Connect with us

দুর্গা পার্বণ

দশমীতে মাছপোড়া খেয়ে নিয়ম ভঙ্গ করে পশ্চিম বর্ধমানের খান্দরার সরকার পরিবার

এই পরিবারে প্রতিমার একটি বিশেষ বৈশিষ্ট্য হল দেবীর ডান দিকে থাকেন লক্ষ্মী ও কার্তিক এবং বাঁ দিকে থাকেন সরস্বতী ও গণেশ।

Published

on

Durgapuja of Sarkar family of Khandra
খান্দরা সরকারবাড়ির দুর্গাপ্রতিমা।

শুভদীপ রায় চৌধুরী

সামনেই শারদীয়া। কুমোরপাড়ায় দেবী প্রায় তৈরি প্রতিটি ঠাকুরদালানে এবং বারোয়ারি পূজামণ্ডপে যাওয়ার জন্য। বঙ্গ-সহ গোটা ভারতবর্ষের মানুষ আর কিছু দিনের মধ্যেই মেতে উঠবে উৎসবের আনন্দে।

বনেদিবাড়িতেও শুরু হয়ে গিয়েছে শারদীয়ার চূড়ান্ত প্রস্তুতি। ঠাকুরদালানে সেই বড়ো বড়ো ঝাড়বাতির আলো আবার জ্বলে উঠছে। আর তার সঙ্গে প্রস্তুতি চলছে  নানা রীতিনীতি আর প্রথা ঝালিয়ে নেওয়ার। এমনই এক বনেদিবাড়ি রয়েছে পশ্চিম বর্ধমানের খান্দরা গ্রামে, যে বাড়ির পুজো বহু দিনের। আজকের পর্বে খান্দরার সরকারবাড়ির পুজো নিয়ে আলোচনা। 

এই পরিবারের সদস্য অরিন্দম সরকারের কাছ থেকে জানা গেল যে পুজোর সূচনা হয়েছিল আনুমানিক ৫০০ বছর আগে। প্রচলিত লোককথায় জানা যায়, এই সরকারদের আদি বাসস্থান ছিল মুর্শিদাবাদের কান্দি অঞ্চলে এবং সেখানেই দুর্গাপুজো  প্রথম শুরু হয়েছিল। বর্তমানে এই পুজো অনুষ্ঠিত হয় পশ্চিম বর্ধমানের খান্দরায়। তবে কান্দি অঞ্চলে থাকাকালীন সরকার পরিবারের উপাধি ছিল ‘দাস’। আনুমানিক ১৫০০ খ্রিস্টাব্দে পর্বত দাস মুর্শিদাবাদ ছেড়ে চলে আসেন খান্দরায় রাজস্ব ভাগ দেখাশোনা করার জন্য। সে সময় তিনি বর্ধমানের মহারাজার থেকে ‘সরকার’ উপাধি লাভ করেছিলেন।

কিছু কাল পরে সরকার পরিবারের দুই সদস্য, পাহাড় সরকার ও পর্বত সরকারের মধ্যে মনোমালিন্য হওয়ায় পরিবার দু’টি ভাগে বিভক্ত হয়ে যায়। খান্দরায় আসার পর বংশের সুসন্তান মুচিরাম সরকার এই বাড়ির ঠাকুরদালানে দুর্গাপুজো শুরু করেছিলেন। সেই পুজোই আজও নিষ্ঠার সঙ্গে পালন করে আসছেন বর্তমান সদস্যরা।

মায়ের মুখ।

এই বাড়ির পুজো শুরু হয় রথযাত্রার দিন কাঠামোপুজোর মাধ্যমে। মৃন্ময়ী প্রতিমাতে দু’ মাটির প্রলেপ দেওয়ার পর খড়ি দিয়ে রঙ দেওয়া হয়। দেবীর দশ হাতের অস্ত্র রাংতা দিয়ে তৈরি করা হয়। সাবেকি একচালার প্রতিমায় নানা রকমের প্রাচীন গয়না দিয়ে সাজানো হয় উমাকে। এই পরিবারে প্রতিমার একটি বিশেষ বৈশিষ্ট্য হল দেবীর ডান দিকে থাকেন লক্ষ্মী ও কার্তিক এবং বাঁ দিকে থাকেন সরস্বতী ও গণেশ।

দুর্গাপুজোর সপ্তমীর দিন নবপত্রিকা স্নান করানো হয় নিকটবর্তী দুর্গাপুকুরে। স্নানপর্ব শেষ হলে ঠাকুরদালানে এসে পরিবারের মহিলারা তাঁকে বরণ করেন এবং তার পর শুরু হয় দেবীর প্রাণপ্রতিষ্ঠা ও মূলপূজা। বর্তমানে সরকার পরিবারের পাঁচ উত্তরসুরির জন্য পাঁচটি ঘট বসানো হয় এবং লোককথায় জানা যায় যে একসময়ে এই বাড়িতে অঞ্জলি দিতে এসেছিলেন তৎকালীন পুলিশমন্ত্রী কালীপদ মুখোপাধ্যায়।

খান্দরার সরকারবাড়িতে দুর্গাপুজোর মহাষ্টমীর দিন বিশেষ ভোগের আয়োজন করা হয়। ভোগে থাকে লুচি, নানান রকমের ভাজা, নাড়ু, মিষ্টি ইত্যাদি। পশু বলিদানের প্রথা এই পরিবারে বহু দিন আগে প্রচলিত ছিল। তবে বর্তমানে আখ ও চিনি বলিদান হয়। জনশ্রুতি অনুযায়ী মহারাজা সুরথের পূজিত প্রথম মৃন্ময়ী দুর্গাপুজোর স্থান গড়জঙ্গল থেকে আসা শব্দধ্বনি শুনেই বলিদান শুরু হয় এই বনেদিবাড়িতে। মহাষ্টমী পুজোর শেষে দেবীর প্রসাদ সকল ভক্তের মধ্যে বিতরণ করা হয়।

দুর্গাপুজোর মহানবমীর দিন এই বাড়িতে হোম হয় এবং বাড়ির প্রতিটি সদস্য হোমের তিলক নিয়ে তার পর দেবীকে দর্শন করেন। সন্ধ্যাবেলায় পরিবারের সদস্যরা সবাই মিলে ধুনুচিনাচে যোগ দেন। দশমীতে সকালে দেবীর দর্পণে বিসর্জন হয়। এর পর মাছপোড়া খেয়ে নিয়ম ভঙ্গ করেন পরিবারের সদস্যরা।

সন্ধ্যায় দেবীবরণের পর মহিলারা সবাই মিলে ঠাকুরদালানে সিঁদুর খেলেন। কনকাঞ্জলিপ্রথার পর দেবীকে বিসর্জনের পথে নিয়ে যাওয়া হয়। এই ভাবে ঐতিহ্যের সঙ্গে আজও পরম্পরাকে অক্ষুণ্ন রেখে পুজো করে আসছেন পশ্চিম বর্ধমানের খান্দরা গ্রামের সরকার পরিবারের সদস্যরা।

খবরঅনলাইনে আরও পড়ুন

পশ্চিম বর্ধমানের খান্দরার বকশিবাড়ি বৈষ্ণবধারার হলেও পুজোয় বলিদান হয় দেবীরই আদেশে

Advertisement
Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

খাওয়াদাওয়া

মহানবমীতে পেঁয়াজ রসুন ছাড়া নিরামিষ পাঁঠার মাংস

Published

on

খবরঅনলাইন ডেস্ক: নবমীর দিন মাংস খাওয়ার চল অনেক বাড়িতেই আছে। তাই রইল নিরামিষ কচি পাঁঠার মাংস রান্নার রেসিপি।

উপকরণ

কচি পাঁঠার মাংস ৮০০ গ্রাম, হলুদ ২ চা চামচ, নুন পরিমাণমতো, আদাবাটা ২ চা চামচ, জিড়েবাটা ২ চা চামচ, গোটা ধনে ১ চা চামচ, জিরে ১ চা চামচ, গোলমরিচ গোটা ১/২ চা চামচ, সেদ্ধ চাল ২ চা চামচ, গোটা গরম মশলা – দারুচিনি, ছোটো এলাচ, লবঙ্গ, জায়ফল, জয়িত্রী, কাঁচালঙ্কা ৪টে, পাতি লেবু ২টো, লঙ্কাগুঁড়ো দেড় চা চামচ, সরষের তেল, টক দই ২ টেবিল চামচ, টমেটো ২টো টুকরো করে কাটা।

পদ্ধতি

মাংসটি ভালো করে ধুয়ে জল ঝরিয়ে রাখতে হবে। তাতে পরিমাণমতো নুন, ১ চা চামচ হলুদগুঁড়ো, আদাবাটা, জিরেবাটা, লঙ্কাগুঁড়ো, পাতিলেবুর রস, সরষের তেল, টকদই, কাঁচা লঙ্কা দিয়ে ভালো করে চেপে চেপে মাখতে হবে। এর পর আধ ঘণ্টা ম্যারিনেট করে রাখতে হবে।

এই সময়ের মধ্যে উনুনে কড়াই বসিয়ে শুকনো খোলায় মশলা ভেজে নিতে হবে। তার জন্য প্রথমে চালটা দিয়ে কিছুটা নেড়ে নিতে হবে। এর পর একে একে গোটা জিরে, গোটা ধনে, গোটা গোল মরিচ, গোটা গরম মশলা সমস্তটা দিয়ে ভালো করে ভেজে নিতে হবে। ভাজা মশলা গুঁড়িয়ে নিতে হবে।

খানিকটা জল গরম করে রাখতে হবে।

এর পর কড়াইয়ে ২ টেবিল চামচ সরষের তেল দিয়ে গরম হলে তাতে গোটা জিরে ফোঁড়ন দিতে হবে। ফোঁড়ন হালকা ভাজা হলে তাতে টমেটোর টুকরো দিয়ে নেড়ে তার পর মাংস দিতে হবে। এর পর মাংসের বাটিতে সামান্য জল দিয়ে বাটিধোয়া জলটা কড়াইয়ে দিয়ে দিতে হবে। এর পর ভালো করে কষিয়ে রান্না করতে হবে। মাঝে মধ্যে চাপা দিয়ে কষালে জল বেরিয়ে সেদ্ধ হতে থাকবে। এর পর জল শুকিয়ে হালকা ভাজা মতো হলে তাতে গরম জল দিয়ে ভালো করে নেড়ে জল কমে এলে আবার একটু গরম জল দিয়ে কষাতে হবে। এ বার তেল ছেড়ে গেলে এর পর প্রেসার কুকারে মাংস ঢেলে গরম জল দিয়ে ভালো করে নেড়ে কম আঁচে বসিয়ে একটা সিটি এলে বন্ধ করে দিতে হবে। এর পর গুঁড়িয়ে রাখা ভাজা মশলা ছড়িয়ে ভালো করে ফুটিয়ে একটা সিটি আসার আগেই নামিয়ে নিতে হবে।

তৈরি নিরামিষ মাংস।       

পড়ুন -পুজোর রেসিপি: মালপোয়া

Continue Reading

দুর্গা পার্বণ

দুর্গোৎসব বাংলাদেশে: রাজধানীর সব চেয়ে বড়ো দুর্গাপূজার আয়োজন রমনা কালীমন্দিরে

এই মন্দির-চত্বরে বাবা লোকনাথের মন্দির, হরিচাঁদ এবং রাধাকৃষ্ণ মন্দির রয়েছে। এখানকার সব মন্দিরকে যেন একই বন্ধনে বেঁধে রেখেছেন আনন্দময়ী মা।

Published

on

রমনা কালীমন্দিরে ভিড়।

ঋদি হক: ঢাকা

ঐতিহাসিক রমনা কালীমন্দির ও মা আনন্দময়ী আশ্রমের মূল ফটকে পৌঁছে থমকে দাঁড়াতে হল। ডান পাশে শানবাঁধানো ঘাটে ভক্তদের ভিড়। কারণ আর কিছুই নয়। পুকুরে স্থাপন করা ৪০ ফুট উচ্চ নারায়ণের মূর্তিকে কেউ প্রণাম করতে ব্যস্ত, কেউ বা সেলফি তুলছেন সপরিবার। মূল ফটক পেরিয়ে সামনে এগিয়েই দাঁড়াতে হল সারিবদ্ধ লাইনে। হাতে স্যানিটাইজার নেওয়ার পর মন্দির-চত্বরে প্রবেশ। 

সেখানেও কম করে হলেও হাজার ছাড়িয়ে যাওয়া ভক্ত। মন্দিরের প্রচার সম্পাদক অপূর্ব সাহা জানালেন, মন্দির-চত্বরে এক সঙ্গে যাতে হাজার দুয়েক ভক্ত বসতে পারেন, সে ব্যবস্থা তাঁরা করেছেন। কিন্তু মাকে দর্শনের জন্য এত ভক্ত আসবেন সেই ধারণা ছিল না। অনেক ভক্তকেই দাঁড়িয়ে থাকতে হয়েছে। 

হাত স্যানিটাইজ করে ঢোকা।

রমনা কালীমন্দিরে দিনভর ভক্তের ভিড় লেগে থাকার আরও একটি কারণ হচ্ছে,  পাশেই ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যান। সেখানে সাংস্কৃতিক বলয় গড়ে তুলছে হাসিনা সরকার। মাকে দর্শনের পর অনেকেই সেখানে ঘুরতে যান। বিকেলে ফের চলে আসেন মন্দিরে। এখানে বিকেলের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করে বাড়ি ফিরবেন ভক্তেরা।

উল্লেখ্য, ’৭১ সালে বর্বর পাকবাহিনী হাজার বছরের ঐতিহাসিক স্থাপনাটি ডিনামাইট ও ট্যাংক দিয়ে উড়িয়ে দিয়েছিল। হত্যা করেছিল পুরোহিত-সহ শতাধিক ভক্তকে। স্বাধীনতা-পরবর্তী সময়ে যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ গড়ার কাজে যখন মনোনিবেশ করেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, সেই সময় স্বাধীনতার চার বছরের মাথায় তাঁকে সপরিবার হত্যা করা হয়।

দীর্ঘ সময় পর দেশ পরিচালনায় আসেন জাতির জনকের কন্যা শেখ হাসিনা। এ সময় সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের সর্বদক্ষিণে ২.২২ একর জমি বুঝিয়ে দেওয়া হয়। সেখানে গড়ে তোলা হয় মন্দির। এই মন্দির-চত্বরে বাবা লোকনাথের মন্দির,  হরিচাঁদ এবং রাধাকৃষ্ণ মন্দির রয়েছে। এখানকার সব মন্দিরকে যেন একই বন্ধনে বেঁধে রেখেছেন আনন্দময়ী মা।

নারায়ণমূর্তির সামনে ভিড়।

মন্দির কমিটির সভাপতি উৎপল সাহা জানান, ভারত সরকারের সাত কোটি টাকা অর্থ সাহায্যে ঐতিহাসিক রমনা কালীমন্দিরের পুনর্নির্মাণ হচ্ছে। করোনার প্রাদুর্ভাব না হলে এ বারের পুজোর আয়োজন নবনির্মিত মন্দিরেই হত। কিন্তু তা সম্ভব হল না।

আর পূজা আয়োজনের বিষয়ে উৎপলবাবুর সরল উক্তি, সকাল থেকে সন্ধ্যা-রাত অবধি মায়ের দরজা সবার জন্য উন্মুক্ত। হাজারো ভক্ত এসেছেন, মহাপ্রসাদ গ্রহণ করেছেন। সবাই হাসিমুখে মায়ের কৃপা প্রার্থনা করেছেন। এর চেয়ে বেশি আর কীই বা চাওয়ার আছে বলুন। মায়ের আর্শীবাদে আয়োজনের কোনো কমতি নেই ঐতিহাসিক রমনা কালীমন্দির ও মা আনন্দময়ী আশ্রমে।

সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করেন হাজারো ভক্ত।

খবরঅনলাইনে আরও পড়ুন

দুর্গোৎসব বাংলাদেশে: বরদেশ্বরীতে বস্ত্র বিতরণে অভিনেত্রী শাহনূর, ঢাকেশ্বরীতে মাস্ক বিতরণ সমাজসেবী রাহা কাজীর

Continue Reading

কলকাতা

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে এ বার আর বিজয়া সম্মিলনী নয়

নেতা-কর্মীদের ফোনে বিজয়ার শুভেচ্ছা বিনিময়ের পরামর্শ দেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

Published

on

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল ছবি

কলকাতা: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) বাড়িতে এ বছরে বিজয়া সম্মিলনীর আয়োজন করছে না তৃণমূল কংগ্রেস (TMC)। করোনাভাইরাস মহামারির (Coronavirus pandemic) কারণেই তৃণমূল সুপ্রিমোর বাড়িতে প্রতিবছরের মতো বিজয়া দশমীর জমায়েত বাতিল করেছে দল।

তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় শুক্রবার জানান, করোনা পরিস্থিতিতে এ বার কালীঘাটে বিজয়া সম্মিলনী বাতিল করা হয়েছে। পাশাপাশি দলের নেতা-কর্মীদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, বিজয়া দশমী পালনের সময় কোভিডবিধির কথা মাথায় রাখেন। তাঁরা যেন শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে বিজয়া দশমী পালন করেন।

বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনা করে এক জায়গায় মিলিত না হয়ে নেতা-কর্মীদের ফোনে বিজয়ার শুভেচ্ছা বিনিময়ের পরামর্শ দেন পার্থবাবু।

পাশাপাশি তিনি বলেন, আমরা জানি প্রতিবছর এই দিনটিতে অসংখ্য মানুষ তাঁর (মুখ্যমন্ত্রীর) কালীঘাটের বাড়িতে জড়ো হন শুভেচ্ছা জানাতে। কিন্তু করোনা পরিস্থিতি এবং স্বাস্থ্যসুরক্ষা বিধির কথা মাথায় রেখে মুখ্যমন্ত্রী এই ধরনের অনুষ্ঠানে অংশ নিতে পারবেন না।

বিজয়া দশমীতে শুভেচ্ছা বিনিময়ের পাশাপাশি মিষ্টি মুখের ব্যবস্থা থাকে কালীঘাটে মুখ্যমন্ত্রীর বাড়িতে। কিন্তু এ বারের নিউ নরমাল দুর্গোৎসবে অতিথিদের জন্য দলনেত্রীর বাড়ির দরজা বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দল।

এ বারের পুজোর আনন্দে কোপ পড়েছে করোনার। হাইকোর্টের রায়ে ‘মণ্ডপ দর্শকশূন্য’ রাখার নির্দেশে দর্শনার্থীদের পাশাপাশি হা-হুতাশ পুজো উদ্যোক্তাদের মনেও। অন্য়ান্য বছরের মতো রাস্তায় সেই চেনা ঢেউ না থাকলেও নিয়মবিধি মেনেই দূর থেকেই প্রতিমা দর্শনের চেষ্টা করছে একাংশ। এমন পরিস্থিতিতে মুখ্যমন্ত্রীর বাড়িতে বিজয়া সম্মিলনী বাতিল করার সিদ্ধান্তেও রয়েছে তারই রেশ।

আরও পড়তে পারেন: এ বছর বিসর্জনে বিলম্ব করতে চায় না কলকাতার অধিকাংশ পুজো কমিটি

Continue Reading

Amazon

Advertisement
দেশ13 mins ago

দৈনিক মৃতের সংখ্যা ফের ছ’শোর নীচে, সুস্থতার হার বেড়ে প্রায় ৯০ শতাংশ

দেশ47 mins ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ৫০১২৯, সুস্থ ৬২০৭৭

currency notes
শিল্প-বাণিজ্য1 hour ago

মোরাটোরিয়াম: কয়েক দিনের মধ্যেই অ্যাকাউন্টে বাড়তি সুদের টাকা ফেরত পাবেন গ্রাহক

দেশ2 hours ago

কোভ্যাকসিনের ট্রায়াল শেষ হতে পারে এপ্রিলের পর, তবে জরুরি ব্যবহারের সম্ভাবনা তার আগেই!

বিদেশ2 hours ago

কোভিড আক্রান্ত হওয়ার পর ক্ষমা চেয়ে নিলেন পোল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট

ক্রিকেট11 hours ago

নাটকীয় প্রত্যাবর্তন! হারের দরজা থেকে জয় ছিনিয়ে নিল পঞ্জাব

খাওয়াদাওয়া12 hours ago

মহানবমীতে পেঁয়াজ রসুন ছাড়া নিরামিষ পাঁঠার মাংস

শরীরস্বাস্থ্য12 hours ago

শ্বাসকষ্ট কেন হয়? জেনে নিন ৯টি কারণ

দেশ47 mins ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ৫০১২৯, সুস্থ ৬২০৭৭

রাজ্য3 days ago

সপ্তমীর দুপুরে সুন্দরবনে আঘাত হানবে অতি গভীর নিম্নচাপ, ভারী বর্ষণে ভাসতে পারে কলকাতা ও পার্শ্ববর্তী জেলা

কলকাতা2 days ago

কাশীবোস লেনে ‘দেবীঘট’, হাতিবাগানে ‘অসমাপ্ত’, নলীন সরকারে ‘পুজো এবার কাঠামোতে’, নর্থ ত্রিধারার ‘শ্রদ্ধার্ঘ্য’, সিকদারবাগানে ‘উৎসব’

ক্রিকেট2 days ago

হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভরতি কপিল দেব

covaxin
দেশ2 days ago

ভারত বায়োটেকের ‘কোভ্যাকসিন’কে তৃতীয় দফার পরীক্ষার জন্য ছাড়পত্র

কলকাতা1 day ago

মহাসপ্তমীতে কলকাতা মহানগরীর অচেনা ছবি

ক্রিকেট2 days ago

মনীশ, বিজয়ের রেকর্ড জুটিতে রাজস্থানকে হারিয়ে দিল হায়দরাবাদ

ক্রিকেট2 days ago

ব্যাটে-বলে দাপট মুম্বইয়ের, ছিন্নভিন্ন চেন্নাই

কেনাকাটা

কেনাকাটা2 weeks ago

মেয়েদের কুর্তার নতুন কালেকশন, দাম ২৯৯ থেকে শুরু

খবর অনলাইন ডেস্ক: পুজো উপলক্ষ্যে নতুন নতুন কুর্তির কালেকশন রয়েছে অ্যামাজনে। দাম মোটামুটি নাগালের মধ্যে। তেমনই কয়েকটি রইল এখানে। প্রতিবেদন...

কেনাকাটা3 weeks ago

‘এরশা’-র আরও ১০টি শাড়ি, পুজো কালেকশন

খবর অনলাইন ডেস্ক : সামনেই পুজো আর পুজোর জন্য নতুন নতুন শাড়ির সম্ভার নিয়ে হাজর রয়েছে এরশা। এরসার শাড়ি পাওয়া...

কেনাকাটা3 weeks ago

‘এরশা’-র পুজো কালেকশনের ১০টি সেরা শাড়ি

খবর অনলাইন ডেস্ক : পুজো কালেকশনে হ্যান্ডলুম শাড়ির সম্ভার রয়েছে ‘এরশা’-র। রইল তাদের বেশ কয়েকটি শাড়ির কালেকশন অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন...

কেনাকাটা4 weeks ago

পুজো কালেকশনের ৮টি ব্যাগ, দাম ২১৯ টাকা থেকে শুরু

খবর অনলাইন ডেস্ক : এই বছরের পুজো মানে শুধুই পুজো নয়। এ হল নিউ নর্মাল পুজো। অর্থাৎ খালি আনন্দ করলে...

কেনাকাটা4 weeks ago

পছন্দসই নতুন ধরনের গয়নার কালেকশন, দাম ১৪৯ টাকা থেকে শুরু

খবর অনলাইন ডেস্ক : পুজোর সময় পোশাকের সঙ্গে মানানসই গয়না পরতে কার না মন চায়। তার জন্য নতুন গয়না কেনার...

কেনাকাটা4 weeks ago

নতুন কালেকশনের ১০টি জুতো, ১৯৯ টাকা থেকে শুরু

খবর অনলাইন ডেস্ক : পুজো এসে গিয়েছে। কেনাকাটি করে ফেলার এটিই সঠিক সময়। সে জামা হোক বা জুতো। তাই দেরি...

কেনাকাটা1 month ago

পুজো কালেকশনে ৬০০ থেকে ১০০০ টাকার মধ্যে চোখ ধাঁধানো ১০টি শাড়ি

খবর অনলাইন ডেস্ক: পুজোর কালেকশনের নতুন ধরনের কিছু শাড়ি যদি নাগালের মধ্যে পাওয়া যায় তা হলে মন্দ হয় না। তাও...

কেনাকাটা1 month ago

মহিলাদের পোশাকের পুজোর ১০টি কালেকশন, দাম ৮০০ টাকার মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : পুজো তো এসে গেল। অন্যান্য বছরের মতো না হলেও পুজো তো পুজোই। তাই কিছু হলেও তো নতুন...

কেনাকাটা1 month ago

সংসারের খুঁটিনাটি সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে এই জিনিসগুলির তুলনা নেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক : নিজের ও ঘরের প্রয়োজনে এমন অনেক কিছুই থাকে যেগুলি না থাকলে প্রতি দিনের জীবনে বেশ কিছু সমস্যার...

কেনাকাটা1 month ago

ঘরের জায়গা বাঁচাতে চান? এই জিনিসগুলি খুবই কাজে লাগবে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : ঘরের মধ্যে অল্প জায়গায় সব জিনিস অগোছালো হয়ে থাকে। এই নিয়ে বারে বারেই নিজেদের মধ্যে ঝগড়া লেগে...

নজরে