preparation going on at Nalin Sarkar Street
কাজ চলছে নলিন সরকার স্ট্রিটে। নিজস্ব চিত্র।
smita das
স্মিতা দাস

মানুষ ক্রমশ সমাজ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ছে। হতাশা গ্রাস করছে তাকে। এর পেছনে রয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ার দাপাদাপি। ফলে মানুষের মধ্যে বাস্তব চিন্তাজগৎ সম্পর্কে বোধ লোপ পাচ্ছে। ফলে ক্রমশ একাকিত্ব গ্রাস করছে তাকে। তার থেকে অনেকেই এগিয়ে যাচ্ছে মৃত্যুর দিকে। তৈরি হচ্ছে আত্মহত্যার প্রবণতা। এই কঠিন পরিস্থিতি থেকে মানুষকে বের করে আনার উপায় বাস্তব চৈতন্য আর বোধকে জাগিয়ে তোলা। সেই বোধের দ্যোতক হিসাবে ৮৬তম বর্ষে নলিন সরকার স্ট্রিট সার্বজনীন নিয়ে আসছে থিম ‘মগ্ন চৈতন্য’।

শিল্পী সালভাদর দালির অপরাবাস্তব নিয়ে কিছু কাজ থেকে অনুপ্রেরণা পেয়ে এই থিম তুলে ধরছেন শিল্পী অভিজিৎ ঘটক। প্রতিমাশিল্পীও তিনি। প্রতিমায় থাকছে আধুনিকতা আর সাবেকের মেলবন্ধন।

আরও পড়ুন ‘সব চরিত্র কাল্পনিক’ বাদামতলা আষাঢ় সংঘে

মণ্ডপ তৈরির উপকরণ হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে বাঁশ, কাঠ, ফাইবার, কাপড়, প্লাই ইত্যাদি।

নলিন সরকার স্ট্রিট পুজোর গত বারের থিম ছিল ‘মা তুমি কার?’ কাজ হয়েছিল শারীরিক প্রতিবন্ধীদের নিয়ে।

nalin sarkar st. puja
মগ্ন চৈতন্য। নিজস্ব চিত্র।

দুর্গাপুজো কমিটির প্রেসিডেন্ট জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায় বলেন, দ্বিতীয়ার মধ্যেই মণ্ডপ তৈরির কাজ শেষ করে ফেলা হবে। প্রতিমা দর্শন করা যাবে তার পর থেকেই। কোনো রকম বাহ্যিক আড়ম্বর করে উদ্বোধন তাঁরা করেন না। সবটাই শুরু থেকেই সর্বসাধারণের, জানালেন জয়ন্তবাবু।

পথনির্দেশ

শ্যামবাজারের দিক থেকে গেলে খান্নার মোড়ে নেমে ডান দিকে বা হাতিবাগান ক্রশিং-এ নেমে বাঁ দিকে হাঁটা পথ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন