sun temple in singhi park
সূর্য মন্দির তৈরি হচ্ছে সিংহি পার্কে। নিজস্ব চিত্র।
smita das
স্মিতা দাস

সূর্যবন্দনার সুরে সুর মিলিয়ে সিংহি পার্কে মায়ের বন্দনা। ৭৭তম বছরে সিংহি পার্কে মণ্ডপ গুজরাতের মেহসানা জেলার মধেরা সূর্য মন্দির। অধিকাংশের মত অনুযায়ী, সোলাঙ্কি রাজা ১ম ভীমদেবের হাতে খ্রিস্টীয় অষ্টম শতকে তৈরি শিল্পসুষমা মণ্ডিত, ভাস্কর্যে অনবদ্য এই মন্দির। সুপ্রাচীন এই মন্দিরের আদলেই তৈরি হচ্ছে মণ্ডপ। মূল মন্দিরে রয়েছে তিনটি খণ্ড। কিন্তু মণ্ডপে থাকছে দু’টি। গর্ভগৃহ আর নাটমন্দির।

কমিটির সাধারণ সম্পাদক অভিজিৎ মজুমদার বলেন, ভারতের এমন বহু জায়গা আছে যেগুলি দেখলে মন জুড়িয়ে যায়। আর আমাদের আশেপাশে এমন অনেক মানুষ আছেন যাঁরা সেই সব দেখার সৌভাগ্য থেকে বঞ্চিত। তাঁদের কাছে গোটা ভারতের বিশেষ বিশেষ স্থান বা স্থাপত্য তুলে ধরাই  আমাদের উদ্দেশ্য। তাই প্রতি বছর বিভিন্ন দর্শনীয় স্থান নিয়ে কাজ করে সিংহি পার্ক। তেমনই এ বছরেও। গুজরাতের এই মন্দিরটি এ বার তুলে আনা হয়েছে সিংহি পার্কের মণ্ডপে।

আরও পড়ুন নলিন সরকার স্ট্রিটে ‘মগ্ন চৈতন্য’

মণ্ডপের ওজন ঠিক রাখার জন্য ব্যবহার হচ্ছে ফাইবার গ্লাস আর থার্মোকল। আবহসঙ্গীত করছেন শুভেন চট্টোপাধ্যায়। গোটা মণ্ডপের ভাবনা ও সৃজনে মিঠুন দত্ত। প্রতিমাশিল্পী এ বারেও প্রদীপ রুদ্র পাল। প্রতিমা থাকবেন সাবেক রূপেই। আলোকসজ্জায় চন্দননগরের পিন্টু ইলেকট্রনিক্স। থাকছে এলইডি পিক্সেল আলো। তাতে সেজে উঠবে চলার পথ এবং প্রবেশ ও বাহির দ্বার। থাকবে আইফেল টাওয়ার, আরব্যরজনীর পরী, জিন আরও অনেক কিছু।

preparation  going on in singhi park
সিংহি পার্কে চলছে কাজ। নিজস্ব চিত্র।

গত বছরের থিম ছিল  ‘মুক্তাকাশে মানবতার বাহুপাশে’। কর্নাটকের নামদ্রলিং গুম্ফার আদলে মণ্ডপ। তিব্বতী ঘরানার আলোর সাজ।

পথনির্দেশ

গড়িয়াহাট থেকে একটু হেঁটে ডোভার লেনে মণ্ডপ। একডালিয়া এভারগ্রিনের বিপরীতে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন