Connect with us

শিক্ষা ও কেরিয়ার

সোমবার উচ্চ মাধ্যমিকের ফলাফল, জেনে নিন কী ভাবে দেখবেন

HS results Exam

ওয়েবডেস্ক: গত ২২ মে রাজ্যের মাধ্যমিকের পর আগামী ২৭ মে, সোমবার ঘোষিত হচ্ছে ২০১৯ উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার ফলাফল। পশ্চিমবঙ্গ উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদের সভাপতি ড. মহুয়া দাস জানিয়েছেন, ওই দিন সকালে ১০টা ফলাফল প্রকাশ করা হবে।

আনুষ্ঠানিক ভাবে ফল প্রকাশের পরই পরীক্ষার্থীরা সকাল ১১টা থেকে সংসদের ওয়েবসাইট, নির্দিষ্ট মোবাইল নম্বরে এসএমএস এবং মোবাইলের অ্যাপের মাধ্যমে ফলাফল দেখে নিতে পারবেন।

গত শনিবারই সংসদের আওতাধীন স্কুল কর্তৃপক্ষের কাছে এ বিষয়ে বিজ্ঞপ্তি পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। ওই সমস্ত স্কুলের প্রতিনিধিরা সকাল সাড়ে ১০টা থেকেই পরীক্ষার্থীদের মার্কশিট সংগ্রহ করতে পারবেন সংসদ কার্যালয় থেকে।

পরীক্ষার্থীরা ফলাফল দেখতে চাইলে ব্যবহার করতে পারেন এই সমস্ত ওয়েবসাইটগুলি-

wbresults.nic.in
exametc.com
results.shiksha
westbengal.shiksha
westbengalonline.in
indiaresults.com
jagranjosh.com
examresults.net
technoindiagroup.com
technoindiauniversity.ac.in
tigpublicschool.org
abpananda.abplive.in
newsnation.in
news18bangla.com

একই সঙ্গে মোবাইল এসএমএস-এর মাধ্যমেও জেনে নিতে পারেন ফলাফল:

Exametc.com

<WB12spaceRollnumber> এসএমএস পাঠাতে হবে ৫৪২৪২ নম্বরে

indiaresults.com

<WB12spaceRollnumber> এসএমএস পাঠাতে হবে ৫৬৭৬৫০ নম্বরে

news18bangla.com 

<WB12spaceRollnumber> এসএমএস পাঠাতে হবে ৫৬২৫৩ নম্বরে

রয়েছে মোবাইল অ্যাপ

www.results.shiksha থেকে WB HS  অ্যাপ ডাউনলোড করেও ফলাফল জানা যেতে পারে।

শিক্ষা ও কেরিয়ার

সিবিএসই ২০২০: ফলাফল বেরোলে কী ভাবে মার্কশিট এবং সার্টিফিকেট পাওয়া যাবে?

দেখে নেওয়া যাক কী ভাবে পড়ুয়ারা মার্কশিট এবং পাস সার্টিফিকেট হাতে পাবে?

ওয়েবডেস্ক: সিবিএসই ২০২০ পরীক্ষার ফলাফল (CBSE Results 2020) আগামী ১৫ জুলাইয়ের মধ্যে প্রকাশিত হতে চলেছে। দেখে নেওয়া যাক কী ভাবে পড়ুয়ারা মার্কশিট এবং পাস সার্টিফিকেট হাতে পাবে?

প্রত্যেক বছরই সিবিএসই-র দশম এবং দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষার ফলাফল বেরনোর পর যাবতীয় নথি বোর্ডের স্কুলগুলি থেকেই পাওয়া যায়। তবে তার আগে ফলাফল দেখে নেওয়া যায় অনলাইনেই। অর্থাৎ, হার্ড কপি এবং অনলাইন কপি, অন্য়ান্য বছর দু’টোই পাওয়া যায়।

ফলাফল ঘোষণার ১০-১৫ দিনের মধ্যে স্কুলগুলি পড়ুয়াদের পাস সার্টিফিকেট দিয়ে থাকে। এ বার ওই শংসাপত্রগুলি কখন দেওয়া হবে, এ ব্যাপারে পড়ুয়াদের নিজের নিজের স্কুলে সঙ্গে যোগাযোগ রাখতে হবে।

ডিজিলকারের মাধ্যমে কী ভাবে পাওয়া যাবে?

ডিজিলকারের (DigiLocker) মাধ্যমেও সিবিএসই-র মার্কশিট এবং পাস সার্টিফিকেট পাওয়া যায়। গত ২০১৯ সাল থেকে পড়ুয়াদের ডিজিটাল সার্টিফিকেট দিতে শুরু করেছে বোর্ড।

ডিজি লকার হল ডিজিটাল ইন্ডিয়া প্রোগ্রামের আওতায় ইলেকট্রনিক্স এবং তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রকের (MeitY) একটি মূল উদ্যোগ। এর মাধ্যমে নাগরিকের ডিজিটাল নথিগুলি সরবরাহ করা হয়।

সমস্ত পড়ুয়া তাদের রেজিস্টার্ড মোবাইল নম্বরে এসএমএসের (SMS) মাধ্যমে তাদের ডিজি-লকারের ইউজার নেম (username) পেতে পারেন।

অন্য দিকে যে সব পড়ুয়া এসএমএস পায়নি বা অন্যথায় সিবিএসইতে রেজিস্টার্ড মোবাইল নম্বরও দেওয়া নেই, তারা ডিজিটালকারে সাইন-আপ করে ডিজিটাল শংসাপত্রগুলি পেতে পারেন।

বাকি পরীক্ষা বাতিল করেই ফলাফল

করোনাভাইরাস মহামারির কারণে বাকি পরীক্ষা বাতিল করে ফলাফল ঘোষণা করার সিদ্ধান্ত নিয়ে বোর্ড। বিষয়টি আদালতে পর্যন্ত গড়ায়। সুপ্রিম কোর্টে পেশ করা প্রস্তাবে বোর্ড জানিয়েছিল, দশম শ্রেণি এবং দ্বাদশ শ্রেণীর বাকি পরীক্ষাগুলি নেওয়া হবে না। তবে দ্বাদশ শ্রেণীর ইচ্ছুক পরীক্ষার্থীরা চাইলে পরিস্থিতি অনুকূল হওয়ার পরে বোর্ড পরীক্ষার বন্দোবস্ত করতে পারে। তবে তা মোটেই বাধ্যতামূলক নয়। এই প্রস্তাবটিতেও শীর্ষ আদালতের অনুমোদন মিলেছে।

১-১৫ জুলাই বোর্ডের দশম এবং দ্বাদশ শ্রেণীর বাকি পরীক্ষাগুলি বর্তমান পরিস্থিতিতে নেওয়া সম্ভব নয়। রাজ্যগুলিও এ ব্যাপারে নিজেদের অক্ষমতার কথা জানিয়েছে। বহু স্কুলে কোয়রান্টিন সেন্টার তৈরি হয়েছে। এ ধরনের যাবতীয় সমস্যাগুলি বিচার করেই জুলাইয়ে ওই পরীক্ষা বাতিলের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

Continue Reading

শিক্ষা ও কেরিয়ার

প্যারামেডিক্যাল কোর্সের খুঁটিনাটি, পর্ব ৪

paramedical

খবরঅনলাইন ডেস্ক : এর আগে তিনটি পর্বে প্যারামেডিক্যাল ডিপ্লোমা, ডিগ্রি, পিজি কোর্স নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। এই পর্বে থাকছে এই বিষয়ে আরও কিছু খুঁটিনাটি। সঙ্গে কোথায় পড়ানো হয় তার কিছু খবরাখবরও।

এই পেশায় বেতনক্রম কেমন?

এই পেশায় বেতনক্রম বছরে ২ লক্ষ থেকে ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত হয়। অভিজ্ঞতা অনুযায়ী বেতন কম বেশি হয়।

চাহিদা কেমন?

১০০ বেডের নার্সিং হোম বা হাসপাতালের জন্য ৭০ জন প্যারামেডিক লাগে।

পশ্চিমবঙ্গে কোথায় কোথায় কোন কোন কলেজে প্যারামেডিক্যাল কোর্স করানো হয়?

সরকারি সংস্থা – স্টেট মেডিক্যাল ফ্যাকাল্টি অব ওয়েস্ট বেঙ্গল।

ইনস্টিটিউট অব মেডিক্যাল অ্যান্ড টেকনোলজিক্যাল রিসার্চ, কলকাতা;

বেহালা ইনস্টিটিউট অব অ্যালায়েড হেলথ্‌ সায়েন্সেস, কলকাতা;

চার্নক হেলথকেয়ার ইনস্টিটিউট, কলকাতা;

আর জি কর মেডিক্যাল কলেজ অ্যান্ড হসপিটাল, কলকাতা;

প্রেরণা এডুকেশন, কলকাতা;

ওয়েস্ট বেঙ্গল ইনস্টিটিউট অব হেলথ্ সায়েন্সেস, সল্ট লেক, কলকাতা;

মৌলানা আবুল কালাম আজাদ ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি, সল্ট লেক, কলকাতা;

সোসাইটি ফর দ্য স্কুল অব মেডিক্যাল টেকনোলজি, কলকাতা।

প্যারামেডিক্যাল কলেজ, দুর্গাপুর;

ডাঃ কে আর অধিকারী কলেজ অব অপটোমেট্রি অ্যান্ড প্যারামেডিক্যাল টেকনোলজি, কল্যাণী;

এইগুলির মধ্যে কয়েকটির কোর্স ও ভর্তি পদ্ধতি সম্পর্কে এখানে বলা হল –

আরও পড়ুন – প্যারামেডিক্যাল কোর্সের খুঁটিনাটি, পর্ব ৩

১। স্টেট মেডিক্যাল ফ্যাকালটি অব ওয়েস্ট বেঙ্গল

এটি সরকারি সংস্থা। ডিপ্লোমা কোর্স করানো হয়।

ডিপ্লোমা – মেডিক্যাল ল্যাবরেটরি টেকনোলজি, রেডিওগ্রাফি (ডায়গনোস্টিক), ফিজিওথেরাপি, রেডিওথেরাপিউটিক টেকনোলজি, অপটোমেট্রিক উইথ অপথ্যালমিক টেকনিক, নিউরো ইলেকট্রো ফিজিওলজি, পারফিউশন টেকনোলজি, ক্যাথ ল্যাব টেকনিশিয়ান, ডায়ালিসিস টেকনিক / ডায়ালিসিস টেকনিশিয়ান, ক্রিটিক্যাল কেয়ার টেকনোলজি, অপারেশন থিয়েটার টেকনোলজি, ডায়াবেটিস কেয়ার টেকনোলজি, ইলেকট্রো কার্ডিওগ্রাফি টেকনিক/ ইসিজি টেকনিশিয়ান।

ভর্তি – অনলাইন রেজিস্ট্রেশন, এনট্রান্স পরীক্ষার মাধ্যমে

২। সেন্ট্রাল ক্যালকাটা মেডিক্যাল অ্যান্ড টেকনোলজিক্যাল রিসার্চ ইনস্টিটিউট

পশ্চিমবঙ্গ সরকার অনুমোদিত সংস্থা। সার্টিফিকেট ও ডিপ্লোমা কোর্স করানো হয়।

সার্টিফিকেট – মেডিক্যাল ল্যাবরেটরি টেকনোলজি, মেডিক্যাল রেডিওলজি টেকনোলজি, ইলেকট্রোকনভালসিভ থেরাপি, ফিজিওথেরাপি, এফডব্লিউটি অ্যান্ড পিইটি ( ফ্যামিলি ওয়েলফেয়ার ট্রেনিং অ্যান্ড পপুলেশন এডুকেশন ট্রেনিং),

ডিপ্লোমা – মেডিক্যাল ল্যাবরেটরি টেকনোলজি, মেডিক্যাল রেডিওলজি টেকনোলজি, ইলেকট্রোকনভালসিভ থেরাপি, ফিজিওথেরাপি, ডিপ্লোমা ইন হোম নার্সিং (ডিএইচএন), অপারেশন থিয়েটর টেকনিশিয়ান,

অন্যান্য – ডিডিএসএইচ (ডেন্টাল), এএনএম (অক্সিলারি নার্স মিডওয়াইফেরি), ড্রেসার, এমএসআইটি, কমিউনিটি হেলথ ওয়ার্কার, মাল্টিপার্পস হেলথ ওয়ার্কার,

ভর্তি – রেজিস্ট্রেশন/ পরীক্ষার ফর্ম সাইট থেকে ডাউনলোড করে ভর্তি করতে হবে।

 ৩। বেহালা ইনস্টিটিউট অব অ্যালায়েড হেলথ্‌ সায়েন্সেস

ওয়েস্ট বেঙ্গল স্টেট কাউন্সিল অব টেকনিক্যাল এডুকেশন অনুমোদিত। সার্টিফিকেট, ডিপ্লোমা ও ডিগ্রি কোর্স করানো হয়।

ডিপ্লোমা – মেডিক্যাল ল্যাবরেটরি টেকনোলজি, ফিজিও থেরাপি অ্যান্ড অ্যাকটিভিটি থেরাপি, পেসেন্ট কেয়ার (নার্সিং), অপারেশন থিয়েটর টেকনোলজি, ইসিজি টেকনিশিয়ন, ফিজিশিয়ান অ্যাসিস্ট্যান্ট, এক্সরে টেকনোলজি, অপটোমেট্রি, ডায়ালিসিস টেকনোলজি, আল্ট্রা সোনোগ্রাফি টেকনিশিয়ন,   

ভর্তি – অনলাইন ও অফলাইনে ভর্তি হওয়া যায়।

৪। চার্নক হেলথকেয়ার ইনস্টিটিউট

ওয়েস্ট বেঙ্গল ইউনিভার্সিটি অব হেলথ সায়েন্সের অনুমোদন প্রাপ্ত। ফুল টাইম ডিগ্রি কোর্স করানো হয়।

ডিগ্রি – বিএসসি ইন ক্রিটিক্যাল কেয়ার, অপারেশন থিয়েটর।

ভর্তি – জয়েন্ট এনট্রান্স এগজামিনেশন বোর্ড অর্থাৎ জেইএনপিএএস – ইউজি-র পরীক্ষায় পাশ করতে হবে।   

৫। ডক্টর কে আর অধিকারি কলেজ অব অপ্টোমেট্রি অ্যান্ড প্যারামেডিক্যাল টেকনোলজি

কল্যাণী ইউনিভার্সিটির অনুমোদন প্রাপ্ত, আইএসও অর্থাৎ ইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেশন ফর স্ট্যান্ডারাইজেশনের স্বীকৃতি প্রাপ্ত। ডিপ্লোমা ও সার্টিফিকেট কোর্স করানো হয়।

ডিপ্লোমা – মেডিক্যাল রেডিওলজি টেকনিক (এক্সরে টেকনিশিয়ান), ফিজিওথেরাপি টেকনিক (ফিজিওথেরাপিস্ট), ইলেকট্রো কার্ডিওগ্রাফি টেকনিক (ইসিজি টেকনিশিয়ান), ইলেকট্রো এনসেফালোগ্রাফি টেকনিক (ইইজি টেকনিশিয়ান),

পড়ুন – প্যারামেডিক্যাল কোর্সের খুঁটিনাটি, পর্ব ২

সার্টিফিকেট – ডেন্টাল টেকনিক (ডেন্টাল টেকনিশিয়ান),

অন্যান্য – এছাড়াও প্রি অপটোমেট্রি ও টেকনোলজি কোর্স।

ভর্তি – প্রথমে ফর্ম ফিলাপ, পরে সংস্থার পক্ষ থেকে নেওয়া এনট্রান্স পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার মাধ্যমে।

পরবর্তী পর্বে থাকবে পশ্চিমবঙ্গের আরও কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের খোঁজখবর।

দেখে নিন – প্যারামেডিক্যাল কোর্সের খুঁটিনাটি, পর্ব ১

Continue Reading

রাজ্য

অভিভাবকরা স্কুল-ফি দিচ্ছেন না, পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি সিবিএসই স্কুল-প্রধানদের

খবরঅনলাইন ডেস্ক: অভিভাবকরা স্কুল-ফি দিচ্ছেন না, ফলে গভীর সংকটে পড়েছে স্কুল। এই সংকটের কথা জানিয়ে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী (West Bengal CM) মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে (Mamata Bandyopadhyay) চিঠি লিখেছেন কলকাতা ও বিভিন্ন জেলার ১০০টি সিবিএসই স্কুলের (CBSE schools) অধ্যক্ষরা। ওই চিঠির প্রতিলিপি পাঠানো হয়েছে স্কুল শিক্ষা দফতরে।

চিঠিতে অধ্যক্ষরা জানিয়েছেন, ৭০ শতাংশের বেশি অভিভাবক স্কুল-ফি দিচ্ছেন না। ফলে গভীর আর্থিক সংকটে পড়েছে স্কুলগুলি। এই অবস্থায় আর কিছু দিনের মধ্যেই তাঁরা স্কুলশিক্ষক ও শিক্ষাকর্মীদের বেতন দিতে পারবেন না। হয়তো স্কুলই বন্ধ করে দিতে হবে।

এ বছর স্কুল-ফি না বাড়াতে মুখ্যমন্ত্রী ও তাঁর সরকার শহরের স্কুলগুলির কাছে বার বার আবেদন করছেন। তারই পরিপ্রেক্ষিতে সিবিএসই স্কুল-প্রধানদের এই চিঠি খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

চিঠিতে পরিষ্কার করে বলা হয়েছে, তাঁরা এ বছর স্কুল-ফি বাড়াননি, অথচ অভিভাবকরা এখনও এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে যাচ্ছেন এবং এপ্রিল মাস থেকে স্কুল-ফি আটকে রেখেছেন। এর ওপর তাঁরা বিভিন্ন ধরনের ছাড় দাবি করছেন। এর ফলে স্কুলগুলো অর্থ সংকটে পড়েছে। পরিস্থিতিটা যাতে অভিভাবকরা সম্যক উপলব্ধি করতে পারেন এবং তাঁরা যাতে স্কুল-ফি মিটিয়ে দিতে এগিয়ে আসেন তার জন্য রাজ্যের হস্তক্ষেপ দরকার।

এ বিষয়ে পদক্ষেপ করার জন্য এবং বকেয়া মিটিয়ে স্কুল-ফি দেওয়া স্কুল শুরু করার ব্যাপারে অভিভাবকদের উদ্দেশে নির্দেশ জারি করার জন্য রাজ্য সরকারের কাছে আবেদন জানানো হয়েছে ওই চিঠিতে।

চিঠিতে বলা হয়েছে, “ফি মকুব করার মতো অবৈধ নির্দেশ অনুসরণ করতে স্কুলগুলিকে বাধ্য করা উচিত নয়। ফি মকুব করা হলে তার যা ফল ফলবে তাতে স্কুল চালানো যাবে না।”

চিঠিতে আরও লেখা হয়েছে, হাতে প্ল্যাকার্ড নিয়ে, মুখে স্লোগান দিতে দিতে অভিভাবকরা মিছিল করে স্কুলের দিকে আসছেন, স্কুলগেটের বাইরে জড়ো হয়ে, কখনও কখনও স্কুলের ভেতরে ঢুকে আক্রমণাত্মক ভাবে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন, তার পর সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড় উঠছে – গোটা ঘটনায় স্কুলের পক্ষে প্রচণ্ড মানসিক যন্ত্রণার সৃষ্টি হচ্ছে। “কোনো ভাবেই স্কুল-ফি বাড়ানো হয়নি, অথচ তাঁরা ফি মকুব বা আংশিক মকুব করার দাবি জানাচ্ছেন।”

সিবিএসই স্কুলের অধ্যক্ষদের মঞ্চ ‘সহোদয় স্কুলস’-এর ব্যানারে অধ্যক্ষরা রাজ্য প্রশাসনের কাছে এই বিষয়টি তুলে ধরেছেন। চিঠিতে আরও বলা হয়েছে, “ফি না দেওয়ার বিষয়টি সোশ্যাল মিডিয়ার মঞ্চে বিকৃত ভাবে তুলে ধরা হচ্ছে এবং একে সমর্থন করাটা এখন একটা প্রবণতা হয়ে দাঁড়িয়েছে। এমন ভাবে গোটা ব্যাপারটা তুলে ধরা হচ্ছে যেন স্কুলগুলো শয়তান।”

তবে চিঠিতে এটা স্পষ্ট করে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে যে, যে সব অভিভাবকের কাজ চলে গিয়েছে বা যাঁরা আর্থিক সংকটে রয়েছেন তাঁরা কনসেশনের জন্য যথাযথ প্রমাণ নিয়ে অধ্যক্ষদের সঙ্গে দেখা করতে পারেন।                  

Continue Reading
Advertisement
রাজ্য12 mins ago

করোনায় লাগাম টানতে এ বার পশ্চিমবঙ্গে আসা স্পেশাল ট্রেনের সংখ্যা কমছে

বাংলাদেশ6 hours ago

‘দম ফুরাইলে ঠুস’-এর গায়ক প্লেব্যাক সম্রাট এন্ড্রু কিশোর প্রয়াত

রাজ্য12 hours ago

নতুন সংক্রমণ কিছুটা কম, রাজ্যে করোনামুক্ত হলেন ১৫ হাজার

প্রযুক্তি12 hours ago

নতুন অ্যাপ ‘সেল্‌ফ স্ক্যান’ নিয়ে এল রাজ্য সরকার! এর কাজ কী?

বিনোদন14 hours ago

সুশান্ত সিং রাজপুত মৃত্যু-রহস্যে থানায় বয়ান রেকর্ডের পর নি‌ঃশব্দেই বেরিয়ে এলেন সঞ্জয়লীলা বনশালী

ক্রিকেট14 hours ago

ওপেনার সচিন তেন্ডুলকরের গোপন রহস্য ফাঁস করলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়

কেনাকাটা14 hours ago

রান্নাঘরের টুকিটাকি প্রয়োজনে এই ১০টি সামগ্রী খুবই কাজের

দার্জিলিং15 hours ago

‘বিশ্বাস ছিল এই লড়াই জিতব’, করোনাকে জয় করে বাড়ি ফিরলেন অশোক ভট্টাচার্য

currency
শিল্প-বাণিজ্য15 hours ago

পিপিএফের ৯টি নিয়ম, যা জেনে রাখা ভালো

দেশ23 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ২৪২৪৮, সুস্থ ১৫৩৫০

কলকাতা3 days ago

কলকাতায় অতিসংক্রমিত ১৬টি অঞ্চলকে পুরোপুরি সিল করে দেওয়ার প্রস্তুতি

রাজ্য3 days ago

করোনা-আক্রান্তের সংখ্যায় কলকাতাকে পেছনে ফেলে দিল হায়দরাবাদ, বেঙ্গালুরু

রবিবারের পড়া2 days ago

রবিবারের পড়া: ভারতীয় ক্রিকেট-বিপ্লবের দুই কারিগর

রাজ্য21 hours ago

করোনা রুখতে পশ্চিমবঙ্গের ‘সেফ হোম’-এর ভূয়সী প্রশংসা কেন্দ্রের

রাজ্য3 days ago

দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যায় নতুন রেকর্ড রাজ্যে, সুস্থতাতেও রেকর্ড

বিনোদন3 days ago

ময়দান: সৈয়দ আবদুল রহিমের বায়োপিক মুক্তির নতুন দিন জানালেন অজয় দেবগন

কেনাকাটা

কেনাকাটা14 hours ago

রান্নাঘরের টুকিটাকি প্রয়োজনে এই ১০টি সামগ্রী খুবই কাজের

খবরঅনলাইন ডেস্ক : লকডাউনের মধ্যে আনলক হলেও খুব দরকার ছাড়া বাইরে না বেরোনোই ভালো। আর বাইরে বেরোলেও নিউ নর্মালের সব...

কেনাকাটা2 days ago

হ্যান্ড স্যানিটাইজারে ৩১ শতাংশ পর্যন্ত ছাড় দিচ্ছে অ্যামাজন

অনলাইনে খুচরো বিক্রেতা অ্যামাজন ক্রেতার চাহিদার কথা মাথায় রেখে ঢেলে সাজিয়েছে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের সম্ভার।

DIY DIY
কেনাকাটা6 days ago

সময় কাটছে না? ঘরে বসে এই সমস্ত সামগ্রী দিয়ে করুন ডিআইওয়াই আইটেম

খবর অনলাইন ডেস্ক :  এক ঘেয়ে সময় কাটছে না? ঘরে বসে করতে পারেন ডিআইওয়াই অর্থাৎ ডু ইট ইওরসেলফ। বাড়িতে পড়ে...

smartphone smartphone
কেনাকাটা1 week ago

লকডাউনের মধ্যে ফোন খারাপ? রইল ৫ হাজারের মধ্যে স্মার্টফোনের হদিশ

খবরঅনলাইন ডেস্ক : করোনা সংক্রমণের হাত থেকে বাঁচতে ঘরে বসে যতটা কাজ সারা যায় ততটাই ভালো। তাই মোবাইল ফোন খারাপ...

নজরে