naktala udayan sangha
নাকতলা উদয়ন সংঘ।

দুর্গাপূজার এখন মধ্যগগন। পাঁচ দিনের উৎসবের আজ তৃতীয় দিন, মহাষ্টমী। ইতিমধ্যে খবর অনলাইন কলকাতা শহরে পুজো পরিক্রমা মোটামুটি শেষ করেছে। এ বার বেরিয়ে পড়ল শহরের আরও দক্ষিণে – গড়িয়া-বেহালা অঞ্চলে।

রায়পুর ক্লাব

এ বার এদের পুজোয় স্মরণ করা হয়েছে করা হয়েছে দানশীল সুবোধচন্দ্র মল্লিককে। মণ্ডপ করা হয়েছে রাজবাড়ির আদলে। যাদবপুর থেকে গড়িয়ার পথে রামগড়ে নেমে বাঁ দিকে।

durga at patuli sarbojaninবৈষ্ণবঘাটা পাটুলি উপনগরী সর্বজনীন

হারিয়ে যাওয়া জলজ প্রাণীদের রক্ষার বার্তা দেওয়া হয়েছে এ বারের থিমে। রুবির দিক থেকে ইএম বাইপাস ধরে পাটুলি মোড়ে এসে ডান দিকে।

পাটুলি সর্বজনীন

এ বার এদের থিম ‘জিয়নকাঠি’। কদবেল কেটে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে ক্রিস্টালের আলোকসজ্জা। ‘পদ্মশ্রী’র দিক থেকে পাটুলি কানেক্টর ধরে এলে গোল্ডস্মিথ স্কুল স্টপে নেমে বাঁ দিকে।

কেন্দুয়া শান্তি সংঘ

এদের থিম ‘সেফ ড্রাইভ, সেভ লাইফ’। গাড়ির যন্ত্রাংশ, হেলমেট ইত্যাদি দিয়ে তৈরি হয়েছে মণ্ডপ। ‘পদ্মশ্রী’র দিক থেকে পাটুলি কানেক্টর ধরে এলে বাঁ দিকে মণ্ডপ।

গড়িয়া শ্রীরামপুর কল্যাণ সমিতি

আইসক্রিমের কাঠি ও মাদুরকাঠি দিয়ে তৈরি হয়েছে মণ্ডপ। যাদবপুর থেকে গড়িয়ার দিকে এলে গড়িয়া মোড়ের আগে বাঁ দিকে মণ্ডপ।

গড়িয়া মিতালি সংঘ

এ বারেও এদের নবদুর্গা। বাঁশের অলংকরণে তৈরি মণ্ডপে দুর্গার ন’টি রূপ। এদের এ বারের থিম ‘সৃষ্টির উল্লাস’। গড়িয়া মোড়ের পরের স্টপ শীতলামন্দির। সেখান থেকে বাঁ দিকে। কবি নজরুল মেট্রো স্টেশন থেকে হাঁটা পথ।

সোনারপুর রিক্রিয়েশন ক্লাব

পুরুলিয়ার এক টুকরো গ্রাম তুলে এনেছে সোনারপুর রিক্রিয়েশন ক্লাব। এই ক্লাবের পুজোর নাম পাওয়ার হাউস সর্বজনীন দুর্গোৎসব। থাকছে লাইভ ছৌ নাচও। গড়িয়া থেকে কামালগাজি যাওয়ার পথে পাওয়ার হাউস বাসস্টপ। নিকটবর্তী মেট্রো স্টেশন কবি নজরুল।

naktala udayan sanghaনাকতলা উদয়ন সংঘ

জীবন ও মৃত্যু, একই মুদ্রার এ-পিঠ ও-পিঠ। এদের এ বারের থিমে এটাই বোঝানো হয়েছে। গড়িয়া থেকে টালিগঞ্জগামী রাস্তায় বাঁ দিকে। কাছের মেট্রো স্টেশন গীতাঞ্জলি।

বাঁশদ্রোণী সম্মিলিত

এদের থিম ‘যিনি কৃষ্ণ, তিনিই কালী, তিনিই দুর্গা’। মণ্ডপে তলতা ও মুলি বাঁশের কাজ। গড়িয়া থেকে টালিগঞ্জগামী রাস্তায় বাঁশদ্রোণী বাজার স্টপ। কাছের মেট্রো স্টেশন মাস্টারদা।

নেতাজিনগর নাগরিকবৃন্দ

এদের থিম ‘অঙ্গ বঙ্গ কলিঙ্গ’। বাংলা, বিহার, ওড়িশার লোকশিল্পের কাজ রয়েছে মণ্ডপে। গড়িয়া থেকে টালিগঞ্জগামী রাস্তায় নেতাজিনগর স্টপ। কাছের মেট্রো স্টেশন মাস্টারদা।

behala clubবেহালা ক্লাব

এদের এ বারের থিম ‘শান্তির ভাব, বেহালা ক্লাব’। আমাদের দৈনন্দিন জীবনে দৌড় ছাড়া যেখানে কিছুই নেই সেখানে একছুট্টে শান্তি-পরবাসের ঠিকানা মনে হয় বেহালা ক্লাব। বেহালা থানার বিপরীতে হরিসভা ময়দানে মণ্ডপ।

বড়িশা ক্লাব

গড়িয়া অঞ্চল থেকে সরাসরি চলে আসুন বেহালা-বড়িশা অঞ্চলে। লক্ষ্যভেদের নানান অনুষঙ্গ নিয়ে এ বারের ভাবনা বড়িশা ক্লাবের। থিমে রয়েছে লক্ষ্যভেদ নিয়ে পুরাণ মহাকাব্যের নানান কাহিনী। দুর্গা সৃষ্টির লক্ষ্য, রামচন্দ্রের লক্ষ্য ইত্যাদি। তারাতলা মোড় থেকে ডায়মন্ড হারবার রোড দিয়ে এলে সখেরবাজার মোড় থেকে বাঁ দিকে, জেমস লং সরণি ধরে এলে ডান দিকে।

বড়িশা উদয়ন পল্লি

সুবর্ণ জয়ন্তীতে থিম ‘সোনালি চোখের স্বপ্ন’। নানা ধরনের সোনালি রঙের উপকরণ, অলংকার দিয়ে সাজানো হয়েছে মণ্ডপ।

বড়িশা ইয়ুথ ক্লাব

থিম ‘বিন্দু থেকে সিন্ধু’। অনেক জলের বিন্দু দিয়ে যেমন সমুদ্র গড়ে ওঠে, তেমনই সমাজে অসংখ্য মানুষের বসবাস। তবে তাদের বাহ্যিক পার্থক্য থাকলেও আসলে সকলের ভেতরের সত্তা হল মানবতার। তারা একই কথা বলে, এই হল থিমের বার্তা। শীলপাড়া থেকে সোজা পশ্চিমে।

বড়িশা সর্বজনীন

এ বারের থিমে ‘শূন্যতে শুরু শূন্যতেই শেষ’। শূন্যের অসীম ক্ষমতা বোঝানো হয়েছে। শূন্যের প্রতীক হিসেবে নাগরদোলা, জলাশয় আর সুড়ঙ্গ রয়েছে। ঠাকুরের চালচিত্রে মহাপুরুষদের ছবি। ছোটোদের মহাপুরুষদের আদর্শে অনুপ্রাণিত করতেই এই ভাবনা। সখেরবাজারের পশ্চিমে, দ্বাদশ শিবমন্দিরের মাঠে মণ্ডপ।

behala natun dalবেহালা নতুন দল

এ বারের থিম ‘অন্দরমহল’। বাড়ির ভেতরের সব দায়িত্ব-ক্ষমতা বাড়ির মহিলাদের ওপর থাকে, তেমনই জগৎ সংসারের দায়িত্ব-ক্ষমতাও মা দুর্গার হাতে। থিমের এটাই বিষয়। উপকরণ লোহা।

 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here