পল্লবী দে রহস্যমৃত্যুতে আরেক মোড়, মুখ খুললেন সাগ্নিকের প্রাক্তন ‘স্ত্রী’

0

কলকাতা: রবিবার গড়ফার ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হয় বাংলা টেলিভিশন সিরিয়ালের অভিনেত্রী পল্লবী দে’র দেহ। তার পর থেকে উঠে আসছে একের পর এক নাম। এসেছে তাঁর লিভ-ইন পার্টনার সাগ্নিক চক্রবর্তী, বান্ধবী ঐন্দ্রিলার নাম। এ বার প্রকাশ্যে এল সুকন্যা মান্না নামে আরেক জনের নাম, তিনি না কি সাগ্নিকের প্রাক্তন ‘স্ত্রী’!

1অন্য কারো সঙ্গে সম্পর্ক জেনেও লিভ-ইন!

[পল্লবী দে]

সোমবার পল্লবীর বাবা অভিযোগ করেন, ঐন্দ্রিলার নাম এক জনের সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছিলেন সাগ্নিক। পল্লবীর সঙ্গে লিভ-ইন করলেও অপর এক তরুণীর সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে উঠেছিল সাগ্নিকের। পল্লবীর অনুপস্থিতিতে তৃতীয়জন পল্লবীরই ফ্ল্যাটে আসতেন। সেই বিষয়টি জানতে পেরে গিয়েছিলেন অভিনেত্রী।

2বিবাহিত সম্পর্ককে পাশে রেখেই লিভ-ইন?

[পল্লবী দে এবং সাগ্নিক চক্রবর্তী]

পল্লবীর পরিবারের তরফ থেকে আরও অভিযোগ করা হয়, পল্লবীর সঙ্গে সম্পর্কে জড়ানোর আগে বিবাহিত ছিলেন সাগ্নিক। নিজের পুরনো বিবাহিত সম্পর্ককে পাশে রেখে নতুন সম্পর্কে জড়ান তিনি। মিডিয়া রিপোর্টে দাবি, এ বার পল্লবী ও সাগ্নিককে নিয়ে মুখ খুলেছেন সাগ্নিকের প্রাক্তন ‘স্ত্রী’ সুকন্যা মান্না।

3সাগ্নিকের আর্থিক সচ্ছলতাই আসল কারণ?

[পল্লবী দে]

‘জি ২৪ ঘণ্টা’কে সুকন্যা বলেন, “পল্লবী আমার বন্ধু ছিল, সাগ্নিক ওকে চিনতই না। আমার মাধ্যমেই ওদের পরিচয় হয়। আমার পিছনে ও সাগ্নিকের সঙ্গে মেলামেশা করত আর আমার কাছে তা অস্বীকার করত। আমি খুবই সাদামাটা মেয়ে, ঝমেলা পছন্দ নয়। যখনই ওদের মেলামেশার কথা জানতে পারি, তখনই ঐ সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসি”।

4সুকন্যার চোখে পল্লবী কী রকম?

[পল্লবী দে এবং সাগ্নিক চক্রবর্তী]

পল্লবীর বাবার অভিযোগ, লক্ষ লক্ষ টাকা আত্মসাতের জন্যই খুন করা হয়েছে পল্লবীকে। পল্লবীর অর্জিত অর্থ থেকেই বেশ কয়েক লক্ষ টাকা নিয়ে নিউটাউনের ফ্ল্যাটটি কেনেন সাগ্নিক। তবে ‘আনন্দবাজার অনলাইন’কে সুকন্যা বলেন, “পল্লবী ভালো মেয়ে ছিল না। ওর পক্ষে অত দামি উপহার দেওয়া সম্ভব নয়”। তিনি আরও বলেন, সাগ্নিক এবং তাঁর পরিবারের টাকা-পয়সা দেখেই তাঁর দিকে ঝুঁকেছিলেন পল্লবী।

5সুকন্যার চোখে সাগ্নিক কী রকম?

[পল্লবী দে এবং সাগ্নিক চক্রবর্তী]

সুকন্যার মতে, সাগ্নিক কাউকে মেরে ফেলতে পারে না। আর তাঁর পল্লবীর টাকায় জীবন যাপনেরও প্রয়োজন নেই। কেন না সাগ্নিক এবং তাঁর পরিবার বরাবরই ধনী। পল্লবীর সঙ্গে মেলামেশা শুরু করতে সুকন্যার সঙ্গে যোগাযোগ কমিয়ে দেন সাগ্নিক। তার পর ওই সম্পর্ক থেকে সরে দাঁড়ান সুকন্যা। তাঁর কথায়, “পল্লবীর টাকা আত্মসাৎ করা তো দূরের কথা, উলটে পল্লবীর পরিবারের খরচ জোগাতেন সাগ্নিক। কারণ, পল্লবীর বাবা একটি ঝাড়মুড়ির দোকান চালান, ভাইও তেমন কিছুই করতে না”।

6সুকন্যার চোখে ঐন্দ্রিলা কী রকম?

[পল্লবী দে]

পল্লবীর বাবা অভিযোগ করেছেন, ঐন্দ্রিলা নামে মেয়ের এক বান্ধবীর সঙ্গে গোপনে সম্পর্ক রাখতেন সাগ্নিক। সেটাই জানতে পেরে মেনে নিতে পারেননি তাঁর মেয়ে। এ নিয়েই পল্লবী ও সাগ্নিকের প্রায়শই অশান্তি হতো বলে দাবি করেছেন তিনি। যদিও ঐন্দ্রিলা এই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন। এমনকী সুকন্যা জানান, ওই ঐন্দ্রিলাকে ১০-১২ বছর ধরে চেনেন তিনি। তাঁরা দীর্ঘদিন একে অপরের পরিচিত।

আরও পড়তে পারেন:

ইস্যু প্রাইস ছুঁতে পারল না এলআইসি-র শেয়ার, শুরুর দিনেই আশাহত বিনিয়োগকারীরা

‘পূর্ত দফতরের এত চাহিদা কেন, ওদের দিয়ে সব কাজ করানোর দরকার নেই’, প্রশাসনিক সভায় ক্ষুব্ধ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

সুপ্রিম কোর্টে স্বস্তি অভিষেকের! কয়লা পাচার মামলায় কলকাতায় জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ ইডি-কে

মূল সুদের হার আবারও বাড়াতে পারে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক, বলছে এসবিআই রিপোর্ট

‘অযৌক্তিক!’ কাশ্মীর নিয়ে ওআইসির মন্তব্য উড়িয়ে দিল ভারত

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল