teacher
প্রতীকী ছবি

কলকাতা: প্রশিক্ষণহীন স্কুল শিক্ষকদের সুর্নিদিষ্ট তালিকা তৈরি করছে রাজ্য সরকার। মূলত উচ্চ মাধ্যমিকে প্রয়োজনীয় নম্বর না থাকায় যে সমস্ত শিক্ষক এখনও প্রশিক্ষণ নিতে পারেননি, আবার কেন্দ্রীয় মুক্ত বিদ্যালয় এনআইওএসেও যাঁরা প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন না, তেমন শিক্ষকদের  তাঁদের নামের তালিকা চেয়ে পাঠানো হয়েছে বিভিন্ন জেলার সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে। কিন্তু সেই তালিকা জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ৩১ জুলাই পার হয়ে যাওয়ার পর দেখা যায়, এক মাত্র মালদহ ছাড়া আর কোনো জেলা থেকেই পূর্ণাঙ্গ তালিকা হাতে পায়নি রাজ্য। স্বাভাবিক ভাবে এই তালিকা জমা দেওয়ার জন্য আরও এক সপ্তাহ সময় বৃদ্ধি করা হয়। যদিও লিখিত ভাবে স্কুল শিক্ষা ডিরেক্টরেট এ বিষয়ে কোনো নির্দেশ যায়নি বলেই জানা গিয়েছে।

রাজ্য সরকারে তরফে প্রশিক্ষণহীন শিক্ষকদের প্রশিক্ষণের বন্দোবস্ত করার পরেও একাধিক কারণে অসংখ্য শিক্ষক এখনও পর্যন্ত মাপকাঠি পূরণে অক্ষম। এ ক্ষেত্রে উচ্চ মাধ্যমিকে ৫০ শতাংশ নম্বর না থাকায় অনেকেই প্রশিক্ষণ নিতে পারেননি। আবার সরকারি তরফে দাবি করা হয়ে থাকে, কিছু শিক্ষকের গাফিলতির কারণেই তাঁরা প্রশিক্ষণ নিতে পারেননি। যদিও প্রাথমিক এবং মাধ্যমিক মিলিয়ে ঠিক কত সংখ্য়ক শিক্ষকের প্রশিক্ষণ নেই, সে বিষয়ে স্পষ্ট কোনো পরিসংখ্যান নেই রাজ্যের হাতে। কেন্দ্রের মানব সম্পদ উন্নয়নমন্ত্রকের নির্দেশিকা মতো যোগ্যতা পূরণে ব্যর্থ হলে আগামী ২০১৯-এর মার্চের পর ওই শিক্ষকদের চাকরি চলে যাওয়ার সম্ভাবনাও আরও প্রবল হবে। সব মিলিয়ে রাজ্য চাইছে, কেন্দ্রের কাছে সময় বৃদ্ধির আবেদন জানাতে এই প্রশিক্ষণহীন শিক্ষকদের তালিকা সংযুক্ত করা হবে। কিন্তু সেই তালিকা নিয়েই চলছে গড়িমসি।

আরও পড়ুন: শিক্ষক নিয়োগে এ বার হাইকোর্টে যাবে রাজ্য, জানালেন শিক্ষামন্ত্রী

যদিও জেলার একাধিক ডিআই-এর তরফে অভিযোগ করে বলা হয়েছে, তালিকা প্রস্তুতের জন্য সময় দেওয়া হয়েছিল মাত্র এক দিন।  ৩০ জুলাই ডিরেক্টরেট থেকে ফোন করে বলা হয়েছিল, পর দিন অর্থাৎ ৩১ জুলাই বিকালের মধ্যে তালিকা জমা করতে হবে। এত স্বল্প সময়ে তা করা সম্ভব হয়ে ওঠেনি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন