গুয়াহাটি: বিশ্বের সব থেকে বড়ো দুর্গা করেছিল দেশপ্রিয় পার্ক। কিন্তু আনন্দের থেকে সেখানে বিতর্কই ছিল অনেক বেশি। পুলিশের নির্দেশে বন্ধ হয়ে যায় সেই পুজো। তবে দেশপ্রিয় পার্ক রেকর্ডের খাতায় নাম লিখিয়ে ফেলেছিল সব থেকে বড়ো দুর্গা হিসেবে। সেই রেকর্ডটি এ বার ভাঙতে চলেছে গুয়াহাটি।

বিশ্বের সব থেকে বড়ো দুর্গাপ্রতিমা তৈরি করার উদ্যোগ নিয়েছে শহরের বিষ্ণুপুর দুর্গাপুজো কমিটি। বাঁশের তৈরি এই প্রতিমার উচ্চতা একশো ফুট। ৪০ জন শিল্পীকে নিয়ে এই বাঁশের প্রতিমার মূল কারিগর ৫৯ বছরের নুরুদ্দিন আহমেদ। গত ১ আগস্ট থেকে কাজ শুরু করেছেন তিনি।

নুরুদ্দিনের কথায়, “২০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে কাজ শেষ করার চেষ্টা করব। এটা বাঁশের তৈরি সব থেকে বড়ো ভাস্কর্য হতে চলেছে। এর আগে সব থেকে বড়ো দুর্গাপ্রতিমা হয়েছিল কলকাতায়।” এখনও পর্যন্ত বিভিন্ন আকারের মোট ৪,০০০ বাঁশ ব্যবহার করেছেন শিল্পী। আরও অন্তত দু’হাজারটি বাঁশ লাগবে এই প্রতিমাকে পূর্ণ রূপ দিতে। প্রতিমা তৈরিতে মোট খরচ হবে ১২ লক্ষ টাকা।

প্রতিমার তলায় একটি প্ল্যাটফর্মও তৈরি করা হচ্ছে। নুরুদ্দিনের কথায়, প্ল্যাটফর্মটা যোগ করলে, প্রতিমার উচ্চতা হবে ১১০ ফুট। গিনেস বুকে নাম তুলতেও তৎপর হয়েছে এই পুজো কমিটি। নুরুদ্দিনের কথায়, “গিনেস বুকের রেকর্ডের জন্য নথিভুক্তিকরণের প্রক্রিয়া শেষ করেছি আমরা। ২০ সেপ্টেম্বর গিনেস বুক থেকে আধিকারিকরা আসবেন।”

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here