপকরণ ফুটিয়ে আধ কাপ করতে হবে। ঠান্ডা করে দুই বেলা খেতে হবে।

পরখ করে দেখাই যাক ১০০ বছর আগে রবীন্দ্রনাথ যে ভাবে পঞ্চতিক্ত পাঁচন দিয়ে মহামারির মোকাবিলা করেছিলেন সে ভাবে এই পাঁচন খেয়ে ১০০ বছর পরের অতিমারির মোকাবিলা করা যায় কিনা?

সূত্র – আনন্দবাজার পত্রিকা  

দিবস

আন্তর্জাতিক যোগ দিবসের থিম নিয়ে এই তথ্যগুলি কি জানেন?

yoga

খবর অনলাইন ডেস্ক : ‘যোগ’ শব্দটি সংস্কৃত। এই শব্দটি এসেছে ‘যুজা’ থেকে। শব্দটির অর্থ ‘যোগদান ও একত্রিত হওয়া’। যোগাসন হল ভারতের প্রাচীন ঐশ্বর্য। বিশ্বের কাছে এখন এটি খুবই সমাদৃত। এই বিশেষ সম্পদটিকে জনপ্রিয় করে তোলার পেছনে আন্তর্জাতিক যোগ দিবসের ভূমিকা অনেক। এই নিয়ে ষষ্ঠ বর্ষে আন্তর্জাতিক যোগ দিবস। প্রতি বছরই এর আলাদা আলাদা থিম থাকে। যে থিমটিকে কেন্দ্র করে বিশেষ কিছু কর্মসুচি গ্রহণ করা যায়।

দেখে নেওয়া যাক কোন বছর ঠিক কী থিম ছিল।

২০১৫ সাল ছিল প্রথম বর্ষ। সেই বছরে আন্তর্জাতিক যোগ দিবসের থিম ছিল – ‘যোগ ফর হারমোনি অ্যান্ড পিস’।

২০১৬ সাল দ্বিতীয় বর্ষ। আন্তর্জাতিক যোগ দিবসের থিম ছিল ‘কানেকট দ্য ইয়ুথ’।

২০১৭ সালে তৃতীয় বর্ষে আন্তর্জাতিক যোগ দিবসের থিমে তুলে ধরা হয়েছিল ‘যোগ ফর হেলথ’ এই বার্তাটি।

২০১৮ সাল ছিল আন্তর্জাতিক যোগ দিবসের চতুর্থ বর্ষ। এ বারের থিম ছিল – ‘যোগ ফর পিস’। অর্থ হল ‘শান্তির জন্য যোগ’। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এই বছর দেহরাদুনে আন্তর্জাতিক যোগ দিবসের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

২০১৯ সালের আন্তর্জাতিক যোগ দিবসের থিম রাখা হয়েছিল, ‘যোগ ফর হার্ট’। এটি  ক্লাইমেট অ্যাকশন। মূল অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়েছিল রাঁচির প্রভাত তারা ময়দানে। সেখানে উপস্থিত ছিলেন  স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী। এই থিমের উদ্দেশ্য ছিল পরিবেশবান্ধব জিনিস ব্যবহার ও প্ল্যাস্টিক বর্জনের ডাক দেওয়া।

২০২০ সাল। অনুষ্ঠিত হতে চলেছে ষষ্ঠ বর্ষের আন্তর্জাতিক যোগ দিবসের অনুষ্ঠান। এ বছরের থিম – ‘যোগ অ্যাট হোম অ্যান্ড যোগ উইথ ফ্যামিলি’ ‘ঘরে যোগ এবং পরিবারের সঙ্গে যোগ’। এই বছরের বিশেষত্ব হল করোনা অতিমারির আবহ। শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতেই বিনা জমায়েতে নিজেদের ঘরেই পরিবারবর্গের সঙ্গে যোগ ব্যায়াম করে নিজেদের সুস্থ ও সবল বানানোর লক্ষ্যে এই থিম নেওয়া হয়েছে। এই ব্যাপারে উৎসাহিত করতে আয়োজন করা হয়েছে বিশেষ ভিডিও ব্লগিং ইভেন্টের। ঘোষণা করা হয়েছে পুরস্কার। ইভেন্টের নাম ‘মাই লাইফ মাই যোগ’। এই প্রতিযোগিতার জন্য নিজেদের ভিডিও আপলোড করতে হবে আয়ুষ মন্ত্রকের নিজস্ব টুইটার হ্যান্ডেলে।

অবশ্যই দেখুন –এই চারটি যোগাসনে ম্যাজিকের মতো কমবে ভুঁড়ি

Continue Reading

দিবস

আন্তর্জাতিক যোগ দিবস উপলক্ষ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রতিযোগিতা

yoga

খবরঅনলাইন ডেস্ক : ষষ্ঠ যোগ দিবসের (International Yoga Day) প্রাক্কালে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (PM Narendra Modi) ঘোষণা করলেন একটি বিশেষ ইভেন্ট। এটির নাম ‘মাই লাইফ মাই যোগ’ (My Life My Yoga) অর্থাৎ ‘আমার জীবন আমার যোগ’। করোনাভাইরাস ও লকডাউনের মধ্যেও এই ইভেন্টের মাধ্যমে মোদী সাধারণ মানুষকে সুস্থ ও সক্ষম থাকতে উৎসাহীও করেছেন। মন কি বাত অনুষ্ঠানের মাধ্যমে তিনি এই ইভেন্টের কথা ঘোষণা করেছেন।  

২০২০ সালের ২১ জুনে পালিত হতে চলা ষষ্ঠ অন্তর্জাতিক যোগ দিবসের থিম হল ‘যোগ অ্যাট হোম অ্যান্ড যোগ উইথ ফ্যামিলি’। এই সম্পর্কে আয়ুষ মন্ত্রক বলেছে, অতিমারির কারণে জনসমাগম কোথাওই করা সম্ভব নয়। সেই কারণে মন্ত্রক এই বছর প্রত্যেককে নিজের নিজের ঘর থেকেই এই যোগব্যায়াম দিবস পালনের উৎসাহ দেবে।

এই মর্মেও প্রধানমন্ত্রী একটি ভিডিও ব্লগিং কম্পিটিশন শুরু করেছেন। এর মাধ্যমে মোদী সাধারণ মানুষকে তাদের যোগাসনের ভিডিও পোস্ট করতে আহ্বান জানিয়েছেন। পোস্ট হবে মন্ত্রকের নিজস্ব টুইটার হ্যান্ডেলে। ঘোষণা করা হয়েছে এক লক্ষ টাকা পুরস্কারও।

কেন্দ্রীয় আয়ুষ মন্ত্রক ও ইন্ডিয়ান কাউন্সিল ফর কালচারাল রিলেশনস সম্মিলিত ভাবে এই ‘মাই লাইফ মাই যোগ’ প্রতিযোগিতা আয়োজন করেছে।

এই অনুষ্ঠানটির আয়োজনের পেছনে মূল উদ্দেশ্য হল প্রত্যেকের জীবনে যোগের গুরুত্ব বোঝানো। সরকারি বিবৃতিতে বলে হয়েছে, এই প্রতিযোগিতাটি আয়ুষ মন্ত্রকের সোশ্যাল মিডিয়া হ্যান্ডেলে সরাসরি দেখানো হবে।

ভিডিও আপলোড করুন এই লিঙ্কের মাধ্যমে https://mylifemyyoga2020.com/home

সামান্য ব্যায়াম উন্নতি করতে পারে পড়াশোনার: গবেষণা

Continue Reading

দিবস

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের উক্তি ও বাণী

কবিগুরু

ওয়েবডেস্ক: রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরে ছিলেন একাধারে অগ্রণী বাঙালি কবি, ঔপন্যাসিক, সংগীতস্রষ্টা, নাট্যকার, চিত্রকর, ছোটগল্পকার, প্রাবন্ধিক, অভিনেতা, কণ্ঠশিল্পী ও দার্শনিক। বাংলা সাহিত্যের এই উজ্জ্বল নক্ষত্র বাংলা সাহিত্যকে দিয়ে গিয়েছেন অসংখ্য শিল্পকর্ম, এ সব কথা নতুন করে বলার অপেক্ষা রাখে না। তিনি ছড়িয়ে আছেন বাঙালির সর্বক্ষেত্রে। তবে শুধু দেশে নয্‌ বিদেশেও তাঁর সমান প্রতিষ্ঠা।

তেমনই রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের উক্তি ও বাণীও একই ভাবে মানুষের মুখে ও মনে মনে ফেরে। কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের উক্তিগুলিকে ভালো করে পড়ে দেখলে তাতে প্রায় সাতটি বিষয় বিভাজন স্পষ্ট হয়ে ওঠে।

১। মনুষ্যত্ব ও মানুষ নিয়ে

২। জীবনবোধ ও জীবন

৩। ধর্ম নিয়ে

৪। সাহিত্য ও শিক্ষা নিয়ে

৫। বন্ধু নিয়ে

৬। বাঙালি নিয়ে এবং

৭। পুরুষ নিয়ে

এর মধ্যে কয়েকটি রইল এখানে –

১। মানুষের মধ্যে দ্বিজত্ব আছে; মানুষ একবার জন্মায় গর্ভের মধ্যে, আবার জন্মায় মুক্ত পৃথিবীতে। মানুষের এক জন্ম আপনাকে নিয়ে, আর এক জন্ম সকলকে নিয়ে।

২। যার সঙ্গে মানুষের লোভের সম্বন্ধ তার কাছ থেকে মানুষ প্রয়োজন উদ্ধার করে, কিন্তু কখনও তাকে সম্মান করে না।

৩। আগুনকে যে ভয় পায়, সে আগুনকে ব্যবহার করতে পারে না।  

৪। বিনয় একটা অভাবাত্মক গুণ। আমার যে অহংকারের বিষয় আছে এইটে না মনে থাকাই বিনয়, আমাকে যে বিনয় প্রকাশ করিতে হইবে এইটে মনে থাকার নাম বিনয় নহে।

৫। অধিকার ছাড়িয়া দিয়া অধিকার ধরিয়া রাখার মত বিড়ম্বনা আর হয় না।

৬। অন্যায় যে করে আর অন্যায় যে সহে তবে ঘৃণা তারে যেন তৃণসম দহে।

৭। যে ছেলে চাবামাত্রই পায়, চাবার পূর্বেই যার অভাব মোচন হতে থাকে; সে নিতান্ত দুর্ভাগা। ইচ্ছা দমন করতে না শিখে কেউ কোনকালে সুখী হতে পারেনা।

৮। সময়ের সমুদ্রে আছি,কিন্তু একমুহূর্ত সময় নেই।

৯। নদীর এপার কহে ছাড়িয়া নিশ্বাস, ওপারেতে সর্বসুখ আমার বিশ্বাস। নদীর ওপার বসি দীর্ঘশ্বাস ছাড়ে; কহে, যাহা কিছু সুখ সকলি ওপারে।

১০। যাহারা নিজে বিশ্বাস নষ্ট করে না তাহারাই অন্যকে বিশ্বাস করে।

Continue Reading
Advertisement
football2
ফুটবল3 hours ago

কোভিড-পরিস্থিতিতে আসন্ন আই লিগের সব ম্যাচই কলকাতায় করার ভাবনা

দেশ3 hours ago

বিজেপিতে যাচ্ছি না, বললেন সচিন পায়লট

দেশ3 hours ago

প্রবল বর্ষণে সিকিমে ভয়াল রূপ তিস্তার, হুড়মুড় করে ভেঙে পড়ল প্রাক্তন সাংসদের বাড়ি

উঃ দিনাজপুর3 hours ago

বিজেপি বিধায়কের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার, পরিবারের দাবি খুন

রাজ্য4 hours ago

উত্তরবঙ্গে বৃষ্টির দাপট কিছুটা কমলেও স্বস্তি দিচ্ছে না আগামী তিন দিনের পূর্বাভাস

দেশ4 hours ago

দেশে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যায় রেকর্ড, তবে মৃত্যুহারে উল্লেখযোগ্য পতন

দেশ5 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ২৮৭০১, সুস্থ ১৮৮৪৯

বিদেশ5 hours ago

কমদামী ও সহজলভ্য দুই ওষুধের সংমিশ্রণেই কমছে করোনার মারণ ক্ষমতা?

দেশ5 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ২৮৭০১, সুস্থ ১৮৮৪৯

দুর্গা পার্বণ2 days ago

আজও ভিয়েন বসিয়ে হরেক রকম মিষ্টি তৈরি হয় চুঁচড়ার আঢ্যবাড়ির দুর্গাপুজোয়

ফুটবল3 days ago

এটিকে-মোহনবাগানের নতুন লোগো প্রকাশিত, জার্সির রঙ সবুজমেরুনই

কলকাতা2 days ago

সক্রিয় রোগীর নিরিখে এই মুহূর্তে কলকাতার অবস্থান কত নম্বরে?

শিক্ষা ও কেরিয়ার3 days ago

প্রকাশিত হল আইসিএসই এবং আইএসসি ফলাফল, মিলল না মেধা তালিকা!

দেশ3 days ago

শারীরিক দুরত্ব ভেঙে মানবিক দায়িত্ব পালন

Shaktikanta Das
দেশ2 days ago

কোভিড-১৯ স্বাস্থ্য এবং অর্থনীতির সামনে শেষ একশো বছরের সব থেকে বড়ো সংকট: আরবিআই গভর্নর

Harsh Vardhan
দেশ3 days ago

করোনা আক্রান্তের সংখ্যায় আমরা উদ্বিগ্ন নই: কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী

কেনাকাটা

কেনাকাটা20 hours ago

হ্যান্ডওয়াশ কিনবেন? নামী ব্র্যান্ডগুলিতে ৩৮% ছাড় দিচ্ছে অ্যামাজন

খবরঅনলাইন ডেস্ক : করোনাভাইরাস বা কোভিড ১৯ এর সঙ্গে লড়াই এখনও জারি আছে। তাই অবশ্যই চাই মাস্ক, স্যানিটাইজার ও হ্যান্ডওয়াশ।...

কেনাকাটা4 days ago

ঘরের একঘেয়েমি আর ভালো লাগছে না? ঘরে বসেই ঘরের দেওয়ালকে বানান অন্য রকম

খবরঅনলাইন ডেস্ক : একে লকডাউন তার ওপর ঘরে থাকার একঘেয়েমি। মনটাকে বিষাদে ভরিয়ে দিচ্ছে। ঘরের রদবদল করুন। জিনিসপত্র এ-দিক থেকে...

কেনাকাটা6 days ago

বাচ্চার জন্য মাস্ক খুঁজছেন? এগুলোর মধ্যে একটা আপনার পছন্দ হবেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক : নিউ নর্মালে মাস্ক পরাটাই দস্তুর। তা সে ছোটো হোক বা বড়ো। বিরক্ত লাগলেও বড়োরা নিজেরাই নিজেদেরকে বোঝায়।...

কেনাকাটা7 days ago

রান্নাঘরের টুকিটাকি প্রয়োজনে এই ১০টি সামগ্রী খুবই কাজের

খবরঅনলাইন ডেস্ক : লকডাউনের মধ্যে আনলক হলেও খুব দরকার ছাড়া বাইরে না বেরোনোই ভালো। আর বাইরে বেরোলেও নিউ নর্মালের সব...

নজরে