কলকাতা:  ভোকেশনাল ট্রেনিংয়ের জন্য এ বার থেকে আর অন্য কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কড়া নাড়তে হবে না। রাজ্যের কর্মহীনতার চিত্রকে আমূল বদলে দিতে উচ্চ মাধ্যমিক স্কুলেই মিলবে সেই সুযোগ। যেখানে হাত-কলমে কাজ শিখে বেকারত্ব ঘোঁচানোর পথ অনেক বেশি প্রশস্ত হবে। একটি বৈঠকে রাজ্যের কারিগরি শিক্ষামন্ত্রী পূর্ণেন্দু বসু তেমন প্রকল্পের কথাই ঘোষণা করলেন।

মাধ্যমিক পাশ করার পরই নির্দিষ্ট কয়েকটি কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এখন মিলে থাকে পেশাদারি প্রশিক্ষণের সুযোগ। সেখানে কোথাও কো‌থাও দিতে হয় প্রবেশিকা পরীক্ষা আবার কোথাও বা মাধ্যমিকে প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে ভর্তি হওয়ার ছাড়পত্র মেলে। কিন্তু প্রয়োজনের তুলনায় অপ্রতুল ওই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ইচ্ছা ও যোগ্যতা থাকলেও বেশির ভাগ ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি হতে পারেন না। এই ধরনের বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলিতে আবার দক্ষিণা এতটাই বেশি যে, অনেকেই সে মুখো হতে চান না। তাই রাজ্য সরকার নিজস্ব উদ্যোগে এই প্রকল্প বাস্তবায়িত করতে চায়।

মন্ত্রী বলেন, পশ্চিমবঙ্গ সরকার চাইছে উচ্চ মাধ্যমিক স্কুলগুলিকে এ কাজে ব্যবহার করা হবে। যেখানে উন্নত পেশাদারি শিক্ষার প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। এর ফলে যেমন স্ব-নির্ভর হওয়ার স্বপ্ন পূরণ হবে, তেমনই কর্মসংস্থানেও সহায়ক ভূমিকা নেবে এই প্রশিক্ষণ।

প্রাথমিক ভাবে রাজ্যের ২৭০০ উচ্চ মাধ্যমিক স্কুলকে বেছে নেওয়া হয়েছে। এখন শিক্ষাদানের জন্য উপযুক্ত পরিকাঠামো নির্মাণের প্রক্রিয়া জারি রয়েছে। তা সম্পূর্ণ হলেই ভর্তির বিষয়ে নির্দেশিকা তৈরি করা হবে। এই প্রকল্পে সহযোগিতা করছে ন্যাশনাল স্কিল ডেভেলপমেন্ট কর্পোরেশন, নাবার্ড এবং চেম্বার্স অব কমার্স।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন