ওয়েবডেস্ক: এক যে ছিল বই! ভাওয়াল সন্ন্যাসীর গল্পকেও হার মানানো জীবন নিয়ে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের লেখা! কানাঘুষোয় শোনা যাচ্ছিল- অপর্ণা সেন না কি সেই বইয়ের উপরে ভিত্তি করে ভাওয়াল সন্ন্যাসীকে নিয়ে একটা ছবি বানানোর পরিকল্পনা করেছিলেন!

“কঙ্কণা একদিন আমায় ফোন করে বলল- মা, তুমি পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বইটা পড়েছো? আমি বললাম, হ্যাঁ! তখন ও আমায় বলল- তুমি ওটা নিয়ে একটা ছবি করছো না কেন! আমি বললাম, তুমিই করো না! শেষ পর্যন্ত ফোন রেখে আমি ব্যাপারটা নিয়ে একটু ভাবলাম! আমার বইটা হাতের কাছে পাচ্ছিলাম না, তাই পার্থর স্ত্রী গৌরীকে একটা কপি পাঠানোর অনুরোধ করলাম, ওঁরা সেই কলেজ জীবন থেকে পরিচিত বন্ধু! কিন্তু পরে শুনলাম- সৃজিত ওই বই নিয়েই ছবি করছে”, জানিয়েছেন অপর্ণা! লেখা বাহুল্য, সেই সঙ্গেই ছায়াছবির মৃণালিনী নিজের ছবির পরিকল্পনায় ইতি টেনে দেন!

আরও পড়ুন: উচ্চ কণ্ঠে ঝগড়া করা সৃজিত শান্ত হয়েছেন, জানাচ্ছেন আবির খোলাখুলি

কিন্তু শেষ পর্যন্ত সৃজিতের ছবিতে তাঁকে অভিনয় করতে হয়, সেই ওই বই নিয়ে তৈরি ছবির সঙ্গে জুড়েই যায় তাঁর নাম! “সৃজিত যাকে বলে নাছোড়বান্দা! আমি প্রথমটায় রাজি ছিলাম না! কিন্তু ও ছাড়ে না, লেগেই থাকে, লেগেই থাকে! শেষে দেখলাম, রাজি না হলে সৃজিত আমার জীবন শোচনীয় করে দিত”, বুঝিয়ে দিয়েছেন অপর্ণা এ বারে সৃজিতের পরিচালনায় অভিনয় করার কারণটা!

কিন্তু সৃজিতের ছবিতে এই ফিরে আসা যে পুরোটাই মধুর নয়, সে কথাও তিনি স্বীকার করেছেন! “স্বীকার করতে বাধ্য, ওই উকিলের জোব্বাটা পরে কাজ করাটা আমি খুবই ঘৃণা করেছি! ভীষণ গরম লাগত ওটা পরে, শীতকালেও”, জানিয়েছেন তিনি! যদিও এটা জানাতে ভোলেননি- একই সঙ্গে খুব আনন্দ করে কাজও করেছেন! ছবির ট্রেলার দেখে কি আপনারও তাই মনে হচ্ছে না?

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন