জয়েন্ট এন্ট্রাস পরীক্ষা: কী করবেন আর কী এড়িয়ে চলবেন

0

কলকাতা: দেশের সবচেয়ে প্রতিযোগিতামূলক ইঞ্জিনিয়ারিং প্রবেশিকা পরীক্ষাগুলির মধ্যে অন্যতম একটি হল জয়েন্ট এন্ট্রাস (মেন)। নামীদামি সরকারি বা বেসরকারি ইঞ্জিনিয়ারিং প্রতিষ্ঠানে আবেদনকারী ইঞ্জিনিয়ারিং ছাত্রদের জন্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ পরীক্ষা। প্রথমেই বলে রাখা ভালো, পরীক্ষায় প্রত্যাশা মতো ফল করার জন্য পড়াশোনায় গভীর মনোযোগ দিতে হবে। পাশাপাশি মাথায় রাখতে হবে আরও বেশ কয়েকটি বিষয়।

পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে গেলে কী করা উচিত আর কী এড়ানো উচিত, তা নিয়ে বিভ্রান্তি দেখা দিতে পারে। ফলে এমন কিছু চিন্তা মাথায় না আনাই ভালো, যাতে উদ্বেগ বাড়ে।

যা করতে হবে

*নতুন করে বলার নয়, উত্তীর্ণ হতে গেলে কঠোর প্রস্তুতির প্রয়োজন। সেটাই নিশ্চিত করতে হবে।

*প্রথম বার পরীক্ষা দিয়ে ইঞ্জিনিয়ারিং ভরতি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে গেলে ধারাবাহিক প্রস্তুতির প্রয়োজন। এই বিভাগে মূলত দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষার্থীদের সংখ্যাই বেশি। ফলে প্রস্তুতির ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট কৌশল অনুসরণ করতে হবে।

*আগের জয়েন্ট এন্ট্রাস পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ধরে অনুশীলন করা যেতে পারে। আবার মক টেস্টেও অংশ নেওয়া যেতে পারে।

*প্রতিদিনের অনুশীলনের পর্যালোচনা করুন। কোথায় শক্তিশালী আর কোন জায়গায় দুর্বলতা রয়েছে, সেগুলো খুঁজে বার করতে হবে। সে ক্ষেত্রে দুর্বল বিষয়গুলো আবার ঝালিয়ে নিতে হবে।

*ইতিবাচক হতে হবে। কী ভাবে হবেন, সেটা ব্যক্তিবিশেষে ভিন্ন ভিন্ন উপায় রয়েছে। তবে পরীক্ষাকেন্দ্রে গিয়ে প্রত্যেকেরই উচিত নিজেকে শান্ত রাখা। উদ্বেগহীন রাখা। অর্থাৎ, স্বাচ্ছন্দ্যের সঙ্গেই পরীক্ষা দিতে হবে। বাড়তি চাপ নিতে গেলে হিতে বিপরীত হতে পারে।

*ধীরস্থির থাকতে হবে। কারণ, উদ্বেগ কখনোই কোনো ভাবে সাহায্য করে না। উলটে শারীরিক এবং মানসিক স্বাস্থ্যের উপর চাপ ফেলতে পারে।

যা এড়িয়ে চলতে হবে

*এক সঙ্গে দু’-তিনটে বিষয় না পড়াই ভালো। একটা নির্দিষ্ট বিষয়ের জন্য নির্দিষ্ট সময় বের করে নিন। একটা শেষ করে অন্যটা ধরুন। মাঝে নির্দিষ্ট সময়ের ব্যবধান রেখে নিজের পড়ার মূল্যায়ন করুন।

*মক টেস্টের ফল খারাপ হলে মোটেই ঘাবড়াবেন না। বরং ভুলগুলো চিহ্নিত করে অনুশীলনে মনোযোগ দিন। প্রতিটা পরীক্ষার আগে আত্মবিশ্বাস বাড়াতে প্রচুর অনুশীলনের দরকার। সেটা যে কোনো উপায়ে হোক না কেন।

*পরীক্ষার তারিখ এগিয়ে আসার সঙ্গে কোনো ভাবেই উদ্বিগ্ন বা আতংকিত হওয়া উচিত নয়।

*অনুমানের উপর নির্ভর করে উত্তর দেবেন না। এতে পয়েন্ট হারানোর সম্ভাবনা। ফলে কোনো প্রশ্নের উত্তর যদি একেবারেই অনিশ্চিত ঠেকে, তা এড়িয়ে চলুন।

*কোনো প্রশ্ন যদি বুঝতে অসুবিধা হয়, সেটার জন্যে অত্যধিক সময় খরচ করবেন না। সেটাকে সরিয়ে রেখে এগিয়ে যান। অন্য প্রশ্নগুলোর উত্তর সম্পূর্ণ হয়ে গেলে ফের এক বার ওই না বোঝা প্রশ্নে ফিরে আসা যেতে পারে।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন