প্রাইমারী থেকে মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষাব্যবস্থায় অনেক রদবদল হচ্ছে। প্রত্যেকটি স্কুলে চালু হতে চলেছে ‘শিশু সংসদ’। এই ‘শিশু সংসদ’ রাজ্যের স্কুলের পড়ুয়াদের একটি পার্লামেন্ট।

রাজ্যের স্কুল শিক্ষা দফতর সূত্রে খবর, পঞ্চম থেকে দশম শ্রেণীর ছাত্র-ছাত্রীরা এই শিশু সংসদে যোগ দিতে পারবে। শিশু সংসদের মাধ্যমে ছাত্র-ছাত্রীরা স্কুলের ম্যানেজমেন্ট, উন্নয়ন এবং সিদ্ধান্ত গ্রহণে নিজেদের মতামত জানাতে পারবে। এছাড়া  শিশু সংসদের মাধ্যমে ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে থেকে নেতৃত্ব দানের ক্ষমতা আছে কিনা সেটাও বোঝা যাবে।

রাজ্যের স্কুল শিক্ষা দফতরের তরফ থেকে জানা গেছে, শিশু সংসদে স্বাস্থ্যমন্ত্রী, প্রধানমন্ত্রী, খাদ্য মন্ত্রীর মতো পদ থাকবে। শিশু সংসদে কী কাজ হবে তার জন্য প্রতিটি স্কুলে আট দফা গাইডলাইন দেওয়ার কাজ শুরু করেছে রাজ্যের স্কুল শিক্ষা দফতর। এই শিশু সংসদের সভাপতি হবে স্কুলের প্রধান শিক্ষক বা ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক। শিশু সংসদের মাধ্যমে মিড ডে মিল নজরদারি, তর্ক-বিতর্ক আলোচনা সভা আয়োজন, স্কুলের কী প্রয়োজনীয়তা রয়েছে সমস্ত বিষয়ের ওপরে নজর দেওয়া হবে। এছাড়া আরও একাধিক কাজের ব্যাপারেও দেখা হবে।

এছাড়া এক শ্রেণী থেকে পরবর্তী শ্রেণীতে উঠলে স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের সম্মান দেওয়া হবে। নতুন এই ব্যবস্থা চালু করছে রাজ্যের স্কুল শিক্ষা দফতর। এক ক্লাস থেকে পরবর্তী ক্লাসে উত্তীর্ণ হওয়া ছাত্র ছাত্রীদের জন্য স্কুলে স্কুলে পালিত হবে ‘গ্র্যাজুয়েশন সেরিমনি’। রাজ্য স্কুল শিক্ষা দফতরের তরফে ১৩ দফা গাইডলাইন দিয়ে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ ও মধ্যশিক্ষা পর্ষদকে বিস্তারিত নির্দেশিকা পাঠানো হয়েছে বলেই দফতর সূত্রে খবর। প্রতিবছর রাজ্য জুড়ে প্রতিটি স্কুলে স্কুলে ২ রা জানুয়ারি ছাত্র-ছাত্রীদের  দেওয়া হবে এই বিশেষ সম্মান।

শিক্ষা ও কেরিয়ার সংক্রান্ত খবর পড়তে এখানে ক্লিক করুন

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন