নয়াদিল্লি : দেশের সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারদের মধ্যে জ্ঞানের অভাব রয়েছে। তাঁদের ৯৫ শতাংশই সফটওয়্যার তৈরির কাজ করতে পারেন না। বলছে অ্যাস্পায়ারিং মাইন্ড নামের একটি সংস্থার সমীক্ষা। এটি কর্মসংস্থান মূল্যায়নকারী একটি সংস্থা। সংস্থাটি সমীক্ষায় জানিয়েছে, সফটওয়্যার তৈরির জন্য একটি ঠিকঠাক কোড লিখতে জানেন মাত্র ৪.৭৭% ইঞ্জিনিয়ার। এই ধরনের কাজ করার জন্য এটাই ন্যূনতম যোগ্যতা।

সমীক্ষা আরও বলছে,

১) ৫০০টি কলেজে ৩৬ হাজারের বেশি ইনফর্মেশন টেকনোলজির পড়ুয়া রয়েছেন। তারা অটোমাটা নিয়ে পড়াশোনা করেন। এঁদের দুই তৃতীয়াংশ সফটওয়্যার তৈরির জন্য প্রয়োজনীয় কোড লিখতে পারেন না।

২) যাঁরা এই কোড লিখতে পারেন তাঁদের মধ্যে মাত্র ১.৪%-এর লেখা কোড ঠিক হয়, যা একটা নতুন সফটওয়্যার তৈরি করতে পারে। এই যোগ্যতার অভাবের জন্য ইনফর্মেশন টেকনোলজি আর ডেটা সায়েন্স নিয়ে কাজের ক্ষেত্রে দেশের অবস্থা এত খারাপ। সংস্থার সিটিও তথা কো-ফাউন্ডার বরুণ অগ্রওয়াল বলেন, গোটা বিশ্ব এই কাজে উন্নতি করার জন্য ছুটছে। ভারতকেও সেটা করতে হবে।

৩) সমীক্ষাটি বলছে, কর্মসংস্থানগত সমস্যর কারণে শিক্ষার মানের পরিবর্তন হচ্ছে।

৪) পাশাপাশি, ভালো শিক্ষকের অভাবও এই ঘাটতির অন্যতম কারণ। ভালো প্রোগ্রামিং শেখানোর জন্য চাই ভালো প্রোগ্রামার, কিন্তু সে ক্ষেত্রেও অভাব রয়েছে।

৫) তা ছাড়াও প্রোগ্রামিং-এর কাজের দক্ষতার ক্ষেত্রেও বিভিন্ন কলেজের পড়ুয়াদের মধ্যে রয়েছে বিস্তর ফারাক। প্রথম সারির কলেজের থেকে তৃতীয় সারির কলেজের পড়ুয়াদের দক্ষতা অনেকটাই কম। এ ক্ষেত্রে সমীক্ষা বলছে, প্রথম শ্রেণীর কলেজ থেকে প্রশিক্ষণপ্রাপ্তের মধ্যে ৬৯% একটা গোটা কোড নির্ভুল ভাবে লিখতে পারেন। কিন্তু বাকি কলেজে প্রশিক্ষণপ্রাপ্তদের মধ্যে মাত্র ৩১% এই নির্ভুল কোড লিখতে সক্ষম।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here