জেএনইউ-তে যাওয়ায় আক্রমণের শিকার দীপিকা পাড়ুকোন, রাগের সঙ্গে ভয়ের কথাও বললেন অভিনেত্রী

0

ওয়েবডেস্ক: বলিউড অভিনেত্রী দীপিকা পাড়ুকোনের আন্দোলনরত পড়ুয়াদের প্রতি সমর্থন জানিয়ে অপ্রত্যাশিত সফরে যান জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয় (জেএনইউ)-তে। মঙ্গলবার তাঁর জেএনইউ সফরের পর বিজেপির একাধিক নেতা-সমর্থকরা তাঁর পদক্ষেপ নিয়ে কটাক্ষ করেন।

“টুকরে টুকরে গ্যাং”-এর সমর্থন করায় একাংশ তাঁর ছবি বয়কটেরও পরামর্শ দিয়েছে। তবে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রকাশ জাভাড়েকর বিষয়টি পরিষ্কার করে বলেন, “যে কোনো জায়গায় যে কোনো ব্যক্তি যেতে এবং যে কোনো বিষয়ে তাঁদের মতামত দিতে পারেন”। তিনি যোগ করেছেন, “এটা নিয়ে কোনো আপত্তি থাকতে পারে না”। তবে যখন তাঁর কাছে জানতে চাওয়া হয়, বিজেপি নেতারা দীপিকাকে বয়কটের কথা বলেছেন, তখন জাভাড়েকর নিজেকে ‘দলের জাতীয় মুখপাত্র’ বলে প্রশ্নের জবাব এড়িয়ে যান।

তবে দীপিকা এ বিষয়ে তেমন কোনো মন্তব্য করেননি। তিনি শুধু বলেছিলেন, তিনি শুধু মাত্র লড়াইকে সমর্থন জানাতে গিয়েছিলেন।

তবে সমালোচনা শুরু হওয়ার সাথে সাথেই, বিজেপির তেজিন্দর বাগা টুইট করে বলেছিলেন, “দীপিকা যদি ‘টুকরে টুকরে গ্যাং’ এবং ‘আফজল গ্যাং’য়ের সমর্থন করেন, তা হলে তাঁর ছবি বয়কট করা হোক”।

এর পরই সোশ্যাল মিডিয়ায় #BoycottChhapaak এবং #shameonbollywood ট্রেন্ডিং হয়ে যায়। এমনকী বিজেপি সাংসদ সম্বিত পাত্রাও দীপিকাকে কটাক্ষ করতে ছাড়েননি।

দীপিকাও থেমে থাকেননি। ‘আজতক’কে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, “যা ঘটছে, তাতে আমার খুব রাগ হয়, তবে এর চেয়েও খারাপ যে কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে না”।

দীপিকা বলেন, “আমি যা বলতে চেয়েছি, তা আমি দু’বছর আগে ‘পদ্মাবত’ মুক্তির সময়েও এটা বলেছিলাম। আমি আজ যা দেখছি, তা আমাকে কষ্ট দেয়। আমার আশঙ্কা হয়, এটা নতুন একটা স্বাভাবিক বিষয় হয়ে উঠবে না তো। যে কেউ যে কোনো কিছু বলতে পারে এবং তারা এটা থেকে পালাতেও পারে। আমি ভয় করি এবং আমি কষ্ট পাই। এটি আমাদের দেশের ভিত্তি নয়”।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন