কলকাতা: চলতি মাসের শেষেই রাজ্যের স্কুলগুলিতে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের জন্য টেট-এর বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হতে চলেছে। এমনই খবর পর্ষদ সূত্রে। খুব শিগগির রাজ্যে টিচার্স এলিজিবিলিটি টেস্ট নেওয়ার জন্য প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ প্রস্তুত বলে শুক্রবার জানিয়েছেন, পর্ষদ সভাপতি মানিক ভট্টাচার্য। 

রাজ্যের স্কুলগুলিতে শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া শেষের পথে। ৪২ হাজার শূন্যপদে শিক্ষক নিয়োগ হয়েছে। কিন্তু তা সত্ত্বেও বিভিন্ন জেলায় কিছু প্রার্থীর নিয়োগপত্র বাতিল হয়ে যাওয়ায় বেশ কিছু শূন্যপদ রয়ে গিয়েছে। এদিকে একাধিক সমস্যার জেরে নিয়োগজটে আটকে ছিলেন বেশ কিছু প্রার্থী। সেই জট কাটাতে উদ্যোগী হয়েছে রাজ্য সরকার। সবদিক পর্যালোচনা করে সমস্ত যোগ্য প্রার্থীকেই চাকরির সুযোগ করে দিচ্ছে পর্ষদ। শুক্রবার পর্ষদের তরফে বেশ কয়েকজন প্রার্থীকে কাউন্সেলিং করে নিয়োগপত্র দেওয়া হয়।

মানিকবাবু জানান, প্রথমত, প্রাথমিকে কর্মরত টেট উত্তীর্ণ পার্শ্বশিক্ষক, যারা সরকারি নথিভুক্ত, তাঁদের প্রত্যেককে এদিন নিয়োগপত্র দেওয়া হয়েছে। দ্বিতীয়ত, হাইকোর্টের নির্দেশে, টেট উত্তীর্ণ আরসিআই অনুমোদিত ডিএড(স্পেশাল) প্রশিক্ষণপ্রাপ্তদের নিয়োগপত্র দেওয়া হয়েছে। এমন প্রার্থী রয়েছেন ২৬০ জন। তৃতীয়ত, দু’বছরের ডি,ইএল.ইডি কোর্সের কিছু প্রার্থী এক বছরের সার্টিফিকেট জমা দিয়েছিলেন। এমন ৭২ জন প্রার্থীকেও নিয়োগপত্র দেওয়া হয়েছে। চতুর্থত, ২০৭ জন টেট উত্তীর্ণ প্রশিক্ষিত প্রার্থী নিয়োগপত্র পাননি। তাঁদের চাকরিতে যোগ দেওয়ার সুযোগ করে দেওয়া হয়েছে। পঞ্চমত, জমিহারা এক্সেমটেড ক্যাটেগরির ৫৬ জনকেও নিয়োগপত্র দেওয়া হয়েছে।

তবে ভোটের জন্য, পূর্ব মেদিনীপুরে নিয়োগ সংক্রান্ত সমস্যার সমাধান স্থগিত রয়েছে। পশ্চিম মেদিনীপুরের প্রার্থীদের ক্ষেত্রে আগামী সপ্তাহেই বাকি থাকা নিয়োগ সম্পন্ন করা হবে।

1 মন্তব্য

  1. এই মাসে কী পাথমিক নিয়োগেড় বিজ্ঞপতি বেড়াবে.আর বের হলে কারা ফর্ম ফিলাপ করতে পারবে.

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here