ওয়েবডেস্ক: কিছদিন আগে বলিউডে ‘কাস্টিং কাউচ’ নিয়ে মুখ খুলে ঝড় তুলেছেন কঙ্গনা রনওয়াত। বাবার বয়সী অভিনেতা আদিত্য পাঞ্চোলির হাতে নির্যাতনে অভিযোগও এনেছেন তিনি। যদিও আদিত্য স্ত্রী জারিনা ওয়াহাব অবশ্য এ নিয়ে অন্য কথা বলেছেন। বুধবার এক ব্যক্তি দাবি করেছেন তিনি নিজের চোখে দেখেছেন কঙ্গনাকে প্রকাশ্য রাস্তায় হেনস্থা করছেন আদিত্য পাঞ্চোলি।

এ নিয়ে তিনি শুধু কঙ্গনার দাবিকে সমর্থনই করেনি, প্রয়োজনে তাঁর হয়ে আদালতে সাক্ষী হবেন বলে জানিয়েছেন তিনি।

কী জানিয়েছেন ওই ব্যক্তি?

‘‘ বছর খানেক আগে আমি ১২টা-সাড়ে বারোটা নাগাদ বাইকে করে যাচ্ছিলাম। দেখতে পেলাম জুহুতে জেডব্লু ম্যারিয়ট হোটেলের সামনে একটি রিক্সায় একটি মেয়ে খুব চিৎকার করছে। সে ওই রিক্সা চালকে বলছে জোরে চালাতে। সেই সময় হঠাৎ একটা সাদা গাড়ি এসে রিক্সাটাকে আটকে দাঁড়ায়। আমি যখন রিক্সার দিকে তাকাই মেয়েটি তখন আমকে দেখে চিৎকার করে বারবার বলতে থাকে ‘আমাকে বাঁচান’। সে সময় লম্বা এক ব্যক্তি ওই গাড়ি থেকে নামে এবং চুল ধরে মেয়েটিকে টানতে টানতে নিয়ে যায়। আমি তখন বাইক থেকে নামি। ওই ব্যক্তি হচ্ছেন আদিত্য পাঞ্চোলি এবং মেয়েটি কঙ্গনা রনওয়াত। দেখি অদিত্য কঙ্গনাকে ঘুষি মারছে। আমি আদিত্যকে পেছন থেকে টেনে ধরি। সে বলে, ‘ সর্দারজি এর মধ্য আসবেন না। এটা আমাদের ব্যক্তিগত ব্যাপার।’ আমি বলি,‘যদি এটা ব্যক্তিগত ব্যাপার হয় তবে বাড়িতে গিয়ে মিটিয়ে নিন।’ ইতিমধ্যে আট-দশ জন লোক জড়ো হয়ে যায় এবং আদিত্যকে আটকানোর চেষ্টা করে। সে সময় কঙ্গনা লাফ দিয়ে রাস্তার অন্য পারে চলে যায় এবং পালিয়ে যায়। আমি বিষয়টি পুলিশকে এবং মিড-ডের একজন সাংবাদিককে জানাই।  যে ভাবে আদিত্য কঙ্গনাকে মারছিল তা শারীরিক হেনস্থাই বলা যেতে পারে। কঙ্গনার এখুনি এফআইআর করা উচিত। আমি আদলতে সাক্ষী দিতে রাজি আছি এবং পুলিশ আমার বয়ান দিতে প্রস্তুত।’’

আরও পড়ুন: বোকার মতো কথা বলছেন কঙ্গনা, বললেন আদিত্য পাঞ্চোলির স্ত্রী জারিনা 

এই বক্তব্য কতটা বিশ্বাসযোগ্য তা আমরা জানি না। ওই ব্যক্তির বক্তব্যের ভিডিও টুইটারে শেয়ার করেছে পিপিং মুন।

 

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন